চট্টগ্রাম, , সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১

admin

লামার মিরিঞ্জা পর্যটনে “টাইটানিক পাহাড়”

প্রকাশ: ২০১৭-০৯-০৫ ০৫:৩৫:২৪ || আপডেট: ২০১৭-০৯-০৫ ০৫:৫৯:৫১

বি.কে বিচিত্র, আলাউদ্দিন, লামা ঘুরেঃওপরে যত দূরে তাকাই, চোখ আটকাবে শুধু সাদা মেঘে। বাকি পুরোটাই ঝকঝকে নীল আকাশ। নিচে একই রকম সবুজের ছড়াছড়ি। মাঝে মাঝে উঁকি দিচ্ছে সাদা ঝরনা, আদিবাসীদের টংঘর। নাকে আসছে বুনো ফুলের গন্ধ। দাঁড়িয়ে আছি সমতল থেকে প্রায় দেড় হাজার ফুট ওপরে।

 

বান্দরবনের লামায় মিরিঞ্জা পর্যটন কমপ্লেক্সে। ভ্রমণপ্রেমীদের জন্য সবচে আকর্ষণীয় ও নান্দনিক পর্যটনকেন্দ্র হচ্ছে ‘মিরিঞ্জা পর্যটন কেন্দ্র’।

 

বান্দরবান জেলায় অবস্থিত এ কেন্দ্রটি সাগর থেকে প্রায় ১৫শ ফুট উঁচুতে। নৈসর্গিক সৌন্দর্যে ভরপুর এ স্থানটি পর্যটন কর্পোরেশনের তত্ত্বাবধানে একটি আকর্ষণীয় টুরিস্ট স্পট হিসেবে গড়ে উঠেছে।

 

১৯১২ সালে আটলান্টিকের জলে ডুবে যাওয়া টাইটানিক জাহাজের দৈহিক রূপের সাথে এ পাহাড়ের মিল থাকায় এর নামকরণ করা হয়েছে টাইটানিক পাহাড়। লোকমুখে জায়গাটার নাম এখন চালু হয়ে গেছে টাইটানিক পাহাড়।

 

এই পাহাড়ে দাঁড়িয়ে সূর্য ডোবার দৃশ্য একবার দেখলে বারবার ফিরে আসতে চাইবেন। পরিষ্কার দিনে এখান থেকে দেখতে পাবেন কক্সবাজারে বেলাভূমি এমনকি বঙ্গোপসাগরের বাতিঘরের ঝিলিক।

 

চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজারগামী সড়কের চকরিয়া এলাকার হাঁসের দিঘী থেকে লামা-আলীকদম সড়কের ১৬ কিলোমিটার পয়েন্টে অবস্থিত বান্দরবন জেলার এই নান্দনিক পর্যটন কেন্দ্র মিরিঞ্জা।

 

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পাশে চকরিয়া উপজেলার চকরিয়া বাসস্টেশনে নেমে আপনি বাস, জিপ অথবা মাইক্রোবাসযোগে হাঁসের দিঘি হয়ে ২০ মিনিট সময়ের ব্যবধানে লামা মিরিঞ্জা টাইটানিক পাহাড়ে চলে আসতে পারবেন।

 

আর এখান থেকে লামা বাজারে আসতে সময় লাগবে ১০ মিনিট। লামা বাজার থেকে যেতে পারবেন সুখি-দুঃখী পাহাড়সহ অনেক দর্শনীয় জায়গায়।

 

যে সকল পর্যটক রাত্রি য%