চট্টগ্রাম, , সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

admin

সাতকানিয়ার বড়ছড়া ব্রিজ ঝুঁকিপূর্ণ

প্রকাশ: ২০১৭-১০-০৩ ০১:৫২:৩৩ || আপডেট: ২০১৭-১০-০৩ ০১:৫২:৩৪

দিদারুল আলম, সাতকানিয়া (চট্টগ্রাম): চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার পুরাতন রামপুর ডিসি সড়ক বর্তমানে শাহ জব্বারিয়া সড়কটির ১০ কিমি দৈর্ঘ্যের চরতী ইউনিয়নের সুইপুরা এলাকার বড়ছড়া খালের উপর নির্মিত ব্রিজের উইং ওয়াল ধসে পড়েছে। এতে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে এ পথে যান চলাচল। নির্মাণ কাজে গাফিলতি ও বর্ষার সময় পাহাড়ি ঢলের কারণে ব্রিজের এ অংশে ভেঙে পড়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

 

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের বিকল্প সড়ক হিসেবে সাতকানিয়া-লোহাগাড়া উপজেলার অধিবাসী চট্টগ্রাম শহরে কম সময়ে চট্টগ্রাম শহরে যাওয়ার জন্য রাস্তাটি ব্যবহার করে থাকে। কাঞ্চনা ইউনিয়নের শেষ প্রান্তে ও চরতী ইউনিয়নের শুরুতে সুইপুরা এলাকার বড়ছড়া খালের উপর নির্মিত ব্রিজের উত্তর পার্শ্বের উইং ওয়াল গত বন্যার সময় পাহাড়ি ঢলে ধসে গেছে। ব্রিজের গোড়ার মাটি সরে বড় আকারের গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে যে কোনো সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।

 

অথচ এ ব্রিজের উপর দিয়ে প্রতিদিন চরতী ও কাঞ্চনা এলাকার শত শত ছাত্র-ছাত্রী সাতকানিয়া সরকারি কলেজ, সাতকানিয়া মহিলা কলেজ, জাফর আহমদ চৌধুরী কলেজ, সাতকানিয়া আলীয়া মাদ্রাসা, সাতকানিয়া মডেল উচ্চ বিদ্যালয়, সাতকানিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে যাতায়াত করে। থানা, উপজেলা ও সাতকানিয়া আদালতে যাতায়াতে ১২ গ্রামের অধিবাসী প্রতিদিন শাহ জব্বারিয়া সড়ক ব্যবহার করে। পাহাড় ঘেরা এ এলাকার উত্পাদিত কৃষিপণ্য, গ্রামীণ সবজি ও ফলমূল উপজেলা সদরে ও চট্টগ্রাম শহরে বিক্রি করতে নেয়ার একমাত্র সড়কও এটি। বড়ছড়া খালের ব্রিজে ঝুঁকির কারণে এ পথে যান চলাচল কমে গেছে।

 

সিএনজি চালক শমসুল আলম, নুরুল কবির, মামুন-অর-রশিদ, নেজাম উদ্দিন বলেন, প্রতিদিন ঝুঁকি নিয়ে গাড়ি চালিয়ে বড়ছড়া খালের ব্রিজটি দিয়ে শহরে গ্যাসের জন্য যাই।

 

চরতী ইউনিয়নের মো. রেজাউল করিম বড়ছড়া খালের ব্রিজটির ঝুঁকির কথা স্বীকার করে ইত্তেফাককে বলেন, বিষয়টি উপজেলা প্রকৌশলী, উপজেলা চেয়ারম্যান ও সংসদ সদস্যকে অবহিত করেছেন। জরুরিভিত্তিতে সংস্কার করা না হলে ব্রিজটি অচিরেই ভেঙে যেতে পারে।

 

সাতকানিয়া উপজেলা প্রকৌশলী মোহাম্মদ সোলায়মান ইত্তেফাককে বলেন, ব্রিজটির উইং ওয়াল ধসের খবর পেয়ে ওই এলাকায় গিয়ে পরিদর্শন করেছি এবং ওই স্থানে একটি নতুন ব্রিজ নির্মাণের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে।-  ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *