চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২

admin

পটিয়ায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষের সাথে সনাকের মতবিনিময় সভা

প্রকাশ: ২০১৮-০৮-১৭ ০০:০৬:০৭ || আপডেট: ২০১৮-০৮-১৭ ০০:০৬:০৭

আবদুল হাকিম রানা, বীর কন্ঠ : 

পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ হাসপাতালের ইপিআই কেন্দ্রে রোগীদের কাছ থেকে অনৈতিকভাবে অর্থ আদায় বন্ধ করা, হাসপাতালের অভ্যন্তরে পরিচ্ছন্নতার উন্নতি করা এবং সময়মতো ডাক্তারদের উপস্থিতি নিশ্চিত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। এছাড়াও হাসপাতালের বিদ্যমান সমস্যা দূর করে সেবার মান আরো বৃদ্ধি করা হবে বলে জানিয়েছেন। ১৬ আগষ্ট সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক)-টিআইবি পটিয়ার সাথে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তৃপক্ষের এক মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবু ইউসুফ মো: ওয়াহিদ উল্লাহ উপরোক্ত প্রতিশ্রুতি প্রদান করেন। টিআইবি’র এরিয়া ম্যানেজার মোঃ জসিম উদ্দিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. জাকিয়া আফরোজ, ডা. সুপ্রিয়া দাশ, ডা. মাশরুফা তাহের, সনাকের স্বাস্থ্য বিষয়ক উপ-কমিটির আহবায়ক ডা. হাসান শহীদুল আলম, সনাক সদস্য আবদুর রাজ্জাক ও শীলা দাশ, ইয়েস ফ্রেন্ডস দলের দলনেতা প্রান্ত নাথ এবং হাসপাতালের বিভিন্ন ইউনিটের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাগণ।

সভায় সনাকের ইয়েস দল কর্তৃক হাসপাতালে পরিচালিত ভ্রাম্যমান তথ্য ও পরামর্শ ডেস্কে রোগীদের অভিযোগ এবং সনাক কর্তৃক বিভিন্ন সময় পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে প্রাপ্ত দৃশ্যমান সমস্যা ও রোগীদের কাছ থেকে প্রাপ্ত সেবা সম্পর্কীত অভিযোগ ও পরামর্শ তুলে ধরেন ডা. হাসান শহীদুল আলম। ইপিআই কেন্দ্রে টিকাদানের বিপরীতে রোগীদের কাছ থেকে অনৈতিকভাবে টাকা নেয়ার বিষয়টি সভায় তুলে ধরা হলে ভারপ্রাপ্ত উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবু ইউসুফ মো: ওয়াহিদ উল্লাহ তৎক্ষনাৎ সংশ্লিষ্ট স্টাফকে ডেকে নিয়ে এসে এধরণের অনৈতিক কাজ থেকে বিরত থাকার জন্য সতর্ক করে দেন। এছাড়াও রাতের বেলা একজন রোগীকে অবহেলা করার বিষয়টি সাংবাদিক আবদুর রাজ্জাক তুলে ধরলে সংশ্লি ষ্ট ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে প্রতিশ্রুতি দেন।

সভায় হাসপাতালের দালাল নিয়ন্ত্রণের জন্য কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করা হলে কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে প্রশাসনকে পত্র দিয়ে মোবাইল কোর্ট পরিচালনার অনুরোধ করা হয়েছে বলে জানান।  এছাড়াও যেসব বিষয় নিয়ে আলোচনা হয় তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, সময়মতো ডাক্তারদের উপস্থিতি নিশ্চিত করা, অফিস সময়ে ওষুদ কোম্পানীর প্রতিনিধিদের(এমআর) ডাক্তারের চেম্বারে প্রবেশ বন্ধ করা, ডাক্তার ও নার্সদের ডিউটি রোস্টার মেনে চলা, প্রতিদিনের ঔষধের তালিকা হালনাগাদ করা, দীর্ঘদিন যাবৎ অচল এক্সরে মেশিন সচল করা, নিয়মিত পরিস্কার বেডসীট প্রদান করা এবং টয়লেট ও ওয়ার্ড পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা ইত্যাদি। কর্তৃপক্ষ উপস্থাপিত সমস্যা গুলোর সাথে একমত পোষন করেন এবং বিদ্যমান সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ গ্রহনের আশ্বাস দেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবু ইউসুফ মো: ওয়াহিদ উল্লাহ সভায় জানান, আমাদের কিছু সীমাবদ্ধতা ও ক্রটি আছে, সনাকের উদ্যোগের ফলে আমরা সেসব ক্রটিগুলো জানতে পারছি। এসব ক্রটি দূরিকরণে সনাকের সহায়তা কামনা করা হয়। তিনি আরো বলেন, বিভিন্ন কারণে ডাক্তার ও স্টাফদের স্বল্পতা রয়েই গেছে। দীর্ঘদিন যাবৎ এক্স-রে মেসিন নষ্ট হয়ে পড়ে আছে, এর মধ্যেও আমাদের সর্বোচ্চ শ্রম দিয়ে চেষ্টা করি রোগীদের ভালো সেবা প্রদানের জন্য। সনাক স্বাস্থ্য বিষয়ক উপ-কমিটির আহবায়ক ডা. হাসান শহিদুল আলম বলেন, আমাদের মূল উদ্দেশ্য হলো প্রাপ্ত সমস্যাগুলো কর্তৃপক্ষের সামনে তুলে ধরা, আর কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব হচ্ছে সেসব সমস্যাগুলো সমাধানের জন্য কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা। অদ্যকার সভায় যেসব সমস্যার কথা উঠে এসেছে আশা করছি কর্তৃপক্ষ এসব সমস্যা সমাধানে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন।

এর আগে সনাকের প্রতিনিধি দল পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সার্বিক কার্যক্রম সরেজমিনে পর্যবেক্ষণ করেন এবং ডাক্তার, নার্স, কর্মকর্তা ও সেবা গ্রহীতাদের সাথে কথা বলেন। এ সময় সেবা গ্রহীতারা সেবা সম্পর্কে তাদের সুবিধা-অসুবিধার কথা সনাক প্রতিনিধি দলের কাছে তুলে ধরেন। সনাক নেতৃবৃন্দ সেবাগ্রহীদের প্রাপ্ত অভিযোগ ও চিহ্নিত সমস্যা দূরীকরনে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের কাছে তুলে ধরবেন বলে রোগীদের আশ্বস্থ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *