চট্টগ্রাম, , বুধবার, ১৮ মে ২০২২

admin

দুদকের মামলায় কারাগারে ফটিকছড়ির ইউপি চেয়ারম্যান জানে আলম |বীরকণ্ঠ

প্রকাশ: ২০২২-০৪-১৩ ০১:৫৫:০৫ || আপডেট: ২০২২-০৪-১৩ ০১:৫৫:০৭

ফটিকছড়ি(চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি|
অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার দাঁতমারা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জানে আলমকে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার (১২ এপ্রিল) চট্টগ্রাম জেলা ও দায়রা জজ আজিজ আহমেদ ভূঁইয়ার আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে জামিন নামঞ্জুর করেন।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন- ফটিকছড়ির কৃষি ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপক মুহাম্মদ আজিজুল হক, একই ব্যাংকের সাবেক কর্মকর্তা সুজিত কুমার নাথ, ক্যাশিয়ার আবুল কাশেম ও তৎকালীন ট্যাগ অফিসার প্রণবেশ মহাজন। গত ২৬ জানুয়ারি দুদকের চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয়-২ এ মামলাটি দায়ের করেন কার্যালয়টির সহকারী পরিচালক মো. নুরুল ইসলাম।

মামলার এজাহারে অভিযোগ আনা হয়, ২০১৫-১৬ অর্থ বছরের ১ম ও ২য় পর্যায়ের মোট ৮০ দিনের কর্মসৃজন প্রকল্পের দৈনিক ২০০ টাকা মজুরি হারে ৪১ জন শ্রমিকের ৬ লাখ ৫৬ হাজার টাকা ভূয়া শ্রমিক দেখিয়ে আত্মসাৎ করা হয়। তারা কেউই শ্রমিক নয় এবং সকলেই স্বাবলম্বী। তাদের মধ্যে স্কুল প্রধান শিক্ষক, পুলিশ সদস্য, গ্রাম পুলিশ, প্রবাসী, ব্যবসায়ী, চিকিৎসক এবং রাজনৈতিক ব্যক্তিদের নাম ছিল। তারা কখনো কৃষি ব্যাংকে যাননি কিংবা হিসাব খোলেননি এবং টাকাও উত্তোলন করেননি। এরপর ২০২০ সালে দুদকের উপ-সহকারী পরিচালক মো. শরীফ উদ্দিন তদন্ত করে ৪১ জন শ্রমিকের অর্থ আত্মসাতের দালিলিক প্রমাণ পাওয়ায় চেয়ারম্যানসহ বাকিদের বিরুদ্ধে মামলার সুপারিশ করে দুদক কমিশনে প্রতিবেদন জমা দেন।

দুদকের আইনজীবী মুজিবুর রহমান চৌধুরী বলেন, দুদকের মামলায় ফটিকছড়ি উপজেলার দাঁতমারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জানে আলমকে হাইকোর্ট আগাম ৬ সাপ্তাহের জামিন দিয়েছিলেন। জামিন শেষে চট্টগ্রাম জেলা ও দায়রা জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন তিনি। আদালত উভয় পক্ষের শুনানি শেষে জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *