চট্টগ্রাম, , সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯

খলিল চৌধুরী সৌদি আরব প্রতিনিধি

সারাবিশ্বে প্রথমবারের মতো টুরিস্ট ভিসা দিচ্ছে সৌদি আরব

প্রকাশ: ২০১৯-০৯-২৭ ২৩:০৯:৪৪ || আপডেট: ২০১৯-০৯-২৭ ২৩:০৯:৫২

খলিল চৌধুরী, সৌদি আরব প্রতিনিধি :

সারাবিশ্বে এই প্রথমবারের মতো পর্যটন ভিসা (টুরিস্ট ভিসা) দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি আরবের সরকার।টুরিস্ট ভিসার দেওয়ার কার্যক্রম কাল থেকে শুরু হচ্ছে। এ ভিসায় পবিত্র মক্কা-মদিনা ছাড়াও ঘুড়ে বেড়াবেন পুরো সৌদি আরব। দেশটির তেলকেন্দ্রিক অর্থনীতিকে বহুমুখী করার উদ্যোগ হিসেবে এই ভিসা দেওয়া হবে।

বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের ‘ভিশন ২০৩০’ নামক সংস্কার প্রকল্প কর্মসূচির অন্যতম কেন্দ্রবিন্দু পর্যটনশিল্প।

সাম্প্রতিক সময়ে সৌদি আরবের তেল স্থাপনায় হামলার ঘটনায় বৈশ্বিক বাজারে তেলের দামের উপর বেশ প্রভাব পরে। সৌদি হামলায় ওয়াশিংটনের পক্ষ থেকে ইরানকে দায়ী করা হলেও ইরান এ অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে।

হামলায় দুই সপ্তাহের পরেই সৌদি সরকারের পক্ষ থেকে এমন ঘোষনা এল। কেবলমাত্র তেল নির্ভর অর্থনীতির ওপর ভরসা না করে এক্ষেত্রে বহুমুখী আয়ের উৎস সৃষ্টির অংশ হিসেবে সৌদি আরব তাদের দেশের কট্টর রক্ষণশীল অবস্থান থেকে বেরিয়ে এসে পর্যটকদের এ সুযোগ দিতে যাচ্ছে।

পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রধান আহমেদ আল-খতিব এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘বিভিন্ন দেশের পর্যটকদের জন্য সৌদি আরবের দ্বার উন্মুক্ত করা আমাদের জন্য এক ঐতিহাসিক মুহূর্ত। আমাদের প্রাকৃতিক ও ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা বা স্থানগুলো দেখে দর্শনার্থীরা মুগ্ধ হবেন। আমাদের ইউনেসকোর পাঁচটি বিশ্ব ঐতিহ্য (ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট), আকর্ষণীয় সংস্কৃতি ও মনোরম প্রাকৃতিক সৌন্দর্য রয়েছে।

খতিবের বরাতে ব্লুমবার্গ নিউজ জানিয়েছে, ৪৯টি দেশের নাগরিকেরা আগামীকাল শনিবার থেকে সৌদি আরবে যাওয়ার জন্য অনলাইনে টুরিস্ট ভিসার আবেদন করতে পারবেন।

খতিব আরও বলেন, বিদেশি নারীদের জন্য পোশাকের কঠোর নীতি সৌদি আরবের সরকার শিথিল করবে । সৌদি নারীদের জন্য বাধ্যতামূলক পুরো শরীর ঢাকা বোরকা ছাড়াও তাঁরা ঘুরতে পারবেন। তবে তাঁদের ‘মার্জিত পোশাক’ পরতে হবে।

সৌদি আরবে কেবল প্রবাসী শ্রমিকদের প্রবেশাধিকার আছে। এ ছাড়াও পবিত্র নগরী মক্কা এবং মদিনার প্রাচীন স্থানগুলো মুসলিমদের জন্যই সীমিত করা ছিল। বিশ্ব পর্যটন দিবসে সৌদি আরবে টুরিস্ট ভিসা দেওয়ার সিদ্ধান্তটি ভ্রমণপিপাসুদের জন্য খুশির খবরই বটে। তবে একইসঙ্গে আঞ্চলিক দ্বন্দ্বের যে আশঙ্কা সৃষ্টি হয়েছে তা এখনও চললাম অবস্থায় আছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *