চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯

মিজবাউল হক চকরিয়া অফিস

বিপাকে শতশত কোমলমতি শিক্ষার্থী চকরিয়ায় স্কুল মাঠে গরু-ছাগলে হাট

প্রকাশ: ২০১৯-০৮-০৪ ২২:৫১:৪২ || আপডেট: ২০১৯-০৮-০৪ ২২:৫১:৪২

 চকরিয়া অফিস : ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে ফাঁশিয়াখালী রশিদ আহমদ চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠ দখল করে অবৈধভাবে গরু-ছাগলের হাট বসিয়েছে যুবলীগ নেতারা। উপজেলা চেয়ারম্যানের নাম ভাঙ্গিয়ে যুবলীগ নেতারা স্কুল মাঠে পশুর হাট বসিয়ে চাঁদাবাজি করছেন বলে জানান স্থানীয়রা। এতে বিপাকে পড়েছে বিদ্যালয়ের শতশত কোমলমতি শিক্ষার্থীরা।
স্থানীয়রা জানান, রশিদ আহমদ চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মাহবুবুর রহমান, যুবলীগ নেতা হেলাল উদ্দিন, যুবলীগ নেতা ইউসুপ ও জাফর আলমসহ আরও ৪-৫জন মিলে উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুল করিম সাঈদীর নাম ভাঙ্গিয়ে বিদ্যালয় মাঠ দখল করে অবৈধভাবে গরু-ছাগলের হাট বসিয়েছেন। গত তিনদিন ধরে উপজেলা প্রশাসনের নিয়ম অমান্য করে বিভিন্ন এলাকায় গরু-ছাগলের হাট বসানের ব্যাপারে মাইকিং করেছেন।
রবিবার দুপুর থেকে গরু-ছাগলের হাট বসানো হয়। এমনকী ক্রেতা-বিক্রেতার কাছ থেকে জোরপূর্বকভাবে চাঁদা আদায় করছেন স্থানীয় যুবলীগ নেতারা। হাট বসানোর কারণে স্কুলের পাঠদান ও কোমলমতি শিক্ষার্থীদের চলাফেরায় ব্যাঘাত ঘটছে। এতে বাধ্য হয়ে রশিদ আহমদ চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেন ৪ আগষ্ট রবিবার দুপুর ১২টার মধ্যে স্কুল ছুটি ঘোষণা করে। এ কারণে অভিভাবক ও এলাকাবাসীর মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। অভিভাবকরা জানান, ভেন্ডিবাজারে উপজেলা প্রশাসন অনুমোদিত একটি কোরাবানির পশুর হাট থাকার পরও উপজেলা চেয়ারম্যানের নাম ভাঙ্গিয়ে একশ গজের মধ্যে অবৈধভাবে পশুর হাট বসিয়েছে। ক্লাস না করে স্কুল ছুটি ঘোষণা করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন শিক্ষক ও অভিভাবকমহল।
রশিদ আহমদ চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র আতাউল হক সবুজ চৌধুরী বলেন, বিদ্যালয়ের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের খেলার মাঠ এখন গরু ছাগলের মাঠ হয়ে গেছে। এ বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করে এসএসসি পাশ করেছি। সেই বিদ্যালয় নাকি এখন গরু-ছাগলের বাজারে পরিণত করেছে স্থানীয় কিছু যুবলীগ নামধারী নেতা। অবৈধ গরু-ছাগলের হাট বন্ধ করে স্কুলের স্বাভাবিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনার দাবী জানান তিনি। রশিদ আহমদ চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেন বলেন, চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের স্বাক্ষরিত একটি চিঠি স্থানীয় কয়েকজন যুবলীগ নেতা আমাকে দিয়েছেন।তার কারণে মাঠ ব্যবহারের করতে দেওয়া হয়। রবিবার বিকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা স্বাক্ষরিত একটি নোটিশ পেয়েছেন বলে জানান তিনি।
আজ সোমবার স্কুল ম্যানেজিং কমিটির বৈঠকে নোটিশ পাওয়ার বিষয়টি উত্থাপন করা হবে। রশিদ আহমদ চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মমতাজ আহমদ বলেন, ইউপি সদস্য মাহবুবুর রহমান, হেলাল উদ্দিন হেলালী, আবু হাসনাত ইউছুফ ও জাফর আলম কয়েকদিন পূর্বে স্কুল মাঠে গরু-ছাগলের হাট বসানোর জন্য সাংসদ জাফর আলম এমপি ও উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুল করিম সাঈদীর স্বাক্ষরযুক্ত একটি চিঠি প্রধান শিক্ষক বরাবর প্রেরণ করা হয়েছে বলে তিনি জানান।স্কুল মাঠে গরু-ছাগলের হাট বসলেও এর স্কুলের পরিবেশ নষ্ট হবে না বলে তিনি জানান। এদিকে বিদ্যালয় মাঠে গরু-ছাগলের হাট বসানোর কারণে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি হওয়ার আশঙ্কায় বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: নুরুউদ্দিন মোহাম্মদ শিবলী নোমান।
রবিবার বিকাল ৫টার দিকে গরু-ছাগলের হাট বন্ধের জন্য রশিদ আহমদ চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেনকে এ নির্দেশ দেন তিনি। চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুউদ্দিন মোহাম্মদ শিবলী নোমান বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে হাট বসানোর নিয়ম নেই। ফাঁশিয়াখালী ইউপি প্যানেল চেয়ারমান সাহাবউদ্দিন একটি লিখিত অভিযোগ দেওয়ার কারণে রশিদ আহমদ চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে গরু-ছাগলের হাট বন্ধের নোটিশ দেওয়া হয়েছে। এরপরও হাট বন্ধ না করলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া বলে জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *