চট্টগ্রাম, , রোববার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

admin

ঈদে বান্দরবানে পর্যটকের সমাগম কম 

প্রকাশ: ২০১৭-০৯-০৪ ১৪:৪১:১৯ || আপডেট: ২০১৭-০৯-০৪ ১৪:৪২:৩৮

বীর কন্ঠ ডেক্স:  ঈদের সময় বান্দরবানের মেঘলা, নীলাচল, নীলগিরি, স্বর্ণমন্দিরসহ বিভিন্ন দশর্নীয় স্থানগুলোয় পর্যটকের উপচে পড়া ভিড় থাকে। তবে এবারের চিত্র সম্পূর্ণ ভিন্ন। আগে থেকে হোটেল-মোটেলে বুকিং দিয়েও শেষ মুহূর্তে  অনেকেই তা বাতিল করেছেন। দুর্যোগপূর্ণ আহাওয়ার কারণে বান্দরবানে পর্যটকের সমাগম অনেকটা কম বলে মনে করছেন পর্যটন সংশ্লিষ্টরা। পর্যটন স্পট মেঘলা, শৈল প্রপাত, নীলাচলসহ বিভিন্ন জায়গায় শনি ও রবিবার ঘুরে দেখা যায় সেগুলো ফাঁকা। অথচ প্রতিবছরে এসময় পর্যটকরা ভিড় জমান এ স্থানগুলোয়। কম সংখ্যাক পর্যটক আসায় পাহাড়ি ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ও পর্যটন শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা গুনছেন লোকসান। 

নোয়াং বম নামে এক তরুণী বলেন, ‘এবছর ঈদের ছুটিতে পর্যটক কম আসছে। তাই বেচা-বিক্রি নেই। সারাদিন বসে বসে অলস সময় কাটাচ্ছি আমরা।’

তারপরও যারা বেড়াতে আসছেন তারা বান্দরবানের অপরূপ সৌন্দর্য দেখে মুগ্ধ। ঢাকা থেকে আসা সামশুল ইসলাম বলেন, বান্দরবানের প্রত্যেকটি পর্যটন কেন্দ্রের অপরূপ দৃশ্য দেখে মুগ্ধ। তবে প্রত্যেকটি কেন্দ্রেই পর্যটক ছিল কম। আরও বেশি পর্যটক থাকলে আরও ভালো লাগতো বলেও জানান তিনি। শহরের হোটেল ‘গ্রীন হিল’ এর ম্যানেজার আশিষ কুমার দে জানান,এবছর পর্যটকের আনা-গোনা নেই বান্দরবানে। কোনও বুকিং নেই তাদের হোটেলে। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে এমনটা হয়েছে বলে মনে করছেন তিনি।

হোটেল প্লাজা-এর জেনারেল ম্যানেজার মুসলিম কবির জানিয়েছেন, তাদের  অনেকগুলো বুকিং  ইতিমধ্যে বাতিল করা হয়েছে।

বান্দরবান হোটেল মোটেল মালিক সমিতির সভাপতি অমল কান্তি দাশ বলেন, ‘রোজার ঈদে পাহাড় ধসের প্রভাবে পর্যটক অনেক কম ছিল। আমরা যারা হোটেল ব্যবসায়ের সঙ্গে সম্পৃক্ত তাদের সবারই কম-বেশি লোকসান গুনতে হয়েছে। আশা করেছিলাম, কোরবানির ঈদে পর্যটক আশানুরূপ হবে। সেভাবেই আমরা হোটেল মোটেলগুলো প্রস্তুত রেখেছি। কিন্তু গতবারের চেয়ে এবার ঈদে পর্যটক আরও কম এসেছে। এভাবে চলতে থাকলে আমাদের এ ব্যবসা বন্ধ করে দেওয়া ছাড়া আর কোনও উপায় থাকবে না।’

বান্দরবান জেলা প্রশাসক দিলীপ কুমার বণিক জানান,নীল দিগন্ত, মেঘলা নীলাচল, প্রান্তিক লেক, বন প্রপাতসহ বিভিন্ন পর্যটন কেন্দ্রগুলো পর্যটকদের জন্য সাজানো হয়েছে। বাড়ানো হয়েছে নিরাপত্তাও। তবে বৃষ্টির কারণে এবারের ঈদের ছুটিতে বান্দরবানে পর্যটক অন্যান্য বছরের তুলনায় অনেক কম। তারপরও সামনের দিনগুলোতে পর্যটক বাড়ার সম্ভাবনা আছে বলে মনে করছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *