চট্টগ্রাম, , রোববার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

admin

বিএনপি নির্বাচনে আসবে, আমাদের কার্যক্রমে তাদের আস্থা আছে: সিইসি

প্রকাশ: ২০১৭-১০-১৪ ১৩:৪৮:১৬ || আপডেট: ২০১৭-১০-১৪ ১৩:৪৮:১৬

 

বীর কন্ঠ ডেস্ক: বাংলাদেশের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করবে বলে আশা প্রকাশ প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা।  আজ (শনিবার) সকালে রাজধানীর বেইলি রোডের সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজ কেন্দ্রে ভোটার নিবন্ধন কার্যক্রম উদ্বোধন শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

 

রোববার বিএনপি সংলাপে অংশ নিচ্ছে এতে কি আপনারা মনে করছেন যে আপনাদের ওপর বিএনপির আস্থার জায়গাটা তৈরি হচ্ছে- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে সিইসি বলেন, “এর আগেও তারা ব্যক্তিগতভাবে অথবা আনুষ্ঠানিকভাবে আমার সাথে দেখা করেছেন, তখন বলেছেন যে, তারা নির্বাচনে আসবেন। তারা সংলাপে আসা মানেই হলো অবশ্যই নির্বাচনে আসবেন। আর আমাদের কার্যক্রমে তাদের আস্থা আছে এটা আশা করি।”

 

নির্দলীয় সরকারের অধীনে না হওয়ায় দশম সংসদ নির্বাচন বর্জন করেছিল বিএনপি। বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচন করতে অনীহা প্রকাশ করলেও দলটি নির্বাচন কমিশনের চলমান সংলাপে অংশ নেয়ার সিদ্ধান্ত জানিয়েছে।

 

 

 

সংলাপ শেষ হলে নির্বাচন কমিশনের পরবর্তী কার্যক্রম কী হবে- জানতে চাইলে কে এম নুরুল হুদা বলেন, “সংলাপে আমরা যেসব প্রস্তাবনা পাব, সেগুলো সমন্বয় করে পুস্তিকা আকারে বের করব। তারপর সেগুলো থেকে কমিশনের যা করার এখতিয়ার আছে তা করবে। তাছাড়া পুস্তিকাগুলো সরকারসহ বিভিন্ন মহলের কাছেও পাঠানো হবে।”

 

প্রবাসীদের ভোটার করা প্রসঙ্গে সিইসি বলেন, “প্রবাসীদের ভোটার করার ক্ষেত্রে তাদের উপস্থিতির দরকার আছে। কারণ নিবন্ধনের জন্য ফিঙ্গার প্রিন্ট বা ছবি তোলার কাজ রয়েছে। এ ছাড়া প্রবাসীরা ভোটার হতে গেলে তাদেরকে ভিআইপি হিসেবে দ্রুততার সঙ্গে ভোটার করার জন্য মাঠ পর্যায়ে নির্দেশনা দেয়া আছে।”

 

একদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠান নিয়ে পরামর্শ পেতে গত ৩১ জুলাই সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বসার মধ্য দিয়ে সংলাপ শুরু করে নির্বাচন কমিশন। এরপর ১৬ ও ১৭ অগাস্ট গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের সঙ্গে মতবিনিময়ের পর ২৪ অগাস্ট থেকে শুরু হয় নিবন্ধিত ৪০টি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে ধারাবাহিক সংলাপ। এবার দলগুলোকে নিবন্ধনক্রমের নিচ থেকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। সে হিসাবে বিএনপির জন্য ১২ অক্টোবর ও আওয়ামী লীগের জন্য ১৫ অক্টোবর সংলাপের তারিখ প্রস্তাব করা হয়। কিন্তু বিএনপি দলীয় কর্মসূচির কথা বলে ১৫ অক্টোবর বসতে চাইলে তাদের জন্য সেই দিনই ঠিক হয়। আর আওয়ামী লীগের অনুরোধে তাদের সংলাপের জন্য ১৮ অক্টোবর তারিখ রাখা হয়।#

 

-পার্সটুডে

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *