চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০

admin

চকরিয়ায় মাদ্রাসা ছাত্রীকে গলা টিপে হত্যা

প্রকাশ: ২০২০-০৩-১৫ ০১:০৬:৩৭ || আপডেট: ২০২০-০৩-১৫ ০১:০৬:৪৬


চকরিয়া অফিস :
কক্সবাজারের চকরিয়ায় নাতনিকে গলা টিপে হত্যার অভিযোগ উঠেছে নানীর বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নানীকে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার বেলা ১১টার দিকে চকরিয়া পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ড হাজীয়ান এলাকায় নানার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। আটক নানী ছখিনা খাতুন (৫৫) হাজীয়ান এলাকার বাসিন্দা।


নিহত নাতনি শারমিন আক্তার (১৪) উপজেলার ডুলাহাজারা ইউনিয়নের মালুমঘাট চা-বাগান এলাকার মৃত নুরুল কবিরের মেয়ে। হাজীয়ান এলাকার স্থানীয় একটি মাদ্রাসার ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী। শারমিনের মা সাজেদা বেগম ওমান প্রবাসী।


জানা গেছে, পৌরসভার হাজীয়ান এলাকার সাজেদা বেগমের সাথে ডুলাহাজারার চা-বাগান এলাকার নুরুল কবিরের সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের দীর্ঘদিন পরও তাদের সংসারে কোন সন্তান না হওয়ায় শারমিনকে দত্তক নেন সাজেদা-নুরুল কবির দম্পতি। এর কিছুদিন পর নুরুল কবির মারা যায়। পরে সংসারে হাল ধরতে মা সাজেদা বেগম ওমানে গৃহকর্মী হিসেবে চলে যায়। এরপর থেকে হাজীয়ানস্থ নানার বাড়িতে থাকতে শুরু করে এবং স্থানীয় একটি মাদ্রাসায় পড়ালেখাও করে শারমিন।


নিহতের ফুফু খালেদা বেগম সাংবাদিকদের বলেন, শনিবার সকালে শারমিন অসুস্থ হওয়ার খবর পেয়ে তাতে দেখতে তার নানার বাড়িতে যায়। এসময় তাকে শোয়া অবস্থায় দেখতে পায়। পরে তার কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাই। সেখানে নিয়ে যাওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে নানি শারমিনকে গলাটিপে হত্যা করেছে অভিযোগ উঠায় পুলিশকে খবর দেয়া হয়।


তিনি আরো বলেন, কয়েকদিন আগে শারমিনের মা সাজেদা বেগম ওমান থেকে চার হাজার টাকা পাঠান। তার মধ্যে নানীর জন্য দুই হাজার ও মেয়ের জন্য দুই হাজার টাকা। এ টাকার জন্য হয়তো নানী তার নাতীকে হত্যা করেছে।


চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো.হাবিবুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে মাদ্রাসা ছাত্রী শারমিনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।


তিনি আরো বলেন, ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার জানা যাবে এটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা। পুলিশ এ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। শারমিনকে শিশু বয়সে দত্তক নেয় সাজেদা-নুরুল কবির দম্পতি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *