চট্টগ্রাম, , সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

admin

অপহৃত আব্দুল গফুরের করা মামলায় ৭ ডিবি সদস্যা আসামি কারাগারে

প্রকাশ: ২০১৭-১০-২৬ ২২:০০:১৮ || আপডেট: ২০১৭-১০-২৬ ২২:০০:১৮

বীর কন্ঠ ডেস্ক:

টেকনাফের এক ব্যবসায়ীকে অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়ের ঘটনায় ১৭ লাখ টাকাসহ আটক কক্সবাজার গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) ৭ সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

 

অপহৃত ব্যবসায়ী আব্দুল গফুর বাদী হয়ে বুধবার রাতে টেকনাফ থানায় মামলা দায়ের করেন। এতে ডিবি পুলিশের আটক ৭ সদস্যকে আসামি করা হয়েছে।

 

টেকনাফ থানার ওসি মাইন উদ্দিন খান এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, ব্যবসায়ী আব্দুল গফুর বাদী হয়ে বুধবার রাতে ওই মামলাটি দায়ের করেন। এতে ৭ ডিবি সদস্যের বিরুদ্ধে জোরপূর্বক আটক রেখে অর্থ আদায়ের অভিযোগ আনা হয়েছে। এছাড়া উদ্ধার ১৭ লাখ টাকা মামলার আলামত হিসেবে জব্দ করা হয়েছে।

 

অপরদিকে আটক ৭ ডিবি সদস্যকে বৃহস্পতিবার আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন তিনি।

 

ডিবি পুলিশের ওই সদস্যরা হলেন, এসআই আবুল কালাম আজাদ, এসআই মো. মনিরুজ্জামান, এএসআই মো. আলাউদ্দিন, এএসআই মো. ফিরুজ, এএসআই মোস্তাফা কামাল, কনস্টেবল মোস্তফা আজম ও মো. আল আমিন।

 

৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন:ডিবি পুলিশের ৭ সদস্যকে গ্রেফতারের ঘটনায় কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আফরুজুল হক টুটুলের নেতৃত্বে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি তাদের কার্যক্রম শুরু করেছে।

 

বৃহস্পতিবার তদন্ত টিমের সদস্যরা এ সংক্রান্ত বিষয়ে টেকনাফে আসেন। তিনি জানান, তদন্ত কার্যক্রম শুরু হয়েছে। তদন্তসাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি।

 

উল্লেখ্য, গত ২৪ আগস্ট কক্সবাজার হোটেল আল গণির সম্মুখ থেকে টেকনাফ পৌরসভা এলাকার বাসিন্দা ব্যবসায়ী আবদুল গফুরকে অপরহরণ করে নিয়ে যায় ডিবি পুলিশের একটি দল।

 

ওই ব্যবসায়ীকে কলাতলী এলাকায় একটি গোপন স্থানে আটকে ক্রসফায়ারের ভয় দেখিয়ে এক কোটি টাকা দাবি করা হয়। পরে ১৭ লাখ টাকা দফারফা হওয়ার পর। অপহৃতকে নিয়ে টেকনাফে এসে মুক্তিপণের টাকা নিয়ে অপহৃতকে ছেড়ে দেন। টাকা নিয়ে ফিরে যাওয়ার সময় বুধবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে মেরিন ড্রাইভ সড়কের সেনা চেকপোস্টে ১৭ লাখ টাকাসহ আটক হন ৭ ডিবি সদস্য।- যুগান্তর

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *