চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ১৫ জানুয়ারী ২০২১

admin

আমজাদ হত্যা মামলা: সাতকানিয়ায় চেয়ারম্যান নেজামসহ ১০ আসামি কারাগারে

প্রকাশ: ২০২০-১১-১১ ২৩:৩৪:১০ || আপডেট: ২০২০-১১-১১ ২৩:৩৪:১৬

সাতকানিয়া প্রতিনিধি|
সাতকানিয়া উপজেলার সোনাকানিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আমজাদ খুনের ঘটনায় দায়ের করা মামলার যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে  জামিনে থাকা ১০ আসামির জামিন বাতিল করে তাদের জেল হাজতে প্রেরণ করেছেন আদালত। আজ বুধবার (১১ নভেম্বর) বিকালে বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক একেএম মোজাম্মেল হকের আদালতে এ মামলার যুক্তিতর্ক শেষ হয়।  যে কোনো দিন মামলার রায় ঘোষণা হতে পারে।

উল্লেখ্য আজ হতে ২২ বছর আগে ১৯৯৯ সালের ৩ অক্টোবর সাতকানিয়ার মির্জাখীল দরবার শরিফের সামনে সোনাকানিয়া ইউনিয়নের পর পর দু’বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা আমজাদ হোসেনকে গুলি করে হত্যা করা হয় । এ ঘটনায় ৪ অক্টোবর নিহতের স্ত্রী সৈয়দা রওশন আকতার বাদী হয়ে সাতকানিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ ২০০০ সালের ২২ ডিসেম্বর আদালতে মামলার চার্জশিট দাখিল করে ।
জামিন বাতিল হওয়া ১০ আসামি হলেন সাতকানিয়া সদর ইউপির চেয়ারম্যান নেজাম উদ্দিন, ইমতিয়াজ হোসেন ওরফে ঠোঁটকাটা মানিক, মো. ইদ্রিস, মো. জাহেদ হাসনাইন, আবু মোহাম্মদ রাশেদ হাসনাইন, ফোরখ আহমদ, মো. হারুনর রশিদ, জিল্লুর রহমান, মো. রফিক ও আবু তাহের।

দীর্ঘ ২২ বছরের এ বিচারিক প্রক্রিয়ায় ২১ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানান বাদীপক্ষের আইনজীবী এডভোকেট এসইউএম নুরল ইসলাম।

এ মামলার অপর ১০ আসামির মধ্যে লুৎফুর রহমান চৌধুরী ওরফে লুতু মারা গেছেন। অন্যদিকে পলাতক রয়েছেন আওয়ামীলীগ নেতা বশির আহমদ চৌধুরী, মো. ইদ্রিস, তারেক, আইয়ুব, মোরশেদুল আলম, আব্দুল মালেক, জসিম উদ্দিন, খায়ের আহমদ ও মো. মোস্তাক। নিহত আমজাদ চেয়ারম্যানের ছেলে মোহাম্মদ তারেক তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, আমার বাবার খুনিদের উপযুক্ত শাস্তি হবে এটা আমি আশা করি।

এডভোকেট এসইউএম নুরুল ইসলাম আরও জানান, এ ৯ আসামির মধ্যে অনেকে বিচারকার্য শুরুতেই পলাতক ছিলেন। আবার বশিরসহ কয়েকজন গ্রেপ্তার পরবর্তী জামিনে বেরিয়ে পলাতক রয়েছেন। বিভিন্ন সময়ে বিচারকার্যে অনুপস্থিতির কারণে সবার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। মামলার রায় কখন হতে পারে জানতে চাইলে রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি (পিপি) এডভোকেট আইয়ুব খান জানান, মামলার রায় লেখা সম্পন্ন হলে আদালত রায়ের তারিখ নির্ধারণ করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *