চট্টগ্রাম, , রোববার, ২৩ জানুয়ারী ২০২২

admin

বাঁচাও বাঁচাও চিৎকার করতে করতে বন্ধুদের সামনে নদীতে তলিয়ে যায় যুবক            

প্রকাশ: ২০১৮-০৭-২৫ ২৩:৪২:০১ || আপডেট: ২০১৮-০৭-২৫ ২৩:৪২:০১

আব্বাস হোসাইন আফতাব :

ফুটবল খেলে নদী সাঁতরে বাড়ি ফিরছিল ৭ যুবক। ৬ জন নদীর কুলে উঠতে পারলেও একজন পানির স্রোতে তলিয়ে যায়। পানিতে তলিয়ে যাওয়ার সময় ওই যুবক বাঁচাও বাঁচাও চিৎকার করলেও কেউ তাঁকে বাঁচাতে পারেনি।

পানির তীব্র স্রোতে হারিয়ে যায় যুবক মো. ইকবাল (২০)। মঙ্গলবার (২৪ জুলাই) সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ার পারুয়া রাবার ড্যাম এলাকার ইছামতি নদী সাঁতার কেটে পার হওয়ার সময় সে নিখোঁজ হয়। উপজেলার স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ড পেয়ার মোহাম্মদ পাড়া এলাকার বাদশা আলমের পুত্র ইকবাল।আজ বুধবার (২৫ জুলাই) রাত ৯ টা পর্যন্ত নিখোঁজ যুবকের কোনো খোঁজ মিলেনি বলে জানান ফায়ার সার্ভিসের রাঙ্গুনিয়া স্টেশনের কর্মকর্তা দুলাল কুমার মিত্র।

তিনি বলেন, “উপজেলার পারুয়া হাজারী বিলে প্রীতি ফুটবল খেলে ফেরার পথে ইছামতী নদীতে ডুবে যুবক নিখোঁজ হয়। তাঁরা চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দলকে খবর দিলে ৩ কর্মী নদীতে উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছেন। নিখোঁজ যুবকের বন্ধু তারেক, রুকন ও জাহেদ বলেন, “ সাঁতরে নদী পার হওয়ার সময় তীব্র  স্রোত ছিল। তাঁরা ৬ জন নদী পার হয়ে উঠতে পারলেও ইকবাল পানিতে তলিয়ে যায়। তাঁদের সামনে বন্ধু ইকবাল ডুবে গেলেও তীব্র  স্রোত থাকায় ভয়ে তারা পানিতে নামতে পারেনি। পানিতে ডুবে যাওয়ার সময় সে বাঁচাও বাঁচাও বলে চিৎকার করতে থাকে । ”  ইকবাল স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া ইউনিয়ন ছাত্রসেনার সহসাংগঠনিক সম্পাদক জানিয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রসেনা সভাপতি এইচ এম শহীদ উল্লাহ বলেন, “ ইকবাল রাঙ্গুনিয়া কলেজে এইচএসসিতে পড়ে। সে ছাত্রসেনার একজন সক্রিয় কর্মী ছিল। সারারাত কর্মী ও বন্ধুরা নদীর পাড়ে তাঁকে খোঁজাখুঁজি  করেও পায়নি। ”প্রতিবেদন – আব্বাস হোসাইন আফতাব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *