চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯

মিজবাউল হক চকরিয়া অফিস

মুক্তিযোদ্ধার পায়ে গুলি চালিয়ে পার ফেলেও বঙ্গবন্ধুর সৈনিকদের হুমকি দিয়ে পার পাবে না : চকরিয়ার পথসভায়–গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী

প্রকাশ: ২০১৯-০৩-১৬ ২৩:২৬:১৫ || আপডেট: ২০১৯-০৩-১৬ ২৩:২৬:১৫

চকরিয়া অফিস : আওয়ামীলীগ নেতারা ভোট কেন্দ্রে গেলে হাত কেটে ফেলা হবে বলে হুমকি ধমকি দিয়ে যাচ্ছে এক স্বতন্ত্র প্রার্থী। নেতাকর্মীদের হত্যার হুমকি দিয়ে লাভ নেই। হাত কাটা, রান কাটা, ছিনতাই, অপহরণ, মাদক ব্যবসা এবং মানুষ হত্যা করা এগুলো তার পূরনো অভ্যাস। একজন মুক্তিযোদ্ধার পায়ে গুলি চালিয়ে পার ফেলেও বঙ্গবন্ধুর সৈনিকদের হুমকি দিয়ে পার পাবে না। কারণ তারা অনেক প্রতিবাদী। হুমকি দিলেও নির্বাচনী মাঠ থেকে সরানো যাবে না। কারণ বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক কখনো রক্ত চক্ষুকে ভয় পায় না। তারা নৌকার বিজয় না হওয়া পর্যন্ত ঘরে ফিরবে না। ১৬ মার্চ শনিবার বিকাল ৫টায় স্বতন্ত্র প্রার্থী সাঈদী কর্তৃক সিনিয়র আওয়ামীলীগ নেতাদের হাত কাটা ও হত্যার হুমকির প্রতিবাদে বদরখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের উদ্যোগে বদরখালী বাজারে বিশাল কর্মী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী এসব কথা বলেন।

বদরখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি নুরে হোসেন আরিফের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন টিটুর সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার-১ আসনের সাংসদ জাফর আলম এমএ। নৌকার প্রার্থী আরও বলেন, আনারস প্রতীকের প্রার্থী তার নিশ্চিত পরাজয় জেনে এখন বেসামাল হয়ে পড়েছে। গত কয়েকদিন ধরে বিভিন্ন সভা সমাবেশে আওয়ামীলীগের নেতা ও নৌকার সমর্থকদেরকে গালিগালাজ ও কু-রুচিপুর্ন বক্তব্য দিচ্ছেন। মুলত নির্বাচন থেকে সরে দাড়াঁনোর পথ খুজঁছেন তিনি। এখন চারদিকে নৌকার গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। নৌকার বিজয় সময়ের ব্যাপার মাত্র। এজন্য সিনিয়র নেতাদের বকাঝকা শুরু করেছেন। তিনি বলেন, শান্তিপূর্ন নির্বাচনী মাঠকে উত্তপ্ত করে লাভ হবে না। বঙ্গবন্ধুর সৈনিককে হুমকি দিলেও নৌকার বিজয় ঠেকানো যাবে না। জনগণ উপজেলা নির্বাচনে নৌকার বিজয় দেখতে চায়। নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত দেখে অনেকে বেসামাল হয়ে পড়েছেন। সেখানে আরও বক্তব্য রাখেন, এছাড়া উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে গণসংযাগ করেন গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী।

বক্তব্য রাখেন-‘উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি সরওয়ার আলম, সহ-সভাপতি মোক্তার আহমদ চৌধুরী, সহ-সভাপতি এমআর চৌধুরী, সহ-সভাপতি আবু মুছা, চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন জয়নাল, সাবেক যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক আলমগীর হোছাইন, যুগ্ম সম্পাদক শাহনেওয়াজ তালকুদার, উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রান ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক শফিউল আলম বাহার, সাবেক ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবছার উদ্দিন মাহমুদ, বদরখালী ইউপি চেয়ারম্যান খাইরুল বশর, আওয়ামীলীগ নেতা নুরে হাবিব তসলিম, সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী সিকদার, মাতামুহুরী থানা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাহাবউদ্দিন শাকিল, যুবলীগ নেতা ইউনুছ ভুট্টো, ইউপি সদস্য বেলাল উদ্দিন, ছাত্রলীগ নেতা জসিম উদ্দিন কিশোর।

এদিকে নৌকার প্রার্থী গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী চকরিয়া উপজেলার ১৮টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় ব্যাপক গণসংযোগ ও মতবিনিময় সভা করেছেন। এরমধ্যে হারবাং, বরইতলী, কৈয়ারবিল, পূর্ববড়ভেওলা, সুরাজপুর-মানিকপুর ও পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডে আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের পাশাপাশি সর্বশ্রেণির মানুষর সাথে কুশল বিনিময় করেছেন। আগামী ১৮ মার্চ নৌকাকে বিজয় করতে নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে মাঠে ময়দানে চষে বেড়াচ্ছেন তিনি। তারা নৌকার বিজয় ছিনিয়ে এনে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দেবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *