চট্টগ্রাম, , শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০

মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি

নাইক্ষ্যংছড়িতে বিরোধপূর্ণ ভূমিতে ঘর নির্মাণে সংর্ঘষের আশংকা

প্রকাশ: ২০২০-০৪-০৯ ২০:২৬:৪৪ || আপডেট: ২০২০-০৪-০৯ ২০:২৬:৪৮

মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কুঃ বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়িতে আদালতে বিচারাধীন অবস্থায় বিরোধীয় জমিতে প্রভাবশালী ব্যক্তির দালান ঘর নির্মাণ নিয়ে দুই পক্ষের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে যে কোন মূহুর্তে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা দেখা দিয়েছে। দেশে প্রাণঘাতী করোনা দূর্যোগে সাময়িক বন্ধ রয়েছে আদালত। এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার সদর ইউনিয়নের বিছামারা এলাকার প্রভাবশালী শাহাজন, তার স্ত্রী আমেনা খাতুন ও ইসমাইল গংরা অসহায় মঞ্জুর আলমদের জমি গায়ের জোরে অবৈধ দখল করে দালান ঘর নির্মাণ কাজ শুরু করে দিয়েছে।

স্থানীয় পাইসু মার্মা,জাফর ও নুরুল ইসলাম জানান, বিগত ২০১৮ সালের ৬ ই জুন মঞ্জুর আলম গংরা মৃত চিংহ্লা মগের ওয়ারীশগণ ভোগদখলে রত থাকা অবস্থায় তাদের কাছ সরকারী নিয়ম অনুযায়ী রেজিঃ দলিল মূলে তাদের কাছ থেকে ক্রয় করেন এ জমি। শাহাজন গংরা উক্ত জমি তাদের দাবী করে বেশ কয়েকবার জোর পূর্বক দখলের চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হন। এর পর নিরীহ অসহায় মঞ্জুর ন্যায় বিচারের স্বার্থে গত ২৭-৬-২০১৯ ইং তারিখে বান্দরবানের বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পিটিশন মামলা ৭০/২০১৯ দায়ের করেন।

বর্তমানে মামলাটি আদালতে বিচারাধীন আছে। অসহায় মঞ্জুর সাংবাদিকদের জানান,সম্প্রতি দেশে চলমান করোনা দূর্যোগে যখন নাইক্ষ্যংছড়ি লকডাউন তখন সুযোগ বুঝে জোর পূর্বক দখল করে প্রভাবশালী ভূমিদস্য ও জবর দখল কারী শাহাজান গংরা তাদের বহিরাগত সন্ত্রাসীদের দাপট দেখিয়ে দালান ঘর নির্মাণের কাজ শুরু করে দেন। এতে করে দুই পক্ষের মাঝে দেখা দিয়েছে টান টান উত্তেজনা। এসব বিষয়ে মুঠোফোনে জানতে চাইলে অভিযুক্ত শাহাজান বলেন,এ জায়গা আমার খাস দখলিয়। এখানে আমি অনেক দিন বসবাস করে আসছি। আমার কাছে কোন কাগজ পত্র নেই। আদালত করে তারা যদি পায় আমি ছেড়ে দিব। স্থানীয় এলাকাবাসীর মতে এ বিষয়টি নিয়ে যে কোন মুহুর্তে বড় ধরণের দুর্ঘটনা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তারা বিষয়টি দ্রুত নিরসনের জন্য সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *