চট্টগ্রাম, , শনিবার, ৪ এপ্রিল ২০২০

মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি

রামুতে বিদুৎ অফিস কর্তৃক অতিরিক্ত বিল আদায়

প্রকাশ: ২০১৯-১২-২৪ ১৩:৫৬:৫৫ || আপডেট: ২০১৯-১২-২৪ ১৩:৫৭:০৪

মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু, নাইক্ষ্যংছড়িঃ
সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে কক্সবাজারের রামু বিদ্যুৎ অফিস কর্তৃক এক শ্রেণীর বহিরাগত লোকজন দিয়ে মিটার না দেখে অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছেে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় কচ্ছপিয়া নতুন তিতার পাড়া এলাকার এক ব্যক্তির মিটারে ২৬ ইউনিট বিদুৎ বিল উঠে মিটারে সেখানে তারর মিটারে বিল করেন ৯৫৫ টাকা এভাবে প্রতিনিয়ত হয়রানি শীকার হচ্ছে নাইক্ষ্যংছড়ি ও রামু উপজেলার ১৩ ইউনিয়নের মানুষ।

তাই এর প্রভাবে নষ্ট হচ্ছে বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকারের অর্জিত সুনাম। এই বিষয়ে স্থানীয়দের অভিযোগ রামু কচ্ছপিয়া ও নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউপির কিছু মাদকসেবী ও জামায়ত,বিএনপির ছেলেদের দিয়ে বিদ্যুৎ লাইন দেখা শুনার দায়িত্ব দিয়েছে রামুর বিদ্যুৎ অফিস। তারা এসব এলাকার বিদ্যুৎ লাইনে অনেকের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা নিয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন টমটমের গেরেজ মালিকদের সাথে অবৈধ বিদুৎ সংযোগদিয়ে মোটার অংকের টাকা নেওয়ারও অভিযোগ স্থানীয়দের। ঐ অবৈধ বিদুৎ সংযোগের টাকা বিভিন্ন জনের মিটারে বিল বেশি তোলে দিয়ে চালিয়ে যাচ্ছে সংশ্লিষ্টররা।

আর লাইনম্যনরা যে খানে টাকা নিয়ে বিদুৎ সসংযোগ দিয়েছে ওই সমস্ত সংযোগ প্রদানকারীদের মিটারে বিদ্যুৎ বিল করেন দুই থেকে তিন মাস পর। তাদের বিলের কাগজে ৬০ টাকা আবার কারো ৪৮ টাকা এভাবে বিলের কাগজ বিতরণ করে ঐ লাইনম্যানরা। যারা তাদের সাথে যোগাযোগ না করে বিদ্যুৎ সংযোগ নিয়েছেন তাদের বিদ্যুৎ বিল করেছে মিটার না দেখে। তাও ১৫ দিন বা এক মাসে কারো বিল ১৭০০ টাকা আবার কারো ৯৫৫ টাকা এভাবে প্রায় এলাকায়।

এসব বিষয়ে জানতে চাইলে অফিস কর্তৃপক্ষ বলেন,করার কিছু নেই পরের মাসে কমিয়ে দেওয়া হবে। এলাকাবাসী দূর্নীতিবাজ কর্মকর্তা কর্মচারীদের বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। এ বিষয়ে রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে মুটো ফোনে জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন বলে জানান। নাম প্রকাশ না করার সার্থে বলেন রামু বিদুৎ অফিস আমাদের আওয়ামীলীগ সরকারের ভাবমুত্তি নষ্ট করতে উপজেলা বিভিন্ন ইউনিয়নের মানুষের কাছ থেকে অতিরিক্ত বিদুৎ বিল আদায় করছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *