চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ৫ মার্চ ২০২১

মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি

মানবেতর জীবন কাটছে কচ্ছপিয়া নতুন তিতার পাড়ার কর্মহীন শ্রমজীবি মানুষ

প্রকাশ: ২০২০-০৪-২৬ ১৯:৩৫:৫৫ || আপডেট: ২০২০-০৪-২৬ ১৯:৩৫:৫৯

মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কুঃ

সারা দেশে নোভেল করোনাভাইরাস প্রতিরোধ করার লক্ষে লকডাউন দীর্ঘ একটি মাস পার হতে চলছে। এতে করে রামুু উপজেলার কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের পাহাড়তলী নতুন তিতার পাড়া ও জাংছড়ি নতুন পাড়ার সি এনজি, অটোরিক্সা,টমটম চালকদের বিভিন্ন সড়কে গাড়ী চলা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় এসব এলাকার প্রায় শতাধিক চালক এখন বেকার। অপরদিকে এই এলাকাটি কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের সবচেয়ে গরীব এলাকা। হ্যাঁ তবে এ গ্রামের মানুষ সবাই শ্রমজীবি কেউ কাঠ মিস্ত্রী বা রাজ মিস্ত্রী, দিনমজুর ও ড্রাইভার। দীর্ঘ লকডাউনে এখন সবাই মানবেতর জীবন যাপন করছেন বলে জানালেন ড্রাইভার সোনা মিয়া। তিনি বলেন শতাধিক সিএনজি,অটোরিক্সা,টমটম চালকের পরিবার রয়েছে। আর দিনমজুর ও কাঠ মিস্ত্রী,রাজ মিস্ত্রীর সদস্য কয়েক শতাধিক।এলাকার সচেতন ব্যক্তিদের মতে এখন চলছে পবিত্র মাহে রমজান মাস। কর্মহীন শ্রমজীবি এ মানুষদের ছেলে মেয়েদের কান্না ও আহজারিতে ভারী হয়ে উঠেছে আকাশ বাতাস। কর্মহীন এসব মানুষ ও চালকেরা কোন উপায় না দেখে কান্নাকাটি করছেন কেউ নিরবে আবার কেউ প্রকাশ্যে। একদিকে চালকরা গাড়ী না চালালেও কোন কর্ম ও খুজে পাচ্ছেনা, অন্যদিকে প্রাণঘাতি করোনা মহামারিতে লকডাউনের কারণে এলাকায় কোন কাজ না থাকায় হাত গুটিয়ে বসে আছে বিভিন্ন কাজের এসব মানুুষ গুলো। মহামারি এ করোনা দুর্যোগে সম্প্রতি সরকারি কোন সহযোগীতা কিংবা খাদ্য সহায়তা ও পায়নি এই এলাকার অসহায় মানুুষরা। স্থানীয় ইউপির চেয়ারম্যান আবু মোঃ ইসমাঈল নোমান থেকে জানতে চাইলে তিনি বলেন,অনেক মানুষকে ত্রাণ দিয়েছি আমার ব্যক্তিগত উদ্যোগে। সরকারি ভাবে যা পেয়েছি তাও দিয়েছি তবে পর্যাপ্ত বরাদ্দ না আসায় অনেক জায়গায় দেওয়া সম্ভব হয়নি। তাদের অর্থ সহায়তায় এগিয়ে আসতে এমপি,ডিসি,ইউএনওসহ সংশ্লিষ্টদের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *