চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ১১ আগস্ট ২০২২

Alauddin Lohagara

লোহাগাড়ার পুটিবিলা-ফারেঙ্গা সড়ক চলাচলের অযোগ্য! 

প্রকাশ: ২০১৮-০২-১৭ ১৪:০২:১৬ || আপডেট: ২০১৮-০২-১৭ ১৪:১৬:৩৬

নিউজ ডেস্ক : 

চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার পুটিবিলা-ফারেঙ্গা সড়ক বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। পুটিবিলাস্থ ডলু স্টিল ব্রিজের পর থেকে চুনতি, পানত্রিশা ও ফারেঙ্গার প্রায় সাত কিলোমিটার রাস্তা বর্তমানে বালুসমেত চাষ জমির সড়কে পরিণত হয়েছে। বালু ও গাছভর্তি ভারী যানবাহন চলাচল ও দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়ায় এটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। সড়কটি দিয়ে যাতায়াতকারীরা ধুলো-বালির শিকার হচ্ছে।

অভিযোগ রয়েছে, প্রতিদিন সড়কটি দিয়ে বালু-ইট-গাছবাহী বোঝাই ট্রাক চলাচল করে। বালু, ভাটার ইট ও বনের কাঠ নিয়মিত পরিবহন হচ্ছে সড়কটি দিয়ে। ফলে সড়কের চেহারা পাল্টে গিয়ে বালুর চরে পরিণত হয়েছে।

এলাকাবাসী জানান, সড়কটি দিয়ে প্রতিনিয়ত স্থানীয়রাসহ পানত্রিশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ফারেঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ফারাঙ্গা মন্দুলার চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সড়াইয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও বীরবিক্রম জয়নুল আবেদীন উচ্চ বিদ্যালয়ের শত-শত শিক্ষার্থী যাতায়াত করে। এটি ধুলো-বালির সড়কে পরিণত হওয়ায় চলাচলে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসীকে।

শিক্ষকরা জানান, শীতকালে ধুলো-বালিময় এ সড়ক দিয়ে কোনমতে যাতায়াত করা গেলেও বর্ষাকালে এটি বেহাল দশায় পরিণত হয়। ফলে যাতায়াত করা খুবই কঠিন হয়ে পড়ে।

উপজেলা শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) ওমর ফারুক জানান, তিনি ধুলো-বালুময় এই রাস্তা দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে ফারাঙ্গা মন্দুলার চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন করতে যেতে হয়েছে। এটি কাঁচা আর বালুর চরে পরিণত হয়েছে।

এলাকার ইউপি সদস্য জানে আলম জানান, প্রতিনিয়ত বালি আর কাঠ ভর্তি বোঝাই যানবাহন চলাচলের কারণে উক্ত সড়কের চুনতি, পানত্রিশা ও ফারেঙ্গা অংশ ধুলো-বালিতে পরিণত হয়ে ভাঙাচোরা সড়কে পরিণত হয়েছে।

চুনতির সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী জানান, সড়কটি দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়া ও সড়কে কাঠ-বালি বোঝাই ভারী যানবাহন চলাচলের কারণে এটির এমন বেহাল অবস্থা পরিণত হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মাহবুব আলম জানান, ট্রাক-মিনি ট্রাকে অতিরিক্ত বালু-ইট-গাছ বোঝাই করে পরিবহনের কারণে এলাকার গ্রামীণ সড়কগুলো নষ্ট হচ্ছে। তিনি গ্রামীণ সড়কে অতিরিক্ত বোঝাই যানবাহনসহ এলাকার ডলু ব্রিজের নিচ ও আশপাশের এলাকাসহ বিভিন্ন স্থান থেকে অবৈধভাবে বালি উত্তোলনের কারণে ইতিমধ্যে বেশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিয়েছেন। জনসাধারণসহ শিক্ষার্থীদের যাতায়াতে জরুরি বিধায় এটি দ্রুত সংস্কার প্রয়োজন বলে তিনি জানান।-ইত্তেফাক

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *