চট্টগ্রাম, , বুধবার, ২৭ মে ২০২০

admin

অবশেষে লোহাগাড়ায় কলেজের পাশ থেকে দূর্গন্ধযুক্ত ময়লার স্তুপ পরিস্কার করলো কলেজ কর্তৃপক্ষ

প্রকাশ: ২০১৮-০৫-১৩ ০২:৩৩:৫৩ || আপডেট: ২০১৮-০৫-১৩ ০২:৩৩:৫৩

লোহাগাড়া অফিস : লোহাগাড়ায় আলহাজ্ব মোস্তাফিজুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের পাশ থেকে দুর্গন্ধযুক্ত ময়লার স্তুপ পরিষ্কার করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। গত ১২মে শনিবার দুপুর বেলায় “আসুন, আমাদের এলাকা আমরা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করি“, এই স্লোগানকে সামনে রেখে কলেজের ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষকবৃন্দের উপস্থিতিতে ময়লা পরিষ্কার কাজের উদ্ধোধন করেন মোস্তফা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান ও কলেজ গভর্নিংবডির সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ শফিক উদ্দীন। দীর্ঘদিন ধরে বটতলী শহরের ময়লা-আবর্জনা, শহর উন্নয়ন কমিটি কলেজের পাশেই ফেলে আসছিল। এতে কলেজের কোমলমতি শিক্ষার্থী ও পথচারীদের পঁচা দুর্গন্ধের কারণে চলতে কষ্টকর হত। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন মিডিয়ায় সংবাদ প্রচার করলেও কেউ কর্ণপাত করেনি। অবশেষে কলেজ কর্তৃপক্ষ তাদের নিজ উদ্যোগে পচা দূর্গন্ধযুক্ত ময়লাগুলো পরিস্কার করার উদ্যোগ নিয়েছে। এ বিষয়ে আলহাজ্ব শফিক উদ্দিন বলেন, আমরা সবসময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকতে পছন্দ করি। কলেজের সামনে এ ধরণের ময়লা থাকায় কলেজের পরিবেশের ভারসাম্য দিন দিন নষ্ট হচ্ছে। পথচারীসহ শিক্ষার্থীদের চলতে দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। তাই আমি নিজ উদ্যোগে কলেজে কর্মরত শিক্ষক-শিক্ষিকা, ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে ময়লার স্তুপ থেকে ময়লা সরিয়ে আমার মালিকানা জায়গায় স্থানান্তর করি এবং ময়লাগুলো পুড়িয়ে ও কীটনাশক স্প্রে দিয়ে জীবাণু ধ্বংস করি। এরপর থেকে শহরের ময়লাগুলো কলেজের সামনে না ফেলে নির্দিষ্ট জায়গায় ফেলার জন্য কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টিও কামনা করেন। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, কলেজের অধ্যক্ষ এ.কে.এম ফজলুল হক, উপাধ্যক্ষ এহেছামুল হক, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন অভিযান কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক মোহাম্মাদ ইলিয়াছসহ স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীগণ। এ ব্যাপারে শহর উন্নয়ন কমিটির আহ্বায়ক ও লোহাগাড়া সদর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুরুচ্ছফা চৌধুরী বলেন, শহরের ময়লাগুলো ফেলার নির্দিষ্ট কোন স্থান না থাকায় ওখানে ফেলা হচ্ছে, যদিও সে স্থানে ময়লা ফেলাটা দুঃখজনক। তিনি আরো বলেন, আমি বিভিন্ন উন্নয়ন ও আইন শৃঙ্খলা মিটিং-এ বিষয়ে উপজেলা প্রশাসনের দৃষ্টি কামনা করে বেশ কয়েকবার ময়লাগুলো ফেলানোর জন্য নির্দিষ্ট একটা স্থানের ব্যবস্থা করে দিতে বললেও উপজেলা প্রশাসন আমাকে ব্যবস্থা করে দিতে ব্যর্থ হয়। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাহবুব আলমের সাথে যোগাযোগের চেষ্ঠায় ব্যর্থ হওয়ায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *