চট্টগ্রাম, , শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

Faruque Khan Executive Editor

চয়নিকা চৌধুরীকে ছেড়ে দিয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ

প্রকাশ: ২০২১-০৮-০৭ ০৯:০৬:০৬ || আপডেট: ২০২১-০৮-০৭ ০৯:০৬:১২

নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরীকে ছেড়ে দিয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ। শুক্রবার (৬ আগস্ট) সন্ধ্যার পরপরই তার আটক করে ডিবি অফিসে নেয়া হয়েছিল।

এরপর রাত ১০টার দিকে ডিএমপির ডিবি কার্যালয়ের সামনে ডিবির যুগ্ম কমিশনার হারুন অর রশিদ জানান, তাকে পরিবারের জিম্মায়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। এবং প্রয়োজন হলে তাকে আবার ডিবি অফিসে ডাকা হবে। এ সময় পরিমনির ঘনিষ্ঠ সহকর্মী কস্টিউম ডিজাইনার জিমিকেও পরিবারের জিম্মায় ছাড়া হবে বলে জানানো হয়। প্রয়োজনে তাকেও আবার ডাকা হতে পারে ডিবি অফিসে।

দেশের ‘টক অব দ্যা কান্ট্রি’ পরী মনি গ্রেপ্তারের ঘটনা। ঘটনাটির পর গত বৃহস্পতিবার রাত থেকে চয়নিকা চৌধুরীর ফেসবুক একাউন্ট খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না।

অবশেষে শুক্রবার (৬ আগস্ট) সন্ধ্যার পরপরই তার আটকের খবর আসে। ডিবি পুলিশ চয়নিকা চৌধুরীকে আটকের পর ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে যায়।

রাজধানীর বাংলামোটরে একটি বেসরকারি টেলিভিশনের অফিসের সামনে থেকে তাকে আটক করা হয়। সন্ধ্যা ৬টা ৪০ মিনিটের দিকে রাজধানীর পান্থপথ সিগন্যালে চয়নিকা চৌধুরীর গাড়িটি ঘিরে ধরে পুলিশ। ওই টিভির একটি সন্ধ্যাকালীন অনুষ্ঠানে অংশ নেয়ার পর সেখান থেকে বের হয়ে তিনি নিকেতনের বাসার দিকে যাচ্ছিলেন।

চয়নিকা চৌধুরী বাংলাদেশের একজন আলোচিত পরিচালক। ২০০১ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর ‘শেষ বেলায়’ নাটকের মধ্য দিয়ে পরিচালনা শুরু করেন তিনি। চয়নিকা চৌধুরী নির্মিত ‘বিশ্বসুন্দরী’ সিনেমার নায়িকা ছিলেন পরীমনি। এই নির্মাতার ওয়েব ফিল্ম ‘অন্তরালে’র জন্য সম্প্রতি চুক্তিবদ্ধ হন পরীমনি।

এর শুটিং শুরু হওয়ার কথা আগামী সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে। চয়নিকা চৌধুরী ও পরীমনির মধ্যে যে সখ্য রয়েছে, তা সবারই জানা। চয়নিকা চৌধুরীকে নিজের ‘মা’ বলে সম্বোধন করে থাকেন পরীমনি। উত্তরা বোট ক্লাবের ঘটনায় সংবাদ সম্মেলনে কাঁদতে থাকা পরীমনির চোখের জল মুছে দিয়েছিলেন চয়নিকা। মাথায় হাত বুলিয়ে দিয়েছিলেন। তিনি নিজেও ঘটনার বিষয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন। এক কথা সার্বক্ষণিক পরীমনির ছায়া হয়ে থেকেছিলেন। সাহস জুগিয়েছিলেন পরীমনির।

বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন ওঠাই স্বাভাবিক। এবারের ঘটনায় পরীমনি নিজেই সাহায্য চাইছিলেন লাইভে এসে। তবুও চয়নিকাকে তার ধারে-কাছেও দেখা যায়নি। আদালতেও যাননি। এমনকি এ নিয়ে গত দুই দিনে নিজের ফেসবুক ওয়ালে কোনো স্ট্যাটাসও দেননি।

নিজের এই অনুপস্থিতির বিষয়ে এক গণমাধ্যমকে চয়নিকা জানিয়েছেন, ওই ঘটনায় তিনি পরীমনির কাছে ছুটে গিয়েছিলেন দায়িত্ববোধ থেকে। সবার বিপদেই তিনি এভাবে এগিয়ে আসেন। কিন্তু এবার পারেননি কারণ, পরী যখন লাইভে আসেন তখন তিনি ফেসবুকেই ছিলেন না। সন্ধ্যা ৬টার পর তিনি জেনেছিলেন কিন্তু ততক্ষণে বিষয়টি র‌্যাবের অভিযান চলছে।

তাই বলে ফেসবুকেও কি একটা স্ট্যাটাস দেয়া গেল না? চয়নিকাকে এ প্রশ্ন না করা হলেও পরে দেখা গেছে, তার ফেসবুক আইডিটি খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

এর আগে বুধবার (৪ আগস্ট) সন্ধ্যায় বনানীর বাসা থেকে ঢাকাই সিনেমার অন্যতম নায়িকা পরীমনিকে আটক করা হয়। রাত আটটার পরে তাকে বাসা থেকে বের করে নিয়ে যাওয়া হয়। এ সময় পরীর সঙ্গে আরও দুজনকে আটক করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *