চট্টগ্রাম, , শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১

admin

ট্রাস্ট ব্যাংকের শাখায় সোয়া দুই ঘণ্টার বোমা নাটক

প্রকাশ: ২০২১-০৩-৩১ ২৩:৩৯:৪১ || আপডেট: ২০২১-০৩-৩১ ২৩:৩৯:৪৬

বীর কণ্ঠ ডেস্ক|
নগরীর একটি বেসরকারি ব্যাংকের শাখায় ঢুকে ‘বোমা মারার’ হুমকি দিয়ে টাকা দাবি করার অপরাধে এক যুবককে গ্রপ্তার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

যুবকের দাবি ছিল তার কাছে বোমা রয়েছে। চাহিদা অনুযায়ী টাকা না দিলে বোমা মেরে ব্যাংক উড়িয়ে দেবে। পরে দেখা যায় বোমা নয় তার প্যান্টের পকেটে একটি পারফিউমের কৌটা রয়েছে। পুলিশের দাবি- বিদেশ গিয়ে সর্বস্ব হারানো এ যুবক কিছুদিন আগে দেশে ফিরেছে। তবে তার মানসিক কোন সমস্যা রয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

বুধবার বিকাল সোয়া ৫টার দিকে নগরীর নেভি হাসপাতাল গেট এলাকায় ট্রাস্ট ব্যাংক, নেভাল বেস শাখায় এ ঘটনা ঘটে।

গ্রেপ্তার হওয়া তারেকুল ইসলাম (২৫) কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলার চিরিঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের মুফিজুর রহমানের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেলা সাড়ে তিনটার দিকে হঠাৎ করে খবর হয় ব্যাংকে এক যুবক বোমা নিয়ে ঢুকেছে। এ খবরে ব্যাংকে থাকা লোকজন ভয়ে বের হয়ে যায়। তার কাছে ওই সময় ভয়ে কেউ যেতে সাহস করেনি। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ, র‌্যাব, নৌবাহিনী ও কাউন্টার টেরোরিজমের সদস্যরা হাজির হয়। পরে দেখা যায় ওই যুবকের কাছে একটি পারফিউমের কৌটা ছাড়া আর কিছুই মেলেনি।

ইপিজেড থানার ওসি উৎপল বড়ুয়া বলেন, বেলা তিনটার দিকে ওই তরুণ ট্রাস্ট ব্যাংকে ঢুকে বসে থাকে। কিছুক্ষণ পর সে প্যান্টের পকেটে হাত ঢুকিয়ে বোমার ভয় দেখিয়ে ব্যাংকের কর্মকর্তাদের কাছে ২০ লাখ টাকা দাবি করে। অন্যথায় পকেটে রাখা বোমা ফাটিয়ে ব্যাংক উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। ব্যাংকের ওই শাখার কর্মকর্তারা ওই তরুণের সঙ্গে কথা বলার ফাঁকে পুলিশে খবর দেন।

ওসি উৎপল বলেন, পরে র‌্যাব, নৌবাহিনী ও পুলিশ সদস্যরা গিয়ে ব্যাংক থেকে কৌশলে লোকজনকে বের করে দিয়ে বেলা সোয়া পাঁচটার দিকে তাকে আয়ত্তে এনে গ্রেপ্তার করে। ওই তরুণ একবছর আগে সর্বস্ব হারিয়ে কুয়েত থেকে দেশে আসে এবং গত একবছর ধরে বেকার।

র‌্যাব-৭ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মশিউর রহমান জুয়েল বলেন, ব্যাংকটির ওই শাখা থেকে গ্রাহক-কর্মচারীদের বের করার পর তারেকুলকে আটক করে তল্লাশি করা হয়। তার প্যান্টের পকেটে একটি পারফিউমের কৌটা পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *