চট্টগ্রাম, , রোববার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪

admin

লোহাগাড়ায় কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতিকে হামলার ঘটনায় থানায় মামলা | বীরকণ্ঠ

প্রকাশ: ২০২৪-০২-১৫ ১৮:৪৬:১৬ || আপডেট: ২০২৪-০২-১৫ ১৮:৪৬:১৭

লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি|
চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার বার আউলিয়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি আরিফুল ইসলামকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে দূর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় ১২ জনকে এজাহার নামীয় আসামী করে থানায় মামলা করা হয়েছে। ওই এলাকার নূর আহম্মদের পুত্র মোঃ জামাল(৪৫)কে এ ঘটনায় গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আহত ছাত্র লীগ নেতা আরিফুল ইসলামের মা শাহিনা আক্তার(৪০) বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে থানায় এ মামলা করেন। মামলায় ৮ জনকে অজ্ঞাতনা আসামী করা হয়।

এজাহার নামীয় আসামীরা হলেন, মৃত নুরু মেম্বারের পুত্র জাগাঙ্গীর আলম(৪৫), মোহাম্মদ দেলোয়ারের পুত্র মোহাম্মদ জাবেদ(২০), জামাল আহমদের পুত্র মোহাম্মদ জাহেদ(২৫), আলী আহমদের পুত্র মোঃ ইব্রাহিম(২৫), মৃত আবুল কাশেমের পুত্র মোঃ সেলিম(২৫), সামশুল ইসলামের পুত্র মোঃ এমরান(৩৫), সৈয়দ আহমদের পুত্র আবছার(২৪), সৈয়দ আহমদের পুত্র মোঃ রিয়াজ উদ্দীন(২৩), জামাল আহমদের পুত্র মোঃ রুবেল(২৫), মোঃ আলীর পুত্র মোঃ ইমন(২২), নূর আহম্মদের পুত্র মোঃ জামাল(৪৫) ও নূর আহম্মদের পুত্র মোঃ হোসেন মিস্ত্রি(৫০)। প্রত্যেকে উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের ফরিয়াদিরকুলের বাসিন্দা।

গত বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) রাত ৯ টার দিকে পদুয়া ইউনিয়নের ফরিয়াদিকুল এলাকায় এলোপাথাড়ি কোপিয়ে ছাত্র লীগ নেতা আরিফকে মারাত্মক জখম করে। আহত আরিফুল ইসলাম ওই এলাকার মোহাম্মদ হাসানের পুত্র।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, আরিফুল ইসলাম ও তার বন্ধু মোহাম্মদ ইসমাইল বাইকে করে বাড়ী যাচ্ছিলেন। পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা একদল দুর্বৃত্ত তাদের গতিরোধ করে। এক পর্যায়ে আরিফুল ইসলামকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি কোপায়। এতে তার মাথাসহ শরীরের একাধিকস্থানে গুরুতর জখম হন। রক্তাক্ত হয়ে সে মাটিতে লুটে পড়ে।

ওই সময় বন্ধু আরিফুল ইসলামকে দুর্বৃত্তের হামলা থেকে রক্ষা করতে গেলে আহত হন ইসমাইলও। তার আত্মচিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে দূর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। স্থানীয় লোকজন তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।

আহত ছাত্র লীগ নেতা আরিফের মা শাহিন আক্তার বলেন, আসামীরা চাইনিজ কোড়াল, ধামা দা দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে এলোপাথাড়ি কোপায়। আমার ছেলের মাথায় ও পিঠের বিভিন্ন স্থানে কোপায়। রক্তাক্ত জখম হয়। হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে লড়ছেন আমার ছেলে। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আসামিরা এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

লোহাগাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা: রায়হান উদ্দিন জানান, হামলায় আহত দুইজনকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন স্থানীয়রা। এরমধ্যে গুরুতর জখম আরিফুল ইসলামকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। আহত ইসমাইল এ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

লোহাগাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রাশেদুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ঘটনার সাথে জড়িত একজনকে গ্রেপ্তার করেছে। ঘটনার সাথে জড়িত অন্যদেরও গ্রেপ্তার করতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এই ঘটনায় তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উল্লেখ্য, উপজেলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারী মামুনুর রশীদ নামের এক ছাত্রলীগ কর্মীকে মারধর করে পায়ের রগ কেটে দোওয়ার ঘটনা ঘটেছে। বর্তমানে সেও চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *