চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ৩ এপ্রিল ২০২০

এম মাঈন উদ্দিন মিরসরাই প্রতিনিধি

মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে ২০ মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করবে এশিয়ান পেইন্টস

প্রকাশ: ২০২০-০১-২২ ১৮:০৫:৪৩ || আপডেট: ২০২০-০১-২২ ১৮:০৫:৫১


এম মাঈন উদ্দিন, মিরসরাই (চট্টগ্রাম)

‘এশিয়ার বৃহত্তম অর্থনৈতিক অঞ্চল হবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর। ৩০ হাজার একর জমিতে এ অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে উঠছে। যেখানে ১৫ লক্ষ লোকের কর্মসংস্থান হবে। চলতি বছর কয়েকটি কারখানা উৎপাদনে যাবে।

অর্থনৈতিক অঞ্চল চালু হলে মিরসরাইয়ের আর বেকার থাকবেনা।’ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরের মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে এশিয়ান পেইন্টেসর কারখানার ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন সাবেক গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি।


বুধবার (২২ জানুয়ারী) মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে এশিয়ান পেইন্টস লিমিটেডের কারখানার ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল (বেজা) নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী, এশিয়ান পেইন্টেসের বাংলাদেশ ব্যবস্থাপক ঋতিশ দোষী, আঞ্চলিক প্রধান টম থমাস, পরিচালক রূপম কিশোর বড়–য়া, মিরসরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রুহুল আমিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এম আলা উদ্দিন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বেজা চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর শুধু বাংলাদেশের নয় বিশ্বের শ্রেষ্ঠ অর্থনৈতিক অঞ্চল হবে। মিরসরাই, সীতাকুন্ড, সোনাগাজী, কোম্পানীগঞ্জ, স›দ্বীপ উপজেলা নিয়ে এটি প্রতিষ্ঠা করা হবে।

বাংলাদেশ সরকার আগামী ৫ বছরে এখানে প্রায় ১০ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে সড়ক, ব্রীজ নির্মাণ সহ বিভিন্ন অবকাঠামোগত উন্নয়ন করবে। গুলশান-বনানীর চেয়েও আরো সুন্দর নগরী হিসেবে গড়ে উঠবে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম পরিকল্পিত এ শিল্প শহর।’

এশিয়ান পেইন্টস এর ব্যবস্থাপক ঋতিশ দোষী বলেন, ‘মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে ২০ একর জায়গার উপর এশিয়ান পেইন্টসের দ্বিতীয় কারখান স্থাপন করা হচ্ছে। যেখানে রং তৈরী ছাড়াও রং তৈরীর উপকরণ তৈরী করা হবে।

যা বর্তমানে বিদেশ থেকে আমদানী করা হয়। ২০২১ সালের জুন মাসের মধ্যে এটি উৎপাদনে যাবে। এশিয়ার সবচেয়ে বড় রং তৈরীর কারখানা হবে এটি। এখানে ২০ মিলিয়ন ইউএস ডলার বিনিয়োগ করা হবে। কারখানাটিতে ২০০ জন শ্রমিকের কর্মসংস্থান হবে। এটি হবে পরিবেশবান্ধব কারখানা।’


আলোচনা সভা শেষে অতিথিবৃন্দ কারখানার ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন এবং কারখানা প্রাঙ্গণে বৃক্ষরোপন করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *