চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ৯ এপ্রিল ২০২০

admin

রাঙ্গুনিয়ায় সহিংসতা ছাড়াই দুই ইউপি’র নির্বাচন অনুষ্ঠিত

প্রকাশ: ২০১৯-১২-৩০ ২২:৪৬:০২ || আপডেট: ২০১৯-১২-৩০ ২২:৪৭:১৩

আব্বাস হোসাইন আফতাব,রাঙ্গুনিয়া :

রাঙ্গুনিয়ায় সহিংসতা ছাড়াই অনুষ্ঠিত হয়েছে মরিয়মনগর ও স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন।স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকে ৫৫০৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন আ.লীগের প্রার্থী মো. নুরউল্লাহ। তাঁর প্রতিদ্বন্ধী একমাত্র প্রার্থী ছিলেন রহিম উদ্দিন উদ্দিন চৌধুরী। তিনি টেলিফোন প্রতীকে ভোট পেয়েছেন ১৭২১ টি।

মরিয়মনগর ইউনিয়নে আ.লীগের মনোনীত প্রার্থী মুজিবুল হক নৌকা প্রতীকে ৮৬১১ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তাঁর প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী মো. সেলিম আনারস প্রতীকে ৪০০ ভোট পান । সকাল থেকে এই দুই ইউনিয়নে প্রচুর ভোটারের উপস্থিতি ছিল। বেশির ভাগ কেন্দ্রে নারী ভোটারের উপস্থিতি দেখা যায়। দুপুর গড়াতেই অনেক কেন্দ্র ভোটার শূন্য ছিল। আজ সোমবার (৩০ ডিসেম্বর) সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত এই দুই ইউনিয়নের ১৮টি কেন্দ্রের ৭৪টি বুথে ভোট গ্রহন করা হয়।


সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মরিয়মনগর ইউনিয়নের ইউপি কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, কেন্দ্রের দুই পাশে ভোটারদের দীর্ঘ লাইন। ভেতরে গিয়ে দেখা যায় ভোটাররা স্বত:স্ফুর্তভাবে ভোট দিচ্ছেন। জানতে চাইলে কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা হারুন অর রশিদ বলেন, কেন্দ্রে সাড়ে ১০ টা পর্যন্ত ৩০০ ভোট গ্রহন করা হয়। কেন্দ্রে ভোটার রয়েছে ২৪৭৭ টি।

সকাল ১১ টার দিকে মধ্য মরিয়মনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও দুপুর ১২টার দিকে পশ্চিম মরিয়মনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়েও ভোটারের উপস্থিতি দেখা যায়। বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া ইউনিয়নের সাবেক রাঙ্গুনিয়া সুবল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, পুরো কেন্দ্র ভোটার শূন্য।

কেন্দ্রের দুই নম্বর পুরুষ বুথের কক্ষের ভিতরে গিয়ে দেখা যায় এক ভোটারকে ইউপি সাধারণ ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদের খালি ব্যালট দিলেও চেয়ারম্যান পদের ব্যালটটি নৌকা প্রতীকে সীল দিয়ে দেয়া হচ্ছে। জানতে চাইলে দায়িত্বে থাকা ওই বুথের সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার শান্তুনু বিশ্বাস ভোটার ব্যালটে সবার সামনে সীল মেরেছে দাবী করেছেন।

বিকাল ৩ টার দিকে একই ইউনিয়নের খিলমোগল রসিক উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোটারদের লাইন। ৩ টা পর্যন্ত ৪টি বুথে ৬৪ ভাগ ভোট গ্রহন হয়েছে বলে জানান ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার স্বপন চন্দ্র দে। মরিয়মনগর ইউনিয়নে দায়িত্বে থাকা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ফখরুল ইসলাম বলেন, নির্বাচন চলাকালীন আইন শৃঙ্খলা বাহিনী সতর্ক অবস্থানে ছিল। কোথাও কোনো সহিংসতার ঘটনা ঘটেনি।

দুই ইউনিয়নের বিভিন্ন কেন্দ্র ঘুরে দেখা যায়। চেয়ারম্যান প্রার্থী নিয়ে ভোটার ও সমর্থকদের মাঝে তেমন কোন আগ্রহ দেখা যায়নি। ইউপি সদস্য পদ নিয়ে ভোটার ও কর্মী-সমর্থকদের মাঝে উচ্ছ্বাস দেখা গেছে। তবে কোথাও কোনো সহিংসতার ঘটনা ঘটেনি।
স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া ও মরিয়মনগরে নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৪ প্রার্থী, ইউপি সদস্য পদে ৯৩ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১৬ জন প্রার্থী ভোটে প্রতিদ্বন্ধিতা করেছেন। মরিয়মনগরে ১৪ হাজার ৯৬৭ জন ভোটার। স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া ইউনিয়নে ১১ হাজার ১২ জন ভোটার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *