চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯

আলাউদ্দিন ডেস্ক কন্ট্রিবিউটর

সাতকানিয়ায় পঁচা গরুর মাংস বিক্রির দায়ে ১৫ দিনের কারাদণ্ড

প্রকাশ: ২০১৯-০৫-১২ ২১:৫৭:১৬ || আপডেট: ২০১৯-০৫-১২ ২১:৫৭:১৬

বীর কন্ঠ ডেস্ক:

সাতকানিয়া উপজেলার দস্তিদারহাটে আবুল কালামের মাংসের দোকানে মরা গরুর মাংস বিক্রির দায়ে ১৫ দিনের কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত।বিষয়টি গণমাধ্যমকে  নিশ্চিত করেন সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোবারক হোসেন।

কারাদণ্ড প্রদানকারী ব্যক্তির নাম মো. শাহ আলম (৩৫)। সে চন্দনাইশ উপজেলার দক্ষিণ হাশিমপুর বড়পাড়ার (কসাইপাড়া) মৃত আহমদ ছাফার ছেলে।

গতকাল শনিবার (১১ মে) সকালে মাংস বিক্রি করলে স্থানীয়রা তাকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। পরে সহকারী কমিশনার (ভূমি)’র কাছে নিয়ে গেলে তিনি ১৫ দিনের কারাদণ্ড দেন।

তিনি জানান, মরা গরুর মাংসসহ ব্যবসায়ীকে নিয়ে আসলে আমি প্রাণীসম্পদ অফিসেপরীক্ষা করাই। পরে জানতে পারি মাংসগুলো বাঁসী ও পচন ধরেছে। পরে আমার সহকারী কমিশনার (ভূমি) তাকে ১৫ দিনের কারাদণ্ড দেন।

জানা যায়, সাতকানিয়া দস্তিদারহাটে আবুল কালামের মাংস দোকানে বিক্রেতার কাছে মরা গরুর পাওয়া যায়। মাংস গুলো বিক্রি করার সময় ক্রেতারা টের পাই তখন সেই দোকানদার পালিয়ে যাওয়ার সময় ধাওয়া করে ধরে বিক্রেতারা। পরে পুলিশকে কলদিয়ে তাকে পুলিশের নিকট তুলে দেয়া হয়।

এ বিষয়ে কথা হয় সাতকানিয়ার সহকারী কমিশনার (ভূমি) দীপংকর তঞ্চঙ্গ্যার সাথে। তিনি  জানান, মাংস নিয়ে পুলিশ আমার কাছে আসলে আমি ভেটরেনারী সার্জনকে দিয়ে মাংস পরীক্ষা করাই । কিন্তু গরুটি জীবিত নাকি মৃত ছিলো সেটি প্রমাণ করতে পারিনি। তবে পঁচা ও বাসি মাংস বিক্রি করার অপরাধে মো. শাহ আলমকে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করি। খবর- সিভয়েস 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *