চট্টগ্রাম, , বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২

admin

পটিয়া পুরাতন থানা হাটে পাঁঠা ছাগলের জমজমাট বাজার : ক্রেতার উপচে ভীড়

প্রকাশ: ২০১৮-০৮-০৭ ০০:১১:১২ || আপডেট: ২০১৮-০৮-০৭ ০০:১১:১২

আবদুল হাকিম রানা, বীর কন্ঠ :

পটিয়ায় সনাতনী সম্প্রদায়ের আসন্ন মনসা পূজাকে ঘিরে শত বছরের ঐতিহ্যবাহী পুরাতন থানা হাটে প্রতি বছরের ন্যায় এবছরও জমজমাট পাঁঠা ছাগলের বাজার বসেছে। চট্টগ্রামের সবচেয়ে বড় এ পাঁঠার বাজারটি পটিয়ার বাস স্টেশন সংলগ্ন এলাকায় হওয়ায় সহজ যোগাযোগ এর সুযোগ থাকায় শুধু পটিয়া নয়, চট্টগ্রাম সহ দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে ক্রেতা-বিক্রেতারা গতকাল থেকে এ হাটে বিকিকিনিতে সামিল হয়েছে। ইজারাদার ও পটিয়া পৌর কর্তৃপক্ষ জানান, এ হাটটি আগামী ১৭ আগস্ট মনসা পূজা পর্যন্ত একটানা চলবে। বর্তমানে এ হাটে এক একটি পাঁঠা ২ থেকে ৩ লাখ টাকা পর্যন্ত দাম হাকাচ্ছে বিক্রেতারা।

মনসা পূজার বাকি আছে আর মাত্র ১১ দিন। বিক্রেতারা আশা করছেন পূজা পর্যন্ত এ হাটে কয়েক কোটি টাকার পাঁঠা বিক্রয় হবে। সেই লক্ষ্যকে সামনে রেখে তারা ইতিমধ্যে পর্যাপ্ত সংখ্যক পাঁঠা ছাগল মজুদ রেখেছেন। এতে চট্টগ্রাম নয়, পাবনা, রাজশাহী সহ বিভিন্ন এলাকা থেকে বড় মাপের অসংখ্য পাঁঠার সমাবেশ ঘটানো হয়েছে। তারা বলেন, বড় পাঁঠা ক্রয়-বিক্রয়ের জন্য পটিয়ার পুরাতন থানা হাটেই শত বছর ধরেই বিখ্যাত। এবারও দেশের সেরা পাঁঠা বিক্রেতারা পাঁঠা নিয়ে হাজির হয়েছেন। গতকাল দিনভর পটিয়ায় প্রবল বর্ষণও বাঁধ সাধতে পারেনি পাঁঠা ক্রয়-বিক্রয়ে। এ বিষয়কে কেন্দ্র করে গতকাল পটিয়ায় উৎসব মুখর পরিবেশ বিরাজ করে বলে সূত্রে প্রকাশ।

পটিয়া পুরাতন থানা হাটের ক্রেতা স্বপন দাশ জানান, এ হাট থেকে শুধু পটিয়া বা দক্ষিণ চট্টগ্রাম নয়, দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল যেমন- পাবনা, কুষ্ঠিয়া, রংপুর, রাজশাহী, দিনাজপুর, ভৈরব, সিলেট, যশোর ও সন্ধীপ থেকে ক্রেতা-বিক্রেতারা এসে তাদের পছন্দের পাঁঠা বিকিকিনি করে থাকে। গতকাল সোমবার তিনি সহ তার পরিবারের লোকজন এ হাটে এসে অনেক পাঁঠা দেখেছেন। কিন্তু দাম একটু বেশী হওয়ায় তিনি পাঁঠা ক্রয় না করলেও পরবর্তীতে ক্রয় করবেন বলে জানান। বলতে গেলে গতকাল ছিল দেখা-দেখির হাট। এর মাঝেও ছোট বড় অনেক পাঁঠা বিক্রয় হয়েছে বলে স্থানীয়রা জানান। পটিয়া নতুন থানা হাটে গতকাল চক্রশালা গ্রামের খোকন মাঝি ৫টি পাঁঠা আনেন বলে জানান। তার পাঁঠা গুলোর মধ্যে তিনি একটি পাঁঠার দাম হাকান দুই লাখ টাকা। আর একটি দেড় লাখ টাকা। ক্রেতারা ১ লাখ ২০ পর্যন্ত তার পাঁঠা ক্রয় করতে চাইলেও তিনি তাতে রাজি না হওয়ায় গতকাল তার বড় পাঁঠাগুলো অবিক্রিতই ছিল। তিনি বলেন আরো ১১ দিন হাট আছে। পরবর্তীতে তিনি আরো বেশী দামে এ পাঁঠা বিক্রয় করবেন বলে আশা করছেন। ইজারাদার আবদুল মান্নান জানান, পটিয়ার পুরাতন থানার হাট নানা কারণে সহজ যোগাযোগের ফলে বিকিকিনির কেন্দ্র। তাদের দাবি চট্টগ্রাম ছাড়াও দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে পাঁঠা ক্রেতা-বিক্রেতারা সড়ক, রেল ও নৌ যোগাযোগসহ সার্বিক অনূকুল পরিবেশ বিদ্যমান থাকায় এখানে তাদের পছন্দের পাঁঠা ক্রয়ে ভীড় করে। বর্তমানে আইনশৃঙ্খলার অনুকূল পরিবেশ থাকায় তারা আশা করছেন এবারও পুরাতন থানা হাটে জমজমাট পাঁঠা ক্রয়-বিক্রয় হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *