চট্টগ্রাম, , রোববার, ২৩ জানুয়ারী ২০২২

admin

ঢাকা-চট্টগ্রাম সড়কে ৬ ঘণ্টা পর যান চলাচল শুরু

প্রকাশ: ২০১৮-০৮-০১ ১৭:২০:১৫ || আপডেট: ২০১৮-০৮-০১ ১৭:২০:১৫

বীর কন্ঠ ডেস্ক  :

শিক্ষার্থীদের যানবাহন ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের প্রতিবাদে নারায়ণগঞ্জ পরিবহন মালিক-শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করে রাখার ছয় ঘণ্টা পর প্রত্যাহার করেছে। বুধবার সকাল সাড়ে ৮টা থেকে সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকায় ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ মহাসড়ক অবরোধ করে পরিবহন শ্রমিকরা। এতে ওই সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে বেলা আড়াইটার দিকে তারা গাড়ি চালাতে শুরু করে।

নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় বাস-মিনিবাস সমিতির সভাপতি মোক্তার হোসেন জানান, বুধবার সকালে যাত্রাবাড়ীর ধনিয়া কলেজের শিক্ষার্থীরা যখন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে বিক্ষোভ শুরু করে, তখন কিছু সংখ্যক অতি উৎসাহী শ্রমিক নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের সাইনবোর্ড এলাকায় যানবাহন এলোপাতাড়ি রেখে অবরোধ সৃষ্টি করে। এটা কেন্দ্রীয় কোনো কর্মসূচি না।

স্থানীয়রা বলছেন, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে গাড়ি ভাংচুরের প্রতিবাদে সিদ্ধিরগঞ্জ-মৌচাক এলাকার পরিবহন শ্রমিকরা সকাল থেকে অবরোধ করে আছে। তারা স্কুলব্যাগ ও ইউনিফর্ম পরা ছেলেদের দেখলে হয়রানি করছে। সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ওই এলাকায় একদল পরিবহন শ্রমিক কয়েকজন কিশোরের ওপর চড়াও হয়ে মারধর করে। এসময় কয়েকজন যাত্রী প্রতিবাদ করলে পরিবহন শ্রমিকরা যাত্রীদের বেড়ধরক মারধর করে। এতে কমপক্ষে পাঁচ যাত্রী আহত হন।

নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মনিরুল ইসলাম বলেন, পরিবহন শ্রমিকরা তাদের জান-মালের নিরাপত্তার দাবিতে অবরোধ করেন। তারা নিশ্চয়তা চান। পরে কোনো আলোচনা-সমঝোতা ছাড়াই শ্রমিকরা গাড়ি চালাতে শুরু করেন।

সড়ক অবরোধের কারণে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সাইনবোর্ড থেকে মদনপুর পর্যন্ত এবং ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সাইনবোর্ড থেকে রূপগঞ্জের রুপসী পর্যন্ত যানজট ছড়িয়ে পড়ে। এতে করে রাস্তায় বের হয়ে আসা যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *