চট্টগ্রাম, , বুধবার, ১ এপ্রিল ২০২০

প্রদীপ শীল রাউজান প্রতিনিধি

রাউজানে কেউটিয়া প্রা: বিদ্যালয়ের দু’শ বছর পুর্তি উৎসব ও পুনর্মিলনী উদযাপন

প্রকাশ: ২০১৯-১২-২৫ ১৯:০৬:৩৩ || আপডেট: ২০১৯-১২-২৫ ১৯:০৬:৪০

প্রদীপ শীল, রাউজানঃ

রাউজানের দু’শত বছরের প্রাচীনতম শিক্ষা নিকেতন কেউটিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পুনর্মিলনী
বর্ণাঢ্য আয়োজনে উৎসবমুখর পরিবেশে শেষ হয়েছে। শোভাযাত্রা, আলোচনা সভা, স্মৃতিচারণ, মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, মধ্যাহ্ন ভোজসহ নানা কর্মসূচির মাধ্যমে প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী পুনর্মিলনী ও ঐতিহ্যের দুইশত বছর পুর্তি উদযাপন করেছে নবীন প্রবীন সমন্বয়ে।


২৫ ডিসেম্বর, বুধবার বেলা ১২ টায় প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী পুনর্মিলনী উদযাপন পরিষদের ২০১৯ উদ্যোগে জাতীয় সংগীত পরিবেশন সহকারে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, শান্তির প্রতীক পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে অনুষ্ঠানের শুভ সুচনা করা হয়।


অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি।


প্রধান আলোচক ছিলেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ের সহ সভাপতি বাংলাদেশ প্রতিদিন চট্টগ্রাম বু্যরো সাংবাদিক রিয়াজ হায়দার চৌধুরী।
প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী পুনর্মিলনী উদযাপন পরিষদের ২০১৯ এর সভাপতি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মো. নুরুল আমিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের উদ্বোধক ছিলেন রাউজান আর্যমৈত্রেয় ইনস্টিটিউশনের সভাপতি আলহাজ্ব শাহ আলম চৌধুরী।

পুনর্মিলনী উদযাপন পরিষদের সচিব সনজীব দত্তের সঞ্চালনায় অলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন রেলপথ মন্ত্রণালয়ের উপ সচিব শিবির বিচিত্র বড়ুয়া, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জোনায়েদ কবির সোহাগ, উপজেলা সিনিয়র সহকারী কমিশনার (ভূমি) মামনুন আহমেদ অনিক, ডেপুটি অ্যাটর্নী জেনারেল এডভোকেট অপূর্ব ভট্টচার্য্য, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. আব্দুল কুদ্দুস, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বি.এম. জসিম উদ্দিন হিরু, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আলম চৌধুরী, সমাজসেবক আলহাজ্ব মোহাম্মদ আলী, সিপ্লাস টিভির চীফ রিপোর্টার খোরশেদুল আলম শামীম।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবু জাফর চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল ইসলাম, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আলহাজ্ব মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম হেলালী, ইউপি সদস্য প্রভাত পাল কালু, সারজু মোহাম্মদ নাছের, শওকত হোসেন, উদযাপন পরিষদের প্রধান সমন্বয়কারী পার্থ প্রতিম ভট্টাচার্য্য, সিনিয়র সহ সভাপতি শিক্ষক সমীর কান্তি ভট্টাচার্য্য, এসএম লিটন প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের প্রধান আলোচক সাংবাদিক রিয়াজ হায়দার বলেন, রাউজানের মানুষ ভাগ্যবান। তারা স্বাধীনতার পরবর্তী এজন্য সত্যিকার নেতা পেয়েছেন। যার নেতৃত্বে রাউজান আলোকিত। তিনি সাংসদের নেতৃত্বে সকলকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহবান জানান। প্রধান অতিথি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী বলেন, ২০০ বছর আগে কেউটিয়া স্কুল প্রতিষ্ঠিত হয়েছে জেনে আমার আচার্য লাগছে।

তখনকার সমাজ হিৃতসীরা শিক্ষার জন্য চিন্তা করেছিল। আজ তারা নেই কিন্তু তারা অমর। আমি সসবসময় স্বাস্থ্য, শিক্ষা, বাসস্থান ও শৃঙ্খল জীবনের কথা চিন্তা করি। সেলক্ষ্য আমি কাজ করে যাচ্ছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের জন্য দৈনিক ১৯ ঘন্টা কাজ করে।

তার যোগ্য নেতৃত্বে এই দেশ উন্নত বিশ্বে আজ রোল মডেল। রাজনীতিবিদরা প্রধানমন্ত্রীর মত নিষ্টার সাথে করলে এই দেশ সোনার বাংলায় পরিনত হবে। আমরা চাই রাউজান সবদিক দিয়ে এগিয়ে যাক। রাউজান মাতা উচু করে দাঁড়াক। আমি চাই মানুষের চাহিদা পুরণ করতে। সমন্বিত প্রচেষ্টায় মানুষের কল্যাণে কাজ করতে।

তিনি কেউটিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সীমানা প্রাচীর নির্মানে পাঁচ লাখ টাকার অনুদান ঘোষনা করেন। এছাড়া বিদ্যালয়ের মাঠ সম্প্রসারণে বিদ্যালয়ের সামনে থাকা একখন্ড জমি ক্রয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বিদ্যালয়ের সভাপতি নূরুল আমিনকে নির্দেশ দেন। অনুষ্ঠানে বিদ্যালয়ের প্রাক্তন কৃতি শিক্ষার্থীদের ক্রেষ্ট প্রদান করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *