চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২

নীরব জসীম ডেস্ক কন্ট্রিবিউটর

৫% ইনক্রিমেন্ট, বৈশাখী ভাতার দাবীতে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব চত্বরে স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ এর মানববন্ধন

প্রকাশ: ২০১৮-০৯-০৫ ২০:০৬:৪০ || আপডেট: ২০১৮-০৯-০৫ ২০:০৬:৪০

মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী বেসরকারি স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার শিক্ষকদের পেশাজীবি সংগঠন স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ (স্বাশিপ) এর কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে ৫% ইনক্রিমেন্ট, বৈশাখী ভাতার দাবী এবং স্বাশিপ’র কেন্দ্রীয় মহাসচিবের প্রাণনাশের হুমকির প্রতিবাদে দাবিতে স্বাশিপ চট্টগ্রাম মহানগর, উত্তর-দক্ষিণের যৌথ উদ্যোগে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে এক বিশাল মানব বন্ধন ৫ সেপ্টেম্বর ১৮ইং বুধবার বিকেল তিনটায় চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব চত্বরে অনুষ্ঠিত হয়।
মানববন্ধন কর্মসূচিতে স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ (স্বাশিপ)’র কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও চট্টগ্রাম মহানগরীর সভাপতি অধ্যাপক ড. আবুল আলা মুহাম্মদ হোছামুদ্দিন বলেন, জাতীয় শিক্ষা কার্যক্রমে এমপিওভূক্ত বেসরকারি শিক্ষকদের অবদান ৯০% হওয়া সত্ত্বেও তাঁরা বরাবরই অবহেলা, বৈষম্য ও বঞ্চনার শিকার। অথচ একই শিক্ষা কার্যক্রমে অন্তর্ভূক্ত মাত্র ১০% সরকারি স্কুল-কলেজের শিক্ষকরা সরকারি সকল সুযোগ-সুবিধা লাভ করছে। ৫% ইনক্রিমেন্ট, বৈশাখী ভাতাসহ সরকারী চাকুরীজীবিদের পাশাপাশি সরকারি স্কুল,কলেজের শিক্ষক কর্মচারীরা পেলেও ৫ লক্ষাধিক বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীরা এসব সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত রাখা কোন সভ্য দেশে কল্পনা করা যায়না।শিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রণীত কিছু নীতিমালা সংশোধনের দাবী জানিয়ে স্বাশিপ চট্টগ্রাম মহানগরী সভাপতি বলেন,সহকারী অধ্যাপক হওয়ার জন্য ৭.২ অনুপাত প্রথার কারনে উচ্চ মাধ্যমিক ও ডিগ্রী পর্যায়ে শিক্ষকদের মান বাড়ছেনা। প্রায় শিক্ষক প্রভাষক হিসেবে অবসর নিতে বাধ্য হন।বর্তমানে কলেজে অনার্স-মাস্টার্স চালু হলেও গবেষনাধর্মী প্রবন্ধ,এমফিল-পিএইচডি ডিগ্রীসহ অন্যান্য অভিজ্ঞতাকে পদোন্নতি বিবেচনায় আনা হয়নি। অন্যদিকে অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ পদের জন্য সহকারী অধ্যাপকের শর্ত আরোপ করায় উক্ত পদ দ্বয়ে প্রতিযোগিতা সীমিত হয়ে পড়বে। কারণ প্রভাষকদের মধ্যেও উচ্চ ডিগ্রী ও যোগ্যতা বেশী থাকতে পারে। তিনি অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে গোটা শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করন করার কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন। এছাড়াও তিনি স্বাশিপ’র কেন্দ্রীয় মহাসচিব অধ্যক্ষ শাহজাহান আলম সাজুর প্রাণনাশের হুমকি প্রদানকারীদের অবিলম্বে গ্রেফতার পূর্বক আইনের আওতায় আনার জোর দাবী জানান।
স্বাশিপ চট্টগ্রাম মহানগরের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ চৌধুরী ও অধ্যাপিকা জেসমিন আক্তার শিমুলের যৌথ সঞ্চালনায় মানব বন্ধন কর্মসূচিতে অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন, স্বাশিপের চট্টগ্রাম মহানগরীর সহ-সভাপতি উপাধ্যক্ষ রেজাউল করিম ছিদ্দিকী, সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক আবু নঈম মোহাম্মদ ইব্রাহিম চৌধুরী, উপাধ্যক্ষ কুতুব উদ্দিন, সুপার মাওলানা এরফানুল করিম, কেন্দ্রীয় সদস্য অধ্যাপক জামাল সাত্তার, অধ্যক্ষ মাওলানা মহিউল হক, অধ্যাপিকা সোহানা শারমীন তালুকদার, অধ্যাপক মীর মোহাম্মদ শোয়াইব, অধ্যাপক মোঃ নাছির উদ্দিন, অধ্যক্ষ হামেদ হাসান, অধ্যক্ষ আব্দুল মোমিন, অধ্যক্ষ মোহাম্মদ ইলিয়াছ, উপাধ্যক্ষ মাওলানা হেলাল উদ্দিন, অধ্যাপক জসিম উদ্দিন, কিজী মাওলানা মোজাহেরুল কাদের, মাওলানা রমজান আলী রেজভী, প্রধান শিক্ষক মায়মুনুর রশিদ, এম এ সবুর, মোহাম্মদ নাছিরুদ্দিন, বিষ্ণু যশা চক্রবর্তী, আযম খাননুরুল আবছার, জয়নাল আবেদীন, নুরুল ইসলাম শরীফ, ছাদুর রশিদ প্রমুখ।
মানব বন্ধন শেষে অধ্যাপক ড.আবুল আলা মুহাম্মদ হোছামুদ্দিনের নেতৃত্বে স্বাশিপ নেতৃবৃন্দ বিভিন্ন দাবী দাওয়া সম্বলিত স্মারকলিপি প্রধানমন্ত্রী বরাবর পৌঁছে দিতে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসকের হাতে হস্তান্তর করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *