চট্টগ্রাম, , সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০

admin

রাঙ্গুনিয়ায় প্রতিবন্ধী চায়ের দোকানদারের গলাকাটা লাশ উদ্ধার

প্রকাশ: ২০২০-০৮-২১ ১৬:১২:৪২ || আপডেট: ২০২০-০৮-২১ ১৬:১২:৪৯

রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধি|

রাঙ্গুনিয়ায় এক প্রতিবন্ধী চায়ের দোকানদারের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (২১ আগস্ট) সকালে উপজেলার দক্ষিণ রাজানগর ইউনিয়নের রাজারহাট বাজার এলাকার একটি কালভার্টের নিচ থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

তার নাম মো. জাফর (৩৫)। সে একই ইউনিয়নের দক্ষিণ খন্ডলিয়া পাড়া এলাকার মো. নুরুচ্ছাফার ছেলে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছেন।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, শুক্রবার সকালে ছোট বাচ্চারা খেলা করার সময় একটি কালভার্টের নিচে জাফরের রক্তাক্ত লাশ দেখতে পায়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে। তবে এই ঘটনা কে বা কারা ঘটিয়েছে সে ব্যাপারে কিছু জানা যায়নি।

এদিন সকাল ১১টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন। লাশের পাশে বসে বিলাপ করে কাঁদছেন তার স্ত্রী এবং ১২ ও ১০ বছর বয়সী তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণীতে পড়ুয়া শাহেদ ও সাদিয়া নামে তার দুই সন্তান।

জানতে চাইলে তার স্ত্রী দিলুয়ারা বেগম জানান, নিহত জাফর জন্মগতভাবে একটি পায়ের সমস্যাজনিত কারণে প্রতিবন্ধি। সে রাজার হাটের পশ্চিম মোড়ে ভাসমান একটি চায়ের দোকান করে সংসার চালাত। প্লাস্টিক মোড়ানো এই ভাসমান চায়ের দোকানের মালামালগুলো রাতে পাশের একটি দোকানে রেখে যেতেন। তবে যেই দোকানে মালামাল রাখতেন সেটি কয়েকদিন ধরে বন্ধ থাকায় গত চারদিন ধরে রাতে তিনি দোকানেই থাকছিলেন। আর এটাই তার স্বামীর জন্য কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে জানিয়েছেন স্ত্রী দিলুয়ারা।

তিনি আরও বলেন, তার স্বামীর সাথে কারো পূর্ব শত্রুতা ছিল না। তবে এক মাস আগে এক সিএনজি ট্যাক্সি চালক এবং তার গাড়ির এক যাত্রীর সাথে কথা কাটিকাটি হয়। এ নিয়ে পারুয়া ইউনিয়ন পরিষদে মিমাংসা বৈঠকও হয়েছিল। তার জের ধরেই এই হত্যাকান্ড হতে পারে বলে ধারণা করছেন তিনি।

এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন রাঙ্গুনিয়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) আনোয়ার ইসলাম শামীম। তিনি ঘটনাস্থলের বিভিন্ন আলামত সংগ্রহ করেন এবং সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দিক খতিয়ে দেখেন। এই সময় স্থানীয়দের সাথেও কথা বলেন তিনি।

ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “উদ্ধারকৃত লাশের ঘাড়ে ও গলায় ধারালো অস্ত্রের গুরুতর যখম রয়েছে। প্রাথমিকভাবে এটি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড বলে মনে হচ্ছে। আমরা লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করছি। ঘটনার সুষ্ঠুভাবে তদন্ত করে জড়িত আসামিদের আইনের আওতায় আনা হবে।”

এদিকে এক সপ্তাহের ব্যবধানে রাঙ্গুনিয়ায় দুটি পৃথক খুনের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন এলাকাবাসী। এর আগে গত ১৫ আগস্ট সকালে দক্ষিণ রাঙ্গুনিয়ার শিলক ইউনিয়নের ফুলতল বাজারের পাশে রুবেল (৩০) নামে এক যুবককে বুকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এই ঘটনায় এখনও কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *