চট্টগ্রাম, , বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯

নীরব জসীম ডেস্ক কন্ট্রিবিউটর

গত ৫০ বছরে দেশের জনগণ সুশাসন পায়নি : ড. কামাল হোসেন

প্রকাশ: ২০১৯-০৯-০৮ ০০:১১:০৮ || আপডেট: ২০১৯-০৯-০৮ ০০:১১:১৬

নিউজ ডেস্ক : গণফোরাম সভাপতি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ডক্টর কামাল হোসেন বলেছেন, দেশে সুশাসন নেই, আইনের শাসন নেই। তাই দেশে কার্যকর গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে হবে। গত ৫০ বছরে দেশের জনগণ সুশাসন পায়নি। অতীতেও আমরা ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে স্বৈরাচার হটিয়েছি। এবারও ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে স্বৈরাচার হটানো হবে। ইনশাল্লাহ এবার আমাদের জয় হবে, আমাদের জয় সুনিশ্চিত।

আজ শনিবার রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চের হলরুমে গণফোরামের ২৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনাসভায় এ তিনি কথা বলেন।

ড. কামাল বলেন, সংবিধানে লেখা আছে জনগণ সব ক্ষমতার মালিক। এই কথার সঙ্গে কোনো দ্বিমত হতে পারে না। যেখানে গণতন্ত্র থাকে সেখানে বহুদল থাকে, বহু মত থাকবে, নানা আদর্শ থাকবে। কিন্তু সংবিধানের মূলনীতির বিরুদ্ধে কারো কোনো অবস্থান থাকতে পারে না।

ঐক্যফ্রন্টের এই শীর্ষ নেতা বলেন, জনগণ ক্ষমতার মালিক এটা নিয়ে স্বাধীন দেশে দ্বিমত থাকতে পারে না। যারা এই কথাকে অস্বীকার করে তারা আমাদের রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে অবস্থান করছে। অনেকেই বলে বিভাজন বিভাজন। আমিও বিশ্বাস করি দেশে বহুদল মত, বিভাজন থাকবেই। কিন্তু কিছু মৌলিক বিষয়ে সকল দলকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

তিনি বলেন, আমাদের মূল লক্ষ্য হলো জনগণের ঐক্য। যে ঐক্যের উপর ভর করে আমরা স্বাধীনতা যুদ্ধ করেছি। যখন মানুষ মনে করছিল সাড়ে সাত কোটি মানুষ কিভাবে স্বাধীনতা অর্জন করবে। কিন্তু আমরা এই অসম্ভব কাজকেই সম্ভব করেছি একমাত্র সকলের ঐক্যের মাধ্যমে। আমরা স্বাধীনতা অর্জন করেছি। আর এই স্বাধীনতার লক্ষ্য উদ্দেশ্য বাস্তবায়ন করতে চলে জনগণের চিন্তার ঐক্য, মূল্যবোধের ঐক্য তৈরি করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, রাষ্ট্র পরিচালনার ক্ষেত্রে আইনের নিরপেক্ষ প্রয়োগ হবে। দেশে আইনের সুষ্ঠু শাসন ব্যবস্থা প্রয়োগ করতে পারলে আমরা সকল অস্থিতিশীলতা থেকে বাঁচবো এবং দেশে গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রুপ দিতে পারব।

এ সময় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ভোট চোর, ডাকাত, বেহায়া। এ স্বৈরশাসক সরকারকে হটাতে হলে বৃহত্তর ঐক্য গড়ে তুলতে হবে।

তিনি আরো বলেন, দেশ বিক্রি হয়ে যাচ্ছে। মানুষের সম্পদ লুট হচ্ছে এ জন্য যত দ্রুত সম্ভব সরকারকে হটাতে হবে। এ বিপজ্জনক সরকারের কারণে দেশের স্বাধীনতা আজ হুমকির মুখে।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মঈন খান বলেন, বাংলাদেশের মানুষের আজ ভোটাধিকার নেই। কথা বলার স্বাধীনতা নেই। সব আজ কলুষিত। শুধু ঐক্যবদ্ধ হলেই হবে না, ঐক্যবদ্ধ হয়ে রাজপথে নামতে হবে। প্রয়োজনে রক্ত দিয়ে দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, গণফোরামের কার্যনির্বাহী কমিটির সভাপতি সুব্রত চৌধুরী, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি, রেভোলেশনারী ওয়ার্কার্স অব বাংলাদেশ পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিপি নুরুল হক নুর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *