চট্টগ্রাম, , বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯

মিজবাউল হক চকরিয়া অফিস

আলীকদমে ভূয়া পিতা বানিয়ে দলিল করে মামলার জালে প্রাথমিক শিক্ষক

প্রকাশ: ২০১৯-০৮-৩১ ২২:১৭:৪৮ || আপডেট: ২০১৯-০৮-৩১ ২২:১৭:৫৭


চকরিয়া অফিস:
আলীকদমে ভূয়া পিতা বানিয়ে দলিল করে মামলার জালে প্রাথমিক শিক্ষক। বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার অসথি থিপুরা পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জয়নাব আরা বেগমের আসল পিতা নিয়ে দেখা দিয়েছে বিভ্রান্তি। কে তার আসল পিতা ? এটা নিয়ে একান ওকান কানা ঘুষা চলছে সর্বজনে। পার্বত্য বিধি অনুযায়ী পাবর্ত্য চট্টগ্রামে জমি ক্রয় করতে হলে নিজ নামে বা মা-বাবার, দাদা দাদীর নামে জমি থাকতে হয়। এর কোনটিই নেই শিক্ষক জয়নাব আরা বেগমের। তবে সাবেক স্বামীর ৩০-১২-১৯৯৭ ইং ক্রয়কৃত জমি দখল নিতে ভূয়া পিতা সাজিয়ে দলিল করে মামলায় আটকা পড়েছেনে তালাকপ্রাপ্ত শিক্ষক জয়নাব আরা বেগম।
এনিয়ে বান্দরবান চীফ জুড়িসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে সিআর মামলা নং ১১৮-১৯ দায়ের করেছেন মোঃ শফিকুল ইসলাম। যা আদালতের নির্দেশে আলীকদম থানা জিআর ২২৯-১৯ ফৌজদারী মামলা রেকর্ড ভুক্ত হয়। মামলার অভিযোগে উল্লেখ করা হয় জয়নাব আরা বেগমের পূর্বের স্বামী মোঃ শফিকুল ইসলামের ২০০৬ সালের রেজিষ্ট্রাট দলিল থাকার সত্বেও ক্রয় কৃত বসতভিটা ও জমিতে ২০১৪-১৫ সালে পাকা বাড়ি দখলে নিতে জনৈক জয়নাল আবেদীনকে ভূয়া পিতা সাজিয়ে ১৫-০১-২০১৮ইং স্বামীর তালাক দেওয়ার একমাস পর জয়নাব আরা বেগমের দায়ের করা মিস মামলা নং ৩০ (ডি)-১৯ তে তদন্তকারী কর্মকর্তা আলীকদমের সার্ভেয়ার তনক চাকমার কাছে মিথ্যা বক্তব্য ও ভূয়া দলিল উপস্থাপন করেন। জয়নাব আরা পিতা ও মাতার নামে পার্বত্য চট্টগ্রামে জমি না থাকা সত্বেও বিগত ১৯-০২-২০১৮ইং জনৈক জয়নাল আবেদীন পিতা- খুইল্ল্যা মিয়া, সাং-আলীকদম এর নামীয় ২৮৭ নং তৈন মৌজার ৩৯নং খতিয়ানে জমি রের্কডভূক্ত আছে বলে দাখিল করেন। প্রকৃত পক্ষে জয়নাব আরা বেগমের পিতার নাম-জয়নাল আবেদীন পিতা-মৃত কাজেম আলী, সাং-পূর্ব কাকারা ৯নং ওয়ার্ড, কাকারা, চকরিয়া, কক্সবাজার। দাখিলকৃত কাগজপত্র পর্যালোচনায় দেখা যায় জাতীয় পরিচয় পত্র অনুযায়ী সাজানো পিতা ও জয়নাব আরা বেগমের বয়সের ব্যবধান এক বছর চার মাস।
এবিষয়ে সাজানো পিতা জনৈক জয়নাল আবেদীন দীর্ঘদিন ইয়াবা মামলায় জেল হাজতে থাকায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। অপরদিকে শিক্ষক জয়নাব আরা বেগমকে মুঠোফোনে ফোন দিলে তিনি কথা বলতে অস্বীকৃতি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *