চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯

মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি

কচ্ছপিয়ায় দিনে বন বিভাগ কাটল ফলজ গাছ রাতে স্থানীয় ২ ব্যক্তি লুট করল প্রজেক্টর মাছ

প্রকাশ: ২০১৯-০৯-০২ ২০:৪৬:৫৯ || আপডেট: ২০১৯-০৯-০২ ২০:৪৭:০৮

মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কুঃ
কক্সবাজারের রামু উপজেলার কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের কেচ্ছ্যাবুনিয়ার মৌলানা মোস্তাকের ঘোনা নামক এলাকায় বন বিভাগ কর্তৃক কাটল ফলজ গাছ ও স্থানীয় ২ ব্যক্তি লুট করল মাছ।

মাছে প্রজেক্টের মালিক রেজাউল করিম জুনাইদ জানান,তার পিতা মৌলানা মোস্তাক আহম্মদের দীর্ঘ ৪০ বছর ধরে খাস দখলিয়া জমি ও কিছু তার আম্মার নামে লিজ নেওয়া জমিতে করা মাছের প্রজেক্টের চর্তুপাশে রোপন করা আম রুপালি, উন্নত জাতের কুল,পেয়ারা, কমলা লেবুসহ বিভিন্ন ফলজ গাছের ৫ শত চারা গাছ কেটে পেলেছে বনবিভাগ।

দিনে বনবিভাগের এ চারা গাছ কাটার পর ফের রাতে ঐ এলাকার নুরুল ইসলাম ও শহিদুল্লাহ কর্তৃক আমার প্রজেক্ট থেকে লুট করে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ ও অবশিষ্ট ফলজ গাছ। দিনে বন বিভাগ কেটে ফেললো বিভিন্ন জাতে ফলজ গাছ আর রাতে মাছ লুট ও চারা নিয়ে যাওয়ায় অনুমানিক আড়াই লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি শিকার হয়েছে বলে দাবী করেন তিনি সাংবাদিকদের কাছে।

এবিষয়টি নিয়ে স্থানীয় নুরুল হক ও হোসেনসহ এলাকার অনেক মানুষ আক্ষেপ করে বলেন, দীর্ঘ এক বছর আগে রোপন করা হয় এই চারা। বন বিভাগের এমন কাজ করা ঠিক হয়নি। কারণ এই চারা কারো ক্ষতি করে নি। আর এ জমি কেউ উঠিয়ে নিতে পারবেনা। কেন এই অমানবিক কাজ করেছেন জনমনে সৃষ্টি হয়েছে নানা প্রশ্ন। কেহ বলেন বনবিভাগের দাবীকৃত টাকা না দেওয়ায়। আর কেহ বলছেন স্থানীয় কিছু মানুষ টাকা দিয়ে এই কাজ করান। তা না হলে রাতে আবার প্রজেক্টের মাছ কেন লুট করা হল। এ বিষয়ে বনবিট কর্মকর্তা শেখ মিজানুর রহমানের মুঠোফোনে জানতে চাইল তিনি অবৈধ জায়গার চারা গাছ কাটা হয়েছে বলে এ প্রতিবেদককে জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *