চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯

সাতকানিয়ায় দুর্বৃত্তের হামলায় যুবলীগ নেতা গুরুত্বর আহত

প্রকাশ: ২০১৯-০৪-১৯ ০০:৩০:৪৯ || আপডেট: ২০১৯-০৪-১৯ ০০:৩০:৪৯

নিউজ ডেস্ক : সাতকানিয়ায় দুর্বৃত্তের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে এক যুবলীগ নেতা গুরুতর আহত হয়েছেন। আহত যুবলীগ নেতার নাম আবু নাঈম হিরু (৩২)। গত শনিবার রাতে উপজেলার নলুয়া ইউনিয়নের পূর্ব নলুয়া রুস্তম পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। আহত হিরুকে এখন রাজধানীর এ্যাপোলো হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়েছে। তার স্বজনদের দাবি, শঙ্খনদীর বালু মহালের ইজারা না পাওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে যুবলীগ নেতা জহির উদ্দিন মিন্টুর পরিকল্পনায় হিরুকে হত্যার উদ্দেশে হামলা চালানো হয়েছে। এদিকে যুবলীগ নেতা জহির উদ্দিন মিন্টু জানান, হিরুর উপর হামলার সময় আমি এলাকায় ছিলাম না। এ ঘটনায় অহেতুক আমাকে জড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।

এলাকাবাসী জানান, নলুয়া ইউনিয়নের পূর্ব নলুয়া হাঙ্গরমুখ এলাকার বাসিন্দা ও চট্টগ্রাম দক্ষিন জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মোস্তাক আহমদ আঙ্গুরের পুত্র নলুয়া ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা আবু নাঈম হিরু ঘটনার দিন রাতে বন্ধুদের নিয়ে রুস্তম পাড়ার পোড়া দোকান এলাকায় অবস্থান করছিলেন। এসময় স্থানীয় সারের দোকানদার মো. নুরুল কবির টাকা পাওয়ার কথা বলে হিরুকে টানা হেঁচড়া করে। কিন্তু হিরু তার কাছে কোন টাকা পাবে না বলে জানায়। পরে উপস্থিত লোকজনের হস্তক্ষেপে উভয় পক্ষকে শান্ত করা হয়।
আবু নাঈম হিরুর বড় ভাই আবুল কালাম জানান, ঘটনার কিছুক্ষন পর মসজিদের মাইকে এলাকায় ডাকাত এসেছে ঘোষণা দিয়ে সবাইকে বের হওয়ার আহবান জানানো হয়। তখন জসিম, মিজান, নুরুল কবির, খোরশেদ, এনাম ও মহিউদ্দিনের নেতৃত্বে লোকজন আমার ছোট ভাই হিরুকে লাঠি দিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে মৃত ভেবে ফেলে চলে যায়। খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে অবস্থার অবনতিতে তাকে চমেক হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়।

গতকাল রাতে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে রাজধানীর এ্যাপোলো হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সাতকানিয়া থানার ওসি মো. সফিউল কবির জানান, নলুয়া এলাকায় দুর্বৃত্তের হামলায় এক লোক আহত হওয়ার খবর শুনেছি। তবে এ বিষয়ে এখনো কোন অভিযোগ পায়নি। নদীর বালু মহালকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটতে পারে বলে তথ্য পাওয়া গেছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *