চট্টগ্রাম, , সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০

মিজবাউল হক চকরিয়া অফিস

পেকুয়ায় সরকারি ১৫ টন চাল চুরির অভিযোগ ইউপি চেয়ারম্যান জাহেদের বিরুদ্ধে

প্রকাশ: ২০২০-০৪-২৯ ১৫:১৬:০২ || আপডেট: ২০২০-০৪-২৯ ১৫:১৭:০৯

মিজবাউল হক, চকরিয়া :


অবশেষে কক্সবাজারের পেকুয়ায় সরকারি বরাদ্দের ১৫ টন চাল চুরির অভিযোগে টৈটং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহেদুল ইসলাম চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ২৮ এপ্রিল রাতে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. আমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে পেকুয়া থানায় মামলাটি দায়ের করেন। মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল আজম। ২৮ এপ্রিল দৈনিক ভোরের কাগজে চাল আত্মসাতের বিষয়ে বিস্তারিত সংবাদ ছাপানোর পর প্রশাসনের নজরে আসে। এরপরই জাহেদের বিরুদ্ধে মামলা করতে বাধ্য প্রশাসন।

পেকুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল আজম জানান, মামলায় টৈটং ইউপি চেয়ারম্যান জাহেদ চৌধুরীকে আসামীকে করে মামলা করা হয়েছে। মামলার বাদী ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. আমিনুল ইসলাম। প্রধান আসামী জাহেদ গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
উপজেলা প্রশাসন সুত্রে জানা গেছে, পেকুয়া সরকারি বরাদ্দের ১৫ টন চালের কোন হদিস পাচ্ছে না প্রশাসন। উপজেলার টৈটং ইউপি চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম চাল উত্তোলন করলেও বিতরণের কোন প্রমানাদি দিতে পারেনি। এদিকে আত্মসাতের বিষয়টি জানাজানি হলে গা ঢাকা দেন ইউপি চেয়ারম্যান জাহেদ চৌধুরী। সম্ভাব্য বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি। নিজেকে আড়াল করে আত্মগোপনে রয়েছেন বলে জানান তার ঘনিষ্টজনরা।
জানা যায়, কক্সবাজার জেলা প্রশাসক কার্যালয় দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ শাখা থেকে ২০১৯ সালের ২৯ জুলাই মানবিক সহায়তা হিসেবে ৪০ মেট্রিকটন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়। ইতিমধ্যে ২৫ টন চাল বিলি করা হয়েছে। সম্প্রতি করোনা ভাইরাসের প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্থ দিনমজুর, রিকশাচালক ও অসহায় দুঃস্থ পরিবারের মাঝে বিতরণের জন্য গত ৩১ মার্চ টৈটং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম চৌধুরী অনুকূলে ১৫ টন চাল উপ বরাদ্দ দেওয়া হয়। বরাদ্দকৃত চাল গুলো অসহায় ও দরিদ্রদের মাঝে বিতরণ না করে আত্মসাৎ করেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাঈকা সাহাদাত স্বাক্ষরিত ওই বরাদ্দকৃত চালের কোন হদিস মেলেনি এখনো। এছাড়া চাল বরাদ্দ পাওয়ার এক মাস অতিবাহিত হলেও এখনো পেকুয়া প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কাছে বিতরণের কোন কাগজপত্র জমাও দেয়নি।
ত্রাণের চাল গায়েবের বিষয়টি তদন্ত করতে কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আশরাফুল আফসার পেকুয়ায় গিয়েছিলেন।
মঙ্গলবার কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আশরাফুল আফসার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি বলেন, পেকুয়ায় গিয়েছিলাম। সরকারি ভাবে বরাদ্দের কাগজ বা নথি পেয়েছি। টৈটং চেয়ারম্যান দুই দফায় চাল উত্তোলন করেছেন। কিন্তু তিনি বিতরণের কোন তথ্য দেননি বা চাল গুলো কি করেছেন সে বিষয়ে এখনো কিছু জানা যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *