চট্টগ্রাম, , সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

বেলাল আহমদ বিশেষ প্রতিনিধি

লামায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে ধর্ষক নুরু আটক

প্রকাশ: ২০২০-০৬-৩০ ১৫:২৫:০৬ || আপডেট: ২০২০-০৬-৩০ ১৫:২৫:১২

বেলাল আহমদ, লামা|
বান্দরবানের লামায় উপজেলায় ৯ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ধর্ষক নুরুল ইসলাম নুরু (২৮) কে গ্রেফতার করেছে লামা থানা পুলিশ। সে লামা উপজেলার আজিজনগর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড ধূইল্যা পাড়ার বাসিন্দা মুকবুল মিয়া প্রকাশ সুবইল্লা এর ছেলে।

সোমবার (২৯ জুন’২০) রাতে লামা সার্কেলের সি: সহকারী পুলিশ সুপার মো. রিজওয়ানুল ইসলাম ও লামা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ(ওসি)মো. মিজানুর রহমান এর নির্দেশে লামা থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মাসুদ সিকদার ও শাহীনুল ইসলাম এর নেতৃত্বে সঙ্গীয় পুলিশের অভিযানে ধর্ষককে গ্রেফতার করা হয়।

জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার ২৫-জুন বিকাল ৪টায় নুরুল ইসলাম নুরু মেয়েটিকে তার বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়। তার বউ বাপের বাড়িতে বেড়াতে যাওয়ায় ফাঁকা সুযোগে সে ছোট শিশুটিকে ধর্ষণ করে। কিন্তু পাশের বাড়ির আরেক মহিলা মেয়েটিকে ডেকে নিয়ে যাওয়ার বিষয় অন্যরকম মনে হওয়াতে সন্দেহ সৃষ্টি হয়। বিষয়টি পাশের লোকজনকে অবহিত করলে লোকজন গিয়ে পরে হাতেনাতে বিবস্ত্র অবস্থায় তাকে ধরে ফেলে।

এদিকে, ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর গ্রাম্য শালিসের মাধ্যমে সমাধান করতে সোমবার ২৯ জুন বাদে মাগরিব ডিগ্রি খোলা বাজারে শালিসি বৈঠকের কথা ছিলো বলে জানাগেছে। কিন্তু স্থানীয় ইউপি মেম্বার হারেচ মিয়া ধর্ষণের ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে চাইছে বলে অভিযোগ করেন ভিকটিমের চাচা, এমনকি জানা যায় ধর্ষক তার নিকট আত্মীয় হয়।

এ বিষয়ে, ইউপি মেম্বার হারেচ মিয়ার কাছ থেকে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি আমি রোববার সকালে জানতে পারি। এবং সাথে সাথে ঘটনাটি আজিজনগর ইউপি চেয়ারম্যান কে অবহিত করি। আজ বাদে মাগরিব ধর্ষণের ঘটনাটি সমাধানের কথা ছিল।

এ ঘটনায় আজিজনগর ইউপি চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন জানান,আমাকে মোটেও জানানো হয়নি। আমি অসুস্হ তাই ঘঠনা সম্পর্কে কিছুই জানিনা। বিভিন্ন মাধ্যম থেকে যখনি জানতে পেরেছি সাথে সাথে আইনি প্রক্রিয়ায় সহযোগীতা করছি। এবং ওসি লামা মহোদয়ের সাথে কথা বলেছি। আমি এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি আর উপযুক্ত শাস্তি দাবী করছি।

ভিকটিমের বাবা বলেন, এই ঘটনায় আমি আইনের আশ্রয় নিতে চাইলে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও গ্রাম্য বিচারকরা সামাজিকভাবে বিষয়টি ভেঙ্গে দিবে বলে আশ্বাস দিয়ে আমাকে আইনের কাছে যেতে দেয়নি।

লামা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মিজানুর রহমান বলেন, শিশু ধর্ষণ ঘটনাটি স্পর্শকাতর। বিষয়টি জানার সাথে সাথে অভিযান চালিয়ে সোমবার রাত ৮টায় ধর্ষককে আটক করা হয়েছে। ভিকটিম ও তার বাবাকে আনা হয়েছে। এই ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা রেকর্ড করার প্রস্তুতি চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *