চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ ২০২০

প্রদীপ শীল রাউজান প্রতিনিধি

রাউজানে আত্মতৃপ্তির ফলজ ছাদ বাগানঃ মুকুল দেখে ভাল ফলের স্বপ্ন দেখছেন রাজু চৌধুরী

প্রকাশ: ২০২০-০২-২৬ ১৯:৩৯:১১ || আপডেট: ২০২০-০২-২৬ ১৯:৩৯:২০

প্রদীপ শীল, রাউজানঃ

পাঁচ তলা বাড়ীর ছাদে বাহারী ফলজ বাগান করে সফলতার স্বপ্ন দেখছেন একজন ব্যবসায়ী। বিশেষ পদ্ধতিতে করা এই বাগানে বিভিন্ন প্রজাতিভেদে শোভা পাচ্ছে নানা শাক সবজি ও ফুলের পরশ। মনোমুগ্ধকর এই ছাদ বাগানের স্বপ্নিল উদ্যােক্তার নাম হলো রাজিব চৌধুরী রাজু।

পেশায় একজন ব্যবসায়ী। বাড়ী রাউজান উপজেলার বিনাজুরী ইউনিয়নের কাগতিয়া গ্রামে। তিনি ব্যবসা করেন কাগতিয়া বাজারে। চোখ জুড়ানো ছাদ বাগানটি পরির্দশন কালে দেখা যায় প্রায় ২৭ বর্গফুট আয়তনের ছাদে লম্বা ৬ লাইনের স্থায়ী টপ নির্মাণ করা হয়েছে। কংক্রিট সিমেন্ট দিয়ে পিলার ভিত করে পরিকল্পিত ভাবে সৃষ্টি করা হয়েছে লম্বা টপ সাদৃশ্য বীজ ও গাছ লাগানোর ক্ষেত্র।

আড়াই ফুট গভীরতা ও প্রায় ৩০ ফুট লম্বা আয়তনের এই টপে লাগানো হয়েছে দেশী বিদেশী ফলজ গাছ। রোপিত ফলজ বৃক্ষের ফাঁকে ফাঁকে লাগানো হয়েছে বেগুন, মরিচ, টমেটো, ধ্যনেপাতা ও কয়েক প্রজাতির শাক। ২০১৭ সালে কলপ আম চারা, আপেল, কমলা, চরী ফল, ডালিম, আপেলকূল, আমরা, আমলকী, জলপাই, পেয়ারা, জামম্বুরা, বিদেশী জাতের জাম, পেঁপে, আঙ্গুর, দারুচিনি, এলাচিসহ বিভিন্ন প্রজাতির ফলজ চারা রোপন করে রাজিব চৌধুরী রাজু। ছাদ বাগানে রোপিত বৃক্ষ গত বছর থেকে ফল দিতে শুরু করেছে বলে জানা যায়।

বর্তমানে আমের মুকুল এসেছে সবকয়টি আম গাছে। বাগানে শোভাপাচ্ছে কমলা, পেয়ারা, আমড়া, পেঁপে, আমলকী, জাম্বুরা, ডালিম। শাক-সবজীতো রয়েছেই। ছাদ বাগার করার স্বপ্ন প্রসঙ্গে রাজিব চৌধুরী রাজু জানান ছাদে বাগান করার জন্য আমাকে অনুপ্রাণিত করে রাউজানের সাংসদ এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী।

তিনি রাউজানে এক ঘন্টায় সাড়ে চার লক্ষ বৃক্ষ রোপন করে রেকর্ড সৃষ্টি করেছেন। এরপর থেকে আমি এলাকায় বৃক্ষ রোপনের পাশাপাশি আমার ভবণের ছাদে ফলজ বাগানটি গড়ে তুলেছি। তিনি জানান, ব্যবসায়ীক মনোভাব নিয়ে নয়, মনেজাগা স্বপ্নঘোর বাস্তবে লালন করার নিমিক্তে ছাদ বাগান সৃষ্টি করেছি। অনেকেই দেখতে আসে বাগানের সুন্দরতা উপভোগ করতে। কেউ আসে ছবি তুলতে। যারাই আসে তাদের জন্য উম্মুক্ত থাকে বাগানটি।

বাগানে আসা ছোট ছোট বাচ্চাদের পাকা ফল যদি গাছে থাকে সেখান থেকে তাদের হাতে তুলে দিয়ে থাকি। এটাই হচ্ছে আমার আনন্দ। এটাই হচ্ছে আমার আত্মতৃপ্তি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *