চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯

Alauddin Lohagara

কবি জোবাইদা আব্বাস ঝিনুক’র একটি কবিতা

প্রকাশ: ২০১৮-০৩-২৬ ১৫:৪৮:৩৫ || আপডেট: ২০১৮-০৩-২৬ ১৫:৪৮:৩৫

 

কবি জোবাইদা আব্বাস ঝিনুক’র একটি কবিতা

 

একটা চোখ

 

আমি পতাকায় রেখেছিলাম,

বাংলাদেশের পতাকায়,

সেই চোখ আমার মায়ের চোখ।

একটা চোখ আমি মানচিত্রে রেখেছিলাম,

সেই চোখ বঙ্গবন্ধুর চোখ।

সেই থেকে চোখ জোড়া

কখনো তারামন বিবি, কখনো

ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিনী,

কখনো শামসুর রাহমান

কখনো হুমায়ূন আজাদ

কখনো জাফর ইকবাল

কখনো আমার প্রিয় বন্ধু

কখনো মহাদেব সাহার চেহারায় আমি দেখে ফেলি।

সেই চোখজোড়া এখনো পতাকার শব্দের মতো পতপত শব্দ করে।

সেই চোখজোড়া এখনো স্বপ্ন দেখে।

চোখ জোড়া কখনো বিদ্যালয়ের মাঠে, বিশ্ববিদ্যালয়ের আঙ্গিনায়,

এতিমখানায়, বৃদ্ধাশ্রমের বেডরুমে,সংসদভবনের আনাচেকানাচে  ঘুরে বেড়ায়,

আর স্বপ্ন ভঙ্গের যন্ত্রণায়  কেবল  জল মুছে।

চোখের পাতায়, চোখের কোণায় দগদগে ঘা,

কপোলে চুমুর দাগের মতো

লোনাজলের ছাপ।

 

তুমিও আমার চোখজোড়া কিছুদিনের জন্য ধার

নিয়েছিলে,

এতোটা মুগ্ধ হয়েছিলে, আমাকে ছাড়া আর অন্য কিছু দেখতে পাচ্ছিলে না।

তারপর?  তারপর আমার চোখ, আমার মুগ্ধ হওয়া চোখ আমাকে ফিরিয়ে দিলে।

কি আর হবে, স্বপ্ন ভঙ্গ হলো, আবার সেই লোনাজল, আবার সেই চোখের কোনায় ঘা।

আবার সেই না পাওয়ার ক্ষত,

কঙ্কালের চোখেও জল।

যেসব চোখ

স্বাধীনতার স্বপ্ন দেখতে দেখতে

এখনো পতাকা দেখে,

এখনো মানচিত্রে হাঁটে,

এখনো কীর্তনখোলা কিংবা মাতামুহুরির জলে

আলোক বিচ্ছুরণ দেখে

 

এখন পতাকা উড়ে।

পতপত শব্দ আর শুনি না। পতাকা ভিজে থাকে

লোনা জলে

চোখের জলে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *