চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯

এম মাঈন উদ্দিন মিরসরাই প্রতিনিধি

এই মেলা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার মেলা মিরসরাই স্বাধীনতা মেলায় -ড.ইসমাঈল খান

প্রকাশ: ২০১৯-০৩-২৬ ২০:২২:৫৭ || আপডেট: ২০১৯-০৩-২৬ ২০:২২:৫৭

মিরসরাই প্রতিনিধি : ‘রক্তে-কেনা স্বাধীনতা রক্ত দিয়ে রাখবো’ এ স্লোগান কে সামনে রেখে অনুষ্ঠিত হচ্ছে স্বাধীনতার ৪৮ বছর পূর্তিতে মিরসরাইয়ে স্বাধীনতা মেলা। উপজেলার শতবর্ষী বিদ্যাপীঠ আবুতোরাব উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত মহান স্বাধীনতা মেলার ১১তম দিনের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ডা. মো. ইসমাঈল খান। প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, একাত্তরের ২৫ মার্চ কালরাতে দেশের মানুষের ওপর নির্মম হত্যাযজ্ঞ চালায় পাকিস্তান সেনাবাহিনী। ‘অপারেশন সার্চলাইট’ নামে বর্বরোচিত সামরিক অভিযানে এক রাতে ঢাকা রূপ নেয় হত্যার নগরীতে। সেই মৃত্যুর বিভীষিকা থেকে এক হয়ে মাথা তুলে দাঁড়িয়েছিল দেশের মানুষ। তিনি বলেন, এই মেলা মুক্তিযোদ্ধের চেতনার মেলা, এই মেলার স্বাধীনতা চেতনার মেলা। পাকিস্তান রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার পর থেকেই নানা ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত হতে শুরু করে বাঙালিরা।

সেই পটভূমিতে বায়ান্নতে রাষ্ট্রভাষা আন্দোলনের মধ্য দিয়ে স্বাধিকারের চেতনার উন্মেষ ঘটে পূর্ব বাংলায়। ধাপে ধাপে তা স্বাধীনতার আন্দোলনে রূপ নেয়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণের আহ্বানে জেগে ওঠে নিরীহ বাঙালি। যার যা কিছু আছে তাই নিয়ে তারা শত্রুর বিরুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ার প্রস্তুতি নেয়। আজ থেকেই শুরু হয় বাঙালির রক্তক্ষয়ী স্বাধীনতা যুদ্ধ। ৯ মাসের যুদ্ধে ৩০ লাখ মানুষের আত্মদান, ৩ লাখ নারীর সম্ভ্রম আর বিপুল ক্ষয়ক্ষতির মধ্য দিয়ে অর্জিত হয় বিজয়। পৃথিবীর মানচিত্রে অভ্যুদয় ঘটে স্বাধীন বাংলাদেশের। মুক্তিযুদ্ধের সময় এ দেশেরই কিছু লোক বিশ্বাসঘাতকতা করে হাত মিলিয়েছিল পাকিস্তানি ঘাতকদের সঙ্গে। সোমবার (২৫ মার্চ) রাতে মঘাদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসাইন মাষ্টারের সভাপতিত্বে ও মায়ানী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মামুনুর রশীদের সঞ্চালনায় এসময় আরো বক্তব্য রাখেন, চট্টগ্রাম একুশে মেলা উদযাপন পরিষদের সদস্য সচিব ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় মুক্তিযোদ্ধা সিনেটর সদস্য মহিউদ্দিন শাহ্ আলম নিপু, নিজামপুর সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ রফিক উদ্দিন, মঘাদিয়া নুরুল আবছার চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হালিম উল্লাহ প্রমুখ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, আবুতোরাব উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান এম আলা উদ্দিন, নিজামপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক জসিম উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামীলীগের শ্রম-বিষয়ক সম্পাদক মেলার প্রথম পর্বে অনুষ্ঠিত হয় উপজেলার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হাইতকান্দি উচ্চ বিদ্যালয় ও মিরসরাই পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী পরিষদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংকৃতিক অনুষ্টান। ২য় পর্বে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা। এবং তৃতীয় ও শেষ পর্বে অনুষ্ঠিত হয় দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আগত অতিথি শিল্পীদের পরিবেশন হয় গান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *