চট্টগ্রাম, , বুধবার, ২৭ মে ২০২০

এম মাঈন উদ্দিন মিরসরাই প্রতিনিধি

মিরসরাইয়ে দিনে দুপুরে ২১টি মহিষ চুরি, ১৩ টি উদ্ধার, থানায় অভিযোগ

প্রকাশ: ২০২০-০৫-২২ ১৩:২৭:০৭ || আপডেট: ২০২০-০৫-২২ ১৩:২৭:১২

মিরসরাই প্রতিনিধি|
মিরসরাই উপজেলার জোরারগঞ্জ থানাধীন ইছাখালী ইউনিয়নে ২১টি মহিষ চুরির ঘটনা ঘটেছে। যার বর্তমান বাজার মূল্য ২০লক্ষ টাকা। এঘটনায় দুজনের নাম উল্লেখ করে ৭/৮জনকে অজ্ঞত আসামী করে জোরারগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়। অভিযুক্তরা হলেন, কাজীরতালুক গ্রামের আব্দুল মন্নানের পুত্র শিবলু (৩৫) এবং একই বদিউল্লা পাড়ার মো. মিয়ার পুত্র মো. রাসেল সহ ৭/৮জনের নামে অভিযোগ করা হয়।

অভিযোগের সূত্র থেকে জানা গেছে, উপজেলার বঙ্গবন্ধু শিল্পজোন এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। জানা গেছে গত শুক্রবার (১৫মে) সকালে শিল্পজোন এলাকায় প্রতিদিনের মতো ২১টি মহিষ ছেড়ে দিয়ে আছে মহিষ মালিক মো. সোহেল। তিনি সকালে ছেড়ে দিয়ে দুপুরে ফেরত আনতে গেলে তাৎক্ষণিক মহিষগুলো খুঁজে না পেয়ে ফিরে আসে। এরপর ওই এলাকার কেউ একজন থেকে খবর পেয়ে অভিযুক্ত শিবলুর বাড়িতে গেলে শিবলু তাকে ওই বাড়িতে ডুকতে দেয়নি। পরে অন্যএকটি খবরে তিনি নিশ্চিত হয়ে শিবলুর বিরুদ্ধে স্থানীয় ব্যক্তিদের কাছে নালিশ করলে তারা আইনি সহায়তা নিতে পরামর্শ দিলে তিনি থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

মহিষ মালিক সোহেল জানান, আমি মাছ চাষ এবং গরু মহিষের খামার করে জীবিকাহ নির্বাহ করি। শিল্পজোন এলাকায় আমার একটি খামার রয়েছে। প্রতিদিনের মতো আমার ব্যক্তিগত মালিকানাধীন খামার থেকে বালুর মাঠ নামক স্থাকে বেধে আসি। এবং পরক্ষণে আমার ২১টি মহিষ না পেয়ে খোজাখুজি করি। এবং স্থানীদের মাধ্যমে খবর পাই স্থানীয় শিবলু এবং রাসেলের নেতৃত্বে আরো ৭/৮জন আমার মহিষ চুরি করে নিয়ে শিবলুর বাড়ি প্রাঙ্গনে রাখে। আমি তা দেখে আমি তাকে জিজ্ঞেস করলে সে অস্বীকার করে। পরে আমি তাদের বিরুদ্ধে ১৮ মে জোরারগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করি।

এই বিষয়ে জোরারগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক রতন কান্তি নাথ বলেন, মহিষ চুরি যাওয়ার খবরে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে যাই এবং ১৩ টি মহিষ উদ্ধার করেছি। বাকি ৮টি মহিষের ব্যাপারে আমরা অনুসন্ধান চালাচ্ছি। এই ঘটনায় মহিষ মালিক সোহেল বাদি হয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *