চট্টগ্রাম, , সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২

না ফেরার দেশে  বীরাঙ্গনা রমা চৌধুরী

প্রকাশ: ২০১৮-০৯-০৩ ১১:০৪:১৯ || আপডেট: ২০১৮-০৯-০৩ ১১:০৪:১৯

বীর কন্ঠ ডেস্ক:

দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকার পর চিরবিদায় নিলেন ‘একাত্তরের জননী’ খ্যাত বীরাঙ্গনা রমা চৌধুরী। সোমবার (৩ সেপ্টেম্বর) ভোর ৪টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে লাইফসাপোর্টে নেয়ার পর তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রমা চৌধুরীর দীর্ঘদিনের সহচর ও তার বইয়ের প্রকাশক আলাউদ্দীন খোকন।

তিনি বলেন, রোববার (২ সেপ্টেম্বর) রাত পৌনে ১১টার দিকে রমা চৌধুরীকে লাইফ সাপোর্ট দেয়া হয়। সোমবার ভোর ৪টার দিকে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা গেছেন।

চট্টগ্রামের সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সচিব আহমেদ ইকবাল হায়দার জানান, রমা চৌধুরীর মরদেহ বেলা ১১টার দিকে চট্টগ্রামের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নেওয়া হবে সবার শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য। পরে বোয়ালখালীতে গ্রামের বাড়িতে নিয়ে তাকে সমাহিত করা হবে।

১৯৩৬ সালের ১৪ অক্টোবর চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন রমা চৌধুরী। প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা সাহিত্যে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নেন। চার ছেলে সাগর, টগর, জহর এবং দীপংকরকে নিয়ে ছিল তার সংসার।

কিন্তু একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর হাতে দুই ছেলেকে হারানোর পাশাপাশি নিজের সম্ভ্রমও হারান রমা চৌধুরী। পুড়িয়ে দেওয়া হয় তার ঘর-বাড়ি। তবু জীবনযুদ্ধে হার মানেননি এ বীরাঙ্গনা। শুরু করেন নতুনভাবে পথচলা। লিখে ফেলেন ‘একাত্তরের জননী’, ‘এক হাজার এক দিন যাপনের পদ্য’ এবং ‘ভাব বৈচিত্র্যে রবীন্দ্রনাথ’ সহ ১৮টি বই। এসব বই বিক্রি করেই চলতো তার সংসার।

কোমরের আঘাত, গলব্লাডার স্টোন, ডায়াবেটিস, অ্যাজমাসহ নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে চলতি বছরের ১৫ জানুয়ারি রমা চৌধুরী ভর্তি হন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। এরপর থেকে সেখানেই চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি।

এদিকে রমা চৌধুরীর মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে চট্টগ্রামে। তার জন্য শোক প্রকাশ করেছেন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *