চট্টগ্রাম, , রোববার, ২৩ জানুয়ারী ২০২২

admin

সরকারকে আন্দোলনের কঠোর হুঁশিয়ারি দিলেন দুদু

প্রকাশ: ২০১৮-০৮-১৯ ০০:০৪:২৫ || আপডেট: ২০১৮-০৮-১৯ ০০:০৪:২৫

ডেস্ক রিপোর্ট:

সরকারকে কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়ে বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান ও কৃষকদলের সাধারন সম্পাদক শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, ১ সেপ্টেম্বর থেকেই বাংলাদেশের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার লড়াই শুরু হবে। এবং সেই লড়াই শেষ হবে বিএনপি ও ২০ দল রাষ্ট্র ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হওয়ার পরে।

শনিবার(১৮ আগস্ট)দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী কৃষকদল আয়োজিত’বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নি:শর্ত মুক্তি ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে এক মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মানববন্ধনে শামসুজ্জামান দুদু বলেন, এখন আগস্ট মাস চলছে।এই আগস্ট মাসে দাঁড়িয়ে বলছি। আগামী মাস সেপ্টেম্বর মাস, বিএনপির প্রতিষ্ঠার মাস, বিএনপি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য, বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে ও জনগনের অধিকার রক্ষা করার জন্য। সেই সেপ্টেম্বর মাস সামনে। ১ সেপ্টেম্বর থেকেই বাংলাদেশের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার লড়াই শুরু হবে। এবং সেই লড়াই শেষ হবে বিএনপি ও ২০ দল রাষ্ট্র ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হওয়ার পরে।

অনতি বিলম্বে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগার থেকে মুক্তি দেয়ার পরামর্শ দিয়ে দেন দুদু। তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগার থেকে দ্রুত ছাড়েন অন্যথায় পাকিস্তানের সময় আপনার বাবা শেখ মুজিবকে যেভাবে কারাগার থেকে বের করা হয়েছিল আমরাও সেই অবস্থা সৃষ্টি করবো। সেই আন্দোলন আমরা মনে রেখেছি প্রয়োজন হলে বাংলাদেশ পুনরায় সে রকম আন্দোলন করা হবে এবং সে আন্দোলনেরর মধ্য দিয়ে আপনাকে ক্ষমতাচ্যুত করা হবে।
অবৈধ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার দলের সাধারন সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে দিয়ে একেক সময় একেক কথা বলাচ্ছেন দাবি করে বিএনপির এই শীর্ষ নেতা বলেন, আপনি(প্রধানমন্ত্রী) আপনার দলের সাধারণ সম্পাদককে দিয়ে সকালে এক কথা দুপুরে এক কথা বিকেলে আরেক কথা বলতে বলছেন, আপনি বলেছেন ১/১১ আপনার আন্দোলনের ফসল আপনার দলের সাধারন সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলছেন তিনি নাকি আবারও ১/১১ ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছেন।

এসময় তিনি ওবায়দুল কাদেরের উদ্দেশ্যে বলেন,’ওবায়দুল কাদের সাহেব আপনার নাক তো খুব পরিস্কার আপনি গন্ধ শুকতে থাকেন। আপনি(কাদের) কি গন্ধ পাচ্ছেন না অল্প কিছুদিনের মধ্যে বেগম খালেদা জিয়া কারাগার থেকে মুক্তি পাবেন, তিনি বাংলাদেশের শাসনব্যবস্থায় নির্বাচনের মধ্য দিয়ে ক্ষমতায় এসে দেশের দায়িত্ব নেবেন এবং তারেক রহমান দেশে ফিরে আসবেন এসব আলামত দেখতে পাচ্ছেন না?

কাদেরের উদ্দেশ্যে ছাত্রদলের সাবেক এই সভাপতি আরও বলেন, আপনি সরকারী দলের এমন একজন সাধারন সম্পাদক আপনার এলাকার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী সাবেক প্রধানমন্ত্রী ব্যারিস্টার মওদুদকে ঘর থেকে বের হতে দিচ্ছেন না, দুদিন ধরে পুলিশ দিয়ে তার বাড়ির চারপাশে ঘিরে রেখেছেন বাহ ওবায়দুল কাদের। আগস্ট মাসেই আপনি যেসব দৃষ্টান্ত দেখাচ্ছেন আপনার সভানেত্রীর নির্দেশে?

বিএনপির এই নেতা বলেন,’আমরা বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই তারেক রহমানের নামে মিথ্যা মামলা ও সাঁজা প্রত্যাহার সহ- সকল রাজবন্দির মুক্তি চাই। বেগম খালেদা জিয়া তিন বারের প্রধানমন্ত্রী এবং স্বৈরাচার এরশাদ বিরোধী আন্দোলনের একমাত্র নেত্রী যিনি নির্বাচন করেছেন প্রতিটি নির্বাচনে জয়লাভ করেছেন কেউ কখনও তাকে পরাজিত করতে পারেনি।তারেক রহমান রণাঙ্গনের বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বাধীনতার ঘোষক বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নির্বাচিত রাষ্ট্রপতির সন্তান তার মা তিনবারের প্রধানমন্ত্রী। তিনি নিজে বর্তমানে বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় রাজনৈতিক দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান। প্রধানমন্ত্রী আপনাকে জিজ্ঞাসা করি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের প্রতি এত আক্রোশ কেন আপনার, এত ভয় কেন? বেগম খালেদা জিয়ার নামে মিথ্যা মামলা করেছেন গত ১০ বছরে রাষ্ট্রীয় প্রচার মাধ্যমে এমন কোন মিথ্যাচার নাই যা তাদের প্রতি করছেন না।’
‘আপনি শেখ মুজিবের কন্যা আপনি তো অহংকার করেন শেখ মুজিবরের সন্তান আওয়ামী লীগের সভানেত্রী জনপ্রিয় তাহলে পদত্যাগ করেন আপনি বিরোধী দলীয় নেত্রী হন আমরাও বিরোধী দলে থেকে একসাথে নির্বাচন করি। আপনি যদি জয় লাভ করেন আমরা মেনে নিব আর আমরা যদি জয়লাভ করি আপনি মেনে নিবেন। কিন্তু আপনি তো সেখানে নাই?
আয়োজক সংগঠনের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মোয়াজ্জেম হোসেনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান,
কৃষক দলের সহ-সভাপতি নাজিম উদ্দীন মাষ্টার,যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক জামাল উদ্দীন খান মিলন,কৃষকদলের কেন্দ্রীয় নেতা মাইনুল ইসলাম,নাসির হাজারী,
ছাত্রদলের দপ্তর সম্পাদক আব্দুস ছাত্তার পাটোয়ারি প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *