চট্টগ্রাম, , সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯

আবদুল হাকিম রানা পটিয়া প্রতিনিধি

নৌকার বিজয় নিশ্চিত করে পটিয়াকে আধুনিক ও মডেল জনপদে রূপান্তরের সুযোগ দিন : শেষ মুহুর্তের প্রচারণায় মোতাহের

প্রকাশ: ২০১৯-০৩-২২ ২৩:৫২:১৮ || আপডেট: ২০১৯-০৩-২২ ২৩:৫২:১৮

 আবদুল হাকিম রানা, বীর কন্ঠ : পটিয়ায় শেষ মুহুর্তের প্রচারণায় বাংলাদেশ আ’লীগ মনোনীত নৌকার উপজেলা চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আলহাজ্ব মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী বলেছেন, পটিয়া হাজার বছরের ইতিহাস ঐতিহ্যে সমৃদ্ধ এক জনপদ। এ পটিয়াকে বিভিন্ন সময়ে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে পিছিয়ে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু বিগত ১০ বছর ধরে পটিয়া থেকে তিন তিন বার নির্বাচিত সাংসদ মাননীয় হুইপ আলহাজ্ব সামশুল হক চৌধুরী ধারাবাহিক উন্নয়নের মাধ্যমে পটিয়াকে সারা বাংলাদেশে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত করেছেন।

বর্তমানে তার এ উন্নয়ন ধারাবাহিকতা রক্ষা করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে নৌকায় মনোনয়ন দিয়েছেন। এ মনোনয়নের জন্য বিশেষ ভাবে ভূমিকা রেখেছেন মাননীয় হুইপ সামশুল হক চৌধুরী, জেলা-উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ আমার শুভাকাঙ্খিরা। তারা আমার উপর আস্থা রেখেছেন যদি পটিয়াবাসীও আমার উপর আস্থা রেখে ২৪ মার্চ নৌকা মার্কাকে বিজয়ী করেন তাহলে তাহলে হুইপ সামশুল হক চৌধুরীর উন্নয়ন কর্মকান্ডকে আরো বেগবান করা হবে। বর্তমানে তিনি পুরো পটিয়ায় তিন হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন করেছেন। যদি আবারো নৌকাকে বিজয়ী করেন তাহলে তিনি পটিয়ায় ৬ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন করবেন। পটিয়া পৌরসভাকে করবেন মিনি সিটি কর্পোরেশন।

এছাড়াও তিনি পশ্চিম পটিয়ায় আরো একটি আলাদা থানা এবং পৌরসভা করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন। যা বাস্তবায়ন করার মাধ্যমে পটিয়ার মানুষের নাগরিক অধিকার সুনিশ্চিত করতে হলে নৌকার বিজয়ের কোনো বিকল্প নেই। তিনি আরো বলেন, পটিয়া জাতির পিতা ঘোষিত জেলা। বিগত সময়ে আমরা এ জেলার জন্য অনেক আন্দোলন করেছি। বর্তমানে মাননীয় হুইপ আলহাজ্ব সামশুল হক চৌধুরী পটিয়ার হারানো গৌরব ফিরিয়ে আনতে কাজ করে যাচ্ছেন। তাই তার হাতকে শক্তিশালী করতে ২৪ মার্চ নৌকা মার্কাকে বিজয়ী করতে পটিয়ার সকল ভোটারদের কেন্দ্রে কেন্দ্রে সমবেত হতে হবে। এছাড়াও তিনি বলেন, এবারের নির্বাচনের সাথে পটিয়াবাসীর মান ও মর্যাদা জড়িয়ে পড়েছে।

পটিয়াবাসী যদি একটি সভ্য নাগরিক হয়ে থাকেন তাহলে উন্নয়ন ও নৈতিকতার জন্য নৌকা মার্কাকে বিজয়ী করুণ। তিনি গতকাল পটিয়ায় তার নির্বাচনী প্রচারণার শেষ সময়ে বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক গণসংযোগ ও কেন্দ্রে বক্তব্য রাখতে গিয়ে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। এসময় তার সাথে ছিলেন জেলা আ’লীগ নেতা আলহাজ্ব আবুল কালাম আজাদ, পটিয়া উপজেলা আ’লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আ.ক.ম সামশুজ্জামান চৌধুরী, সাবেক মহিলা এমপি চেমন আরা তৈয়ব, সাবেক সভাপতি রাশেদ মনোয়ার, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সামশুদ্দিন আহমদ, জেলা পরিষদ প্যানেল চেয়ারম্যান দেবব্রত দাশ, জেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রদীপ দাশ, মোজাহেরুল আলম চৌধুরী, উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র অধ্যাপক হারুনুর রশিদ, উপজেলা আ’লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক বিজন চক্রবর্ত্তী, নাছির উদ্দিন, শাহাদাত হোসেন ফরিদ, আইয়ুব বাবুল, চৌধুরী আবুল কালাম, আজিমুল হক প্রমুখ। এছাড়াও জেলা-উপজেলা ও বিভিন্ন ইউনিয়ন আ’লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ এসময় বক্তব্য রাখেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *