চট্টগ্রাম, , বুধবার, ২৭ মে ২০২০

মোহাম্মদ আতিক উল্ল্যাহ মদিনা প্রতিনিধি, সৌদি আরব

সৌদিতে করোনায় মোট মৃত্যুর এক-তৃতীয়াংশ প্রবাসী বাংলাদেশী: মোট সংখ্যা ১০৯ জন

প্রকাশ: ২০২০-০৫-১৮ ১৬:৫৩:৩৯ || আপডেট: ২০২০-০৫-১৮ ১৬:৫৩:৪৪


আতিক উল্লাহ,সৌদি আরব মদিনাপ্রতিনিধি|

সৌদিতে করোনায় মোট মৃত্যুর এক-তৃতীয়াংশ প্রবাসী বাংলাদেশী মোট সংখ্যা ১০৯ জন
বৈশ্বিক মহামারি প্রাণঘাতিক করোনা ভাইরাস ঠেকাতে সৌদি সরকার অত্যাধুনিক সব পদক্ষেপ পরিচালনা করছেন। কোভিড-১৯ সংক্রামন ও মৃত্যু হার রোধ করতে তৈরি করছে নাগরিকদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ও প্রতিদিনের চলাচলের উপর বিধিনিষেধের সাথে চালু রেখেছেন অর্থদন্ড। পাশাপাশি বাসায় বাসায় গিয়ে পরীক্ষার মাধ্যমে নির্ণয় সংক্রমণিত রোগীর সংখ্যা। সৌদি আরবে প্রায় প্রতিদিনই নতুন করে রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্তের খবর জানাচ্ছে সৌদি স্বাস্থ্য ম’ন্ত্রণালয়। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। সেই সাথে বাড়ছে মৃত্যু হার! ঝরে যাচ্ছে নতুন নতুন প্রাণ। এই মৃত্যুর মিছিলে প্রবাসী বাংলাদেশীদের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য। এখন পর্যন্ত ৩১২ জনের মাঝে প্রবাসী বাংলাদেশীর সংখ্যা ১০৯জন।
যা মোট মৃতের এক-তৃতীয়াংশ।

সৌদি আরবে রিয়াদ বাংলাদেশ দূতাবাস ও জেদ্দা কনস্যুলেটের সর্ব শেষ হিসাব অনুযায়ী এখন পর্যন্ত ১০৯ জন মৃত বাংলাদেশীর পরিচয় রেকর্ড করা হয়েছে। এর মধ্যে পূর্বাঞ্চলে রিয়াদ দূতাবাস আওতাধীন ১৭ জন। পশ্চিমাঞ্চলের জেদ্দা কনস্যুলেট আওতাধীন ৯২ জন। এই হিসাব আরো বাড়তে পারে বলে জানিয়েছেন জেদ্দা বাংলাদেশ কনস্যুলেট। এই হিসাবের বাহিরে বিশ্বস্ত সূত্র ও মৃত ব্যক্তির স্বজনদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্ট্যাটাস দেখে বোঝা যাচ্ছে মৃতের সংখ্যা বাড়বে। যা এখনো তালিকাভূক্ত করা হয়নি। নিম্নে মৃত ব্যক্তিদের নাম, উপজেলা ও জেলা উল্লেখ করা হলো।
◾কোরবান আলী, পিতা রিয়াজুল করিম, সাভার, ঢাকা। ◾আফাক হোসাইন পিতা মোহাম্মদ আমজাদ হোসাইন, নড়াইল সদর, নড়াইল জেলা। ◾মোহাম্মদ হাসান লোহাগড়া উপজেলা, চট্টগ্রাম। ◾মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, সাতকানিয়া উপজেলা, চট্টগ্রাম। ◾মান্নান মিয়া, উপজেলা সিঙ্গাই, মানিকগঞ্জ। ◾নাছির, উপজেলা সাতকানিয়া, জেলা চট্টগ্রাম। ◾খোকা মিয়া শিবপুর উপজেলা, নরসিংদী। ◾ রুস্তম খন্দকার, উপজেলা বামনা, জেলা বরগুনা। ◾মোহাম্মদ জাহিদ, উপজেলা হাইমচর, জেলা চাঁদ পুর। ◾মোহাম্মদ শফিউল আলম, উপজেলা হাটহাজারী, জেলা চট্টগ্রাম। ◾শেখ মোহাম্মদ আলি, থানা খালিশপুর, জেলা খুলনা। ◾সাইফুদ্দিন, কোম্পানিগঞ্জ উপজেলা, নোয়াখালী। ◾সিরাজ, উপজেলা কচুয়া, জেলা চাঁদ পুর। ◾ওমর আলি, উপজেলা কালিহাতি, জেলা টাঙ্গাইল।◾ মিজানুর রহমান থানা আখাউড়া, জেলা বি’বাড়িয়া। ◾হাফেজ রুহুল আমিন, রামু উপজেলা, কক্সবাজার।◾মোহাম্মদ জসিম, সাতকানিয়া উপজেলা, চট্টগ্রাম। ◾ আজেবুর রহমান, পাবনা সদর উপজেলা পাবনা।◾আবদুল করিম, বগুড়া সদর উপজেলা বগুড়া।◾দুলাল মিয়া রামগঞ্জ উপজেলা, লক্ষীপুর। ◾ওবায়েদুর রাহমান চৌধুরী, হালিশহর, চট্টগ্রাম। ◾রাশেদ আলম, চন্দনাইশ, চট্টগ্রাম। ◾ মোহাম্মদ ইসলাম, উপজেলা সাতকানিয়া, জেলা চট্টগ্রাম। ◾মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, চন্দনাইশ, চট্টগ্রাম। ◾আহামেদ হোসাইন রাউজান উপজেলা, চট্টগ্রাম। ◾দেলোয়ার হোসাইন, নবাবগঞ্জ উপজেলা, ঢাকা।◾ মাহবুবুল হক, উপজেলা মনহরগঞ্জ, কুমিল্লা। ◾মোরশেদুল আলম লোহাগড়া উপজেলা, চট্টগ্রাম। ◾হারুন ভূঞা, গৌরনদী উপজেলা, বরিশাল। ◾মোঃ ফিরোজ উদ্দিন, থানা বেগমগঞ্জ, জেলা নোয়াখালী। ◾আব্দুর রহিম, সোনাইমুড়ী উপজেলা, নোয়াখালী। ◾আলমগীর হোসাইন, মির্জাগঞ্জ উপজেলা, পটুয়াখালী। ◾আবদুল আজিজ, থানা সাতকানিয়া, জেলা-চট্টগ্রাম।◾আশরাফুল, থানা মির্জাপুর, টাঙ্গাইল।◾সিরাজ, উপজেলা মতলব দক্ষিণ, চাঁদপুর। ◾রেজাউল হক, বাশখালি, চট্টগ্রাম। ◾মঞ্জুর আহামেদ, লোহাগড়া উপজেলা, চট্টগ্রাম। ◾ফরিদুল আলম, থানা সাতকানিয়া, জেলা চট্টগ্রাম। ◾সোহেল রানা, থানা সিঙ্গাইল জেলা মানিকগঞ্জ। ◾ কামাল হোসাইন, থানা নবীনগর, জেলা বি’বাড়িয়া। ◾মজিবুর রহমান লোহাগড়া, চট্টগ্রাম। ◾সরওয়ার, সরাইল উপজেলা, বি’বাড়িয়া।◾জামিল হোসাইন, টেকনাফ উপজেলা, কক্সবাজার। ◾ফারুক, থানা বাঞ্ছারামপুর, জেলা বি’বাড়িয়া।◾মোস্তফা কামাল, কক্সবাজার সদর, কক্সবাজার। ◾মুসলিম উদ্দিন, হাটহাজারী উপজেলা চট্টগ্রাম।◾মোহাম্মদ সেলিম সোনাগাজী উপজেলা, ফেনী। ◾আমানউল্যাহ, কক্সবাজার সদর, কক্সবাজার। ◾মোহাম্মদ হোসাইন, সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম।◾সিরাজুল ইসলাম, সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম। ◾লোকমান হক, থানা সাতকানিয়া, জেলা চট্টগ্রাম। ◾রেজাউল করিম, লোহাগড়া, চট্টগ্রাম। ◾আবদুল হাসিব, রামগঞ্জউপজেলা, লক্ষীপুর।◾আব্দুল মতিন, থানা মনোহর গঞ্জ, কুমিল্লা। ◾হাফেজ কাশেম, থানা নাঙ্গলকোট, কুমিল্লা। ◾ফোরকান আহাম্মেদ, কক্সবাজার সদর উপজেলা, কক্সবাজার। ◾মমিন সরকার সোনারগাঁও, নারায়ণগঞ্জ। ◾মোকতার আহমেদ, থানা চকরিয়া, কক্সবাজার। ◾শামসুল আলম, মহেশখালী উপজেলা, কক্সবাজার। ◾মনির হোসেন, থানা উজিরপুর, বরিশাল।◾মোহাম্মদ কাশেম, উপজেলা সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম। ◾আব্দুল কাদির, থানা চকরিয়া, কক্সবাজার। ◾আব্দুল মালেক, থানা লোহাগড়া, চট্টগ্রাম।◾মোহাম্মদ সোহেল মিয়া, উপজেলা মেঘনা, কুমিলা। ◾তোফাজ্জল, উপজেলা দৌলতখান, ভোলা। ◾আলমগীর হোসেন, থানা মনোহর গঞ্জ, কুমিল্লা। ◾ মোহাম্মদ নাসির উদ্দীন, ভালুকা, ময়মনশাহী। ◾ ফরিদ, টেকনাফ, কক্সবাজার। ◾মোহাম্মদ তারেক, কক্সবাজার সদর উপজেলা, কক্সবাজার। ◾আব্দুল আলী, বিশ্বনাথ উপজেলা, সিলেট। ◾কায়েদে আজম, থানা পটিয়া, চট্টগ্রাম। ◾জামাল উদ্দিন, উপজেলা রামু, কক্সবাজার। ◾মাহফুজ সরদার, থানা গৌরনদী, বরিশাল। ◾শাহীন মিয়া, থানা শায়েস্তাগঞ্জ, হবিগঞ্জ। ◾আহামেদ কবির, থানা লোহাগড়া, চট্টগ্রাম। ◾মোঃ নাসির, সাতকানীয়া, চট্টগ্রাম। ◾মামুন মিয়া, থানা বি’বাড়িয়া সদর, জেলা বি’বাড়িয়া। ◾মাহমুদ হোসাই শেখ, বড়াইগ্রাম উপজেলা, নাটোর। ◾মোঃ নজমুল হক, উপজেলা বিশ্বনাথ, জেলা সিলেট। ◾আব্দুল মোত্তালিব, থানা সোনা গাজি, ফেনী। ◾ইউসুফ আলী, সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম। ◾মোহাম্মদ নুর করিম, ফেনী সদর উপজেলা, ফেনী। ◾নাজিমুদ্দীন, লোহাগড়া উপজেলা, চট্টগ্রাম। ◾হারুনুর রশিদ, চান্দিনা উপজেলা, কুমিল্লা। ◾কাদির আখাউড়া থানা, বি’বাড়িয়া। ◾আমির হোসেন, থানা রাজা পুর, ঝালকাঠি। ◾নুর ইসলাম, মুরাদনগর, কুমিল্লা। ◾আলাউদ্দিন, কসবা উপজেলা, বি’বাড়িয়া। ◾সিদ্দিক, সোনাইমুড়ী উপজেলা, নোয়াখালী। ◾মোঃ ইসহাক, লোহাগড়া উপজেলা, চট্টগ্রাম।

এই দিকে সৌদি আরবে বর্তমানে মৃতব্যক্তির লাশ দেশ পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। সেক্ষেত্রে মৃতব্যক্তির স্বজনদের অনুমতি সাপেক্ষে ইসলামী সকল বিধি-বিধান মনে এখানেই দাপন করা হবে। এই জন্য দেশে স্বজনদের পক্ষ থেকে যত তারাতারি অনুমতি পত্র পাঠাবে ততই মঙ্গলজনক। অনুমতিপত্র আনা না গেলে, অথবা আসতে দেরি হলে(৬০ দিনের মাঝে) তবে হিমাগার থেকে মৃত ব্যক্তিকে বেওয়ারিশ লাশ হিসাবে দাপন করা হতে পারে। এক্ষেত্রে মৃতব্যক্তির স্বজনরা লাশের কবরস্থান নির্ণয় ও ক্ষতিপূরণ না পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি থেকে যায়। তাই সৌদিতে বসবাসরত সকল প্রবাসী বাংলাদেশিরা অসুস্থ হওয়ার সাথে সাথে আপনার কর্মস্থল ও হাসপাতালের সঠিক তথ্য দেশে স্বজনদের কাছে পাঠানোই উত্তম। এতে দেশ থেকে স্বজনদের যোগাযোগ করতে সহজ হবে।

১৭-মে সৌদি আরবে নতুন করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ২,৭৩৬ জন, মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৫৪,৭৫২ জন, এদের মধ্যে বাংলাদেশি নারী-পুরুষ আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৫ হাজার জন,

সৌদিতে আজ মৃত্যুবরণ করেছেন ১০ জন, এনিয়ে মোট মৃত্যুবরণ করেছেন ৩১২ জন, এপর্যন্ত বাংলাদেশি মৃত্যুবরণ করেছেন ১০৯ জন,

আজ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২৫,৭২২ জন, এখন পর্যন্ত ২৮,৭১৮ জন চিকিৎসাধীন আছে বলে জানিয়েছে সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *