চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ৯ আগস্ট ২০২২

Alauddin Lohagara

চকরিয়ায় শিক্ষককের রহস্যজনক মৃত্যু

প্রকাশ: ২০১৮-০২-১০ ২২:২৪:৪৫ || আপডেট: ২০১৮-০২-১০ ২২:২৪:৪৫

চকরিয়া, অফিস  :

কক্সবাজারের চকরিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক শাহজালাল উদ্দিনের (৪৭) রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে।  ১০ফেব্রুয়ারি দুপুর ১২টায় বিদ্যালয়ের একটি কক্ষ থেকে তার মৃতদেহটি উদ্ধার করেছে পুলিশ। শিক্ষকের মৃত্যু নিয়ে স্থানীয় এলাকাবাসি ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে ধু¤্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। তার মৃত্যু রহস্য সুষ্টভাবে তদন্তের জোর দাবি জানান। ওই শিক্ষক বাঁশখালী উপজেলার মধ্যম পুইছড়ি ইউনিয়নের বহনাকাটা গ্রামের মৃত মাওলানা সিরাজ উদ্দিনের প্রথম পুত্র।

চকরিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক জাহেদুল হক জানান, বিদ্যালয়ের একটি ভবনের দ্বিতীয় তলায় শিক্ষক শাহাজালাল একা থাকতেন। শনিবার সকাল ৯টার দিকে তিনি ঘুম থেকে না উঠায় তার মোবাইলে একাধিকবার কল করা হয়। কিন্তু সাড়া শব্দ না পেয়ে খোলা জানালা দিয়ে দেখে তার মৃত্যুর বিষয়টি জানতে পারি। পরে বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক এনামুল হক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, পুলিশ, জনপ্রতিনিধি ও সাংবাদিকদের খবর দেন। তাদের উপস্থিতিতে কলাপসিল গেইটের তালা ভেঙ্গে ওই শিক্ষককে মৃত্যু অবস্থায় উদ্ধার করার কথা তিনি জানান।

বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক এনামুল হক জানান, শাহজালাল উদ্দিন চকরিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ইসলাম শিক্ষা বিষয়ের শিক্ষক। তিনি প্রায় ৯ বছর ধরে শিক্ষকতা করেছেন এ বিদ্যালয়ে। চকরিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রের অধিনে চকরিয়া গ্রামার স্কুলের পরীক্ষা কেন্দ্রের সচিবের দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি আরও বলেন, গতকাল শনিবার গণিত পরীক্ষা ছিলো। শুক্রবার রাত ৮টায় গ্রামার স্কুল কেন্দ্রের সিট প্লান করে রাত ১০টার দিকে তার শয়ন কক্ষে ফিরে আসেন। কেন্দ্রের সচিবের দায়িত্ব পালনে না আসায় তার মৃত্যুর বিষয়টি জানতে পারি।

স্থানীয় এলাকাবাসি ও শিক্ষার্থীরা জানান, শিক্ষক শাহজালাল শান্ত ও ভদ্র ছিলেন। তিনি শ্রেণিকক্ষে কাউকে গালিগালাজ বা বড় করে কথাও বলেননি। তার শয়ন কক্ষটির দরজা-জানালাও খোলা ছিলো। শুধু গেইটে তালা দেওয়া ছিলো। কোনদিন অসুস্থবোধও করেননি। তার মৃত্যু বিষয়টি সহজে কেউ মেনে নিতে পারছে না। তিনি সর্বশেষ শুক্রবার রাত ১২টা ৩৮মিনিটে শেষ বার কল করেছেন। এরপরই রাতের কোন একসময়ে তার মৃত্যু হতে বলে পারে ধারণা করছেন এলাকাবাসি।

চকরিয়া থানার এসআই আবদুল খালেক বলেন, শনিবার সকাল দশটায় শিক্ষক শাহাজালাল ঘুম থেকে না উঠায় মোবাইল করেন শিক্ষকরা। পরে বিদ্যালয়ে এসে দরজা ভেঙ্গে ওই শিক্ষককে মৃত্যু অবস্থায় উদ্ধার করি। সেখানে চকরিয়া সরকারি হাসপাতালের এক চিকিৎসক মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তবে প্রাথমিকভাবে তার মৃত্যু হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছে বলে তিনি জানান।

শিক্ষক শাহজালাল উদ্দিনের ছোট ভাই ফজলুর আকবর বলেন, পরিবারের মধ্যে শাহজালাল সবার বড়। তিনি অবিবাহিত। ২০০১ সালে তিনি শিক্ষকতা পেশায় যোগ দেন। শান্ত এবং ভদ্র ছিলেন। কোন সময় অসুস্থভোধ করেননি। কী কারণে মৃত্যু হয়েছে জানি না। তবে ভাইয়ের মৃত্যু নিয়ে কারও বিরুদ্ধে অভিযোগও নেই।

চকরিয়া থানার ওসি মো. বখতিয়ার উদ্দিন বলেন, পুলিশ মরদেহের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরী করেছেন। তার শরীরে আঘতের কোন চিহ্ন নেই। পরিবারের লোকজনের আপত্তি না থাকায় মরদেহ ছোট ভাই ফজলুল আকবরের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুর উদ্দিন মো: শিবলী নোমান বলেন, শিক্ষক শাহজালাল উদ্দিন মৃত্যুর খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ভাবে চিকিৎসক ও পুলিশ পাঠানো হয়। বিদ্যালয়ের একটি কক্ষ থেকে তাকে মৃত্যু অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। পরে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয় বলে তিনি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *