চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০

এম মাঈন উদ্দিন মিরসরাই প্রতিনিধি

মিরসরাইয়ে ২শতাধিক অস্বচ্ছল পরিবারকে খাদ্যসামগ্রী দিলো নওশা মিয়া

প্রকাশ: ২০২০-০৪-০৩ ২১:০৯:৩২ || আপডেট: ২০২০-০৪-০৩ ২১:০৯:৩৬

মিরসরাই প্রতিনিধি ::: করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষায় ঘর থেকে বের না হওয়া শ্রমজীবী ও দরিদ্র মানুষের মাঝে ব্যক্তিগত উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ করেছে মিরসরাই পৌরসভার সাবেক পৌর প্রশাসক আলহাজ্ব আজহারুল হক চৌধুরী নওশা মিয়া। শুক্রবার (৩ এপ্রিল) সকালে মিরসরাই উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে পৌরসভার প্রায় ২ শতাধিক পরিবারের মাঝে এসব ত্রাণ দেওয়া হয়। ত্রাণ পেয়ে খুশি কর্মহীন ও দরিদ্র মানুষগুলো। ছয় পদের এসব খাদ্যসামগ্রীতে ৫ কেজি চাল, ৩ কেজি আলু, ১ কেজি পেঁয়াজ, ২ কেজি ডাল, ১ কেজি তেল ও ১ কেজি লবণ রয়েছে। এসময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মাদ রুহুল, আমিন, মিরসরাই পৌরসভার সাবেক পৌর প্রশাসক আলহাজ্ব আজহারুল হক চৌধুরী নওশা মিয়া, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য জুয়েল চৌধুরী, মিরসরাই প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. নুরুল আলম, সমাজকর্মী রাফেল চৌধুরী ও মোফাজ্জেল হোসেন চৌধুরী পাভেল উপস্থিত ছিলেন। আলহাজ্ব আজহারুল হক চৌধুরী নওশা মিয়া বলেন, আমি সুদীর্ঘ ২২ বছর চট্টগ্রাম জেলার মিরসরাই সদর ইউনিয়নের সাধারণ মানুষের সেবায় নিয়োজিত ছিলাম। এই ইউনিয়নের মানুষগুলো আমার আপনজন, ওরাই আমার প্রতিবেশি। আমি অতিতেও মানুষের সুখে-দুঃখে ছিলাম। এখনও আছি, ভবিষ্যৎও থাকবো যতদিন আমি বেঁচে থাকি। সারাবিশ্বের মতো বাংলাদেশের মতো গরিব দেশও করোনায় আক্রান্ত আছে। মিরসরাইয়ে অঘোষিত লকডাউনের জন্য ঘর বন্দী শ্রমজীবী ও দরিদ্র মানুষদের জন্য ত্রাণের ব্যবস্থা করেছি। তিনি আরও বলেন, আমার নিজ গ্রাম কিছমাত জাফরাবাদ এলাকায়ও ২শতাধিক খাদ্য সহায়তার প্রস্তুতি নিচ্ছি। পরিস্থিতির উপর নির্ভর করে আমি আমার এই ত্রাণ সহায়তা অব্যাহত রাখবো। আমি অনুরোধ করবো যারা সমাজের বিত্তশালী আছে তারা প্রত্যেকে যেন নিজ নিজ ইউনিয়নের পাশে দাঁড়ায় এবং সবাই যদি এগিয়ে আসে তাহলে আমাদের মিরসরাইবাসি না খেয়ে কেউ কষ্ট পাবেনা ইনশাআল্লাহ। এই বিষয়ে মিরসরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রুহুল আমিন বলেন, ‘সরকারের পাশাপাশি নওশা মিয়ার মতো যারা বিত্তশালী আছেন তারা সবাই যেন এগিয়ে আসে এবং উনার এই কার্যক্রম যেন চলমান থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *