চট্টগ্রাম, , রোববার, ২৩ জুন ২০২৪

Alauddin Lohagara

পিইসিতে  চট্টগ্রাম জেলায় এবছর শহরের চেয়ে গ্রামের শিক্ষার্থীরা এগিয়ে

প্রকাশ: ২০১৭-১২-৩০ ২৩:৩৫:৫২ || আপডেট: ২০১৭-১২-৩০ ২৩:৩৫:৫২

বীর কন্ঠ ডেস্ক:

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) পরীক্ষায় চট্টগ্রাম জেলায় এবছর শহরের চেয়ে গ্রামের শিক্ষার্থীরা এগিয়ে রয়েছে। গ্রামাঞ্চলের প্রাথমিক স্কুলগুলোতে শিক্ষার্থীরা স্থায়ী হলেও শহরের স্কুলগুলোতে শিক্ষার্থীরা ক্ষণস্থায়ী হওয়ায় এ তারতম্য দেখা দিয়েছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

 

অন্যদিকে, এবছর পাসের হার কমলেও বেড়েছে জিপিএ-৫ প্রাপ্তির সংখ্যা। গতবছরের চেয়ে শূন্য এক দশমিক ৩৫ শতাংশ কমে এবছর পাসের হার ৯৬ দশমিক ১৭ শতাংশ এবং ৩ হাজার ১৬২ জন বেড়ে এবছর জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৫ হাজার ১১৫ জন।

 

এবছর নগরীসহ চট্টগ্রামের ২০ শিক্ষা থানার মধ্যে ৯৯ দশমিক ৬৪ শতাংশ পেয়ে পাসের হারে এগিয়ে রয়েছে বাঁশখালী থানা এবং ৯০ দশমিক ৮৬ শতাংশ পেয়ে সর্বনিম্নে রয়েছে চান্দগাঁও থানা।

 

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নাসরিন সুলতানা বাংলানিউজকে জানান, এবছর পিইসিতে নগরীসহ চট্টগ্রামের ২০ শিক্ষা থানার ৩ হাজার ৭৯৪টি স্কুলের ১ লাখ ৪৭ হাজার ৯৩৩ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়। এরমধ্যে পাস করেছে ১ লাখ ৪২ হাজার ২৬৪ জন। এ প্লাস (জিপিএ-৫) পেয়েছে ১৫ হাজার ১১৫ জন। এ গ্রেড পেয়েছে ৪২ হাজার ৬০০ জন, এ মাইনাস ২৫ হাজার ৮৬৫ জন, বি গ্রেড ২৪ হাজার ৩১২ জন, সি গ্রেড ২৮ হাজার ৬৪১ জন এবং ডি গ্রেড পেয়েছে ৫ হাজার ৭৩১ জন শিক্ষার্থী।

 

অন্য এক প্রশ্নের জবাবে নাসরিন সুলতানা বলেন, ‘শহরের স্কুলগুলোতে শিক্ষার্থীরা স্থায়ী নয়। ফলে পাসের হার তুলনামূলকভাবে গ্রামের স্কুলগুলো থেকে পিইসি পরীক্ষায় এবারও একটু তারতম্যতা রয়েছে। তবে জিপিএ-৫ প্রাপ্তির দিকে শহর এগিয়ে। আর গ্রামের স্কুলগুলোতে শিক্ষার্থীরা স্থায়ী। শিক্ষকরা প্রাণপণ চেষ্টা করে যাচ্ছেন ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের ভাল ফলাফলের জন্য। অধিদপ্তরের নির্দেশনায় ফলাফল নয় শিক্ষার গুণগতমান বাড়াতে আমরা সচেষ্ট রয়েছি।’

 

জানা যায়, এবছর নগরীসহ চট্টগ্রামের ২০ শিক্ষা থানার মধ্যে বাঁশখালী থানায় পাসের হার ৯৯ দশমিক ৬৪ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭১২ জন। রাউজানে পাসের হার ৯৮ দশমিক ৬২ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫৭৪ জন। সন্দ্বীপে পাসের হার ৯৩ দশমিক ৬১ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৮০ জন। ফটিকছড়িতে পাসের হার ৯৫ দশমিক ২৩ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪৫১ জন। পটিয়ায় পাসের হার ৯৬ দশমিক ৭১ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬৩২ জন।

 

আনোয়ারায় পাসের হার ৯৬ দশমিক ৫৫ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৫৭ জন। বোয়ালখালীতে পাসের হার ৯৪ দশমিক ৪৬ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ২০৪ জন। লোহাগাড়ায় পাসের হার ৯৬ দশমিক ৪৫ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪৪৩ জন। ডবলমুরিং থানায় পাসের হার ৯১ দশমিক ৭৫ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ হাজার ৮৪৩ জন। চন্দনাইশে পাসের হার ৯৮ দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৫২ জন।

 

হাটহাজারীতে পাসের হার ৯৭ দশমিক ১১ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫৫৪ জন। রাঙ্গুনীয়ায় পাসের হার ৯৯ দশমিক ১১ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬৩৭ জন। মিরসরাইয়ে পাসের হার ৯৮ দশমিক ৪৫ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫৬১ জন। সীতাকুণ্ডে পাসের হার ৯৩ দশমিক ২২ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫১৮ জন। পাহাড়তলী থানায় পাসের হার ৯৮ দশমিক ১৬ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭৬০ জন।

 

বন্দর থানায় পাসের হার ৯৩ দশমিক ৫১ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ হাজার ১১৪ জন। পাঁচলাইশ থানায় পাসের হার ৯৭ দশমিক ৮৫ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ হাজার ৭০৯ জন। চান্দগাঁও থানায় পাসের হার ৯০ দশমিক ৮৬ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮৪৯ জন। কোতোয়ালী থানায় পাসের হার ৯৬ দশমিক ৩৬ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ হাজার ৯০ জন এবং সাতকানিয়ায় পাসের হার ৯৬ দশমিক ১৭ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬৭৫ জন।- বাংলানিউজ

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *