চট্টগ্রাম, , সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২

admin

জিগাতলায় শিক্ষার্থীদের ওপর একদল যুবকের হামলা, গুলি

প্রকাশ: ২০১৮-০৮-০৪ ১৭:৩৬:২০ || আপডেট: ২০১৮-০৮-০৪ ১৭:৩৬:২০

বীর কন্ঠ ডেস্ক  :

রাজধানীর ধানমন্ডির জিগাতলায় এলাকায় নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ওপর লাঠি হাতে হামলা চালিয়েছে একদল যুবক। এ ঘটনার পর থেকে থেমে থেমে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া চলছে। এসময় থেমে থেমে গুলির শব্দ পাওয়া গেছে।

শনিবার দুপুর ২ টার পর থেকে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। এ সময় শিক্ষার্থী-সাংবাদিকসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়। এতে গুরুতর আহত হয়ে জাপান-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে ১০ জন। এর মধ্যে পাঁচজন আওয়ামী লীগের কর্মী, তিনজন শিক্ষার্থী ও দুজন পথচারী।শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ওই এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

জানা যায়, শনিবার দুপুরের দিকে জিগাতলার বিজিবি গেটের সামনে হেলমেট পড়া যুবকরাই শিক্ষার্থীদের ওপর লাঠি হাতে হামলা চালায়। তখন থেকে জিগাতলা, সাইন্সল্যাব ও ধানমন্ডি এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এর আগে শনিবার সকাল থেকে জিগাতলা এলাকায় জড়ো হতে থাকে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অসংখ্য শিক্ষার্থী। ধীরে ধীরে তাদের সংখ্যা বাড়তে থাকে।এদিকে এ ঘটনার বেশ কয়েকটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও ছড়িয়ে পড়েছে।

কয়েকটি ভিডিওতে দেখা যায়, দুপুরে লাঠি হাতে ৩০ থেকে ৩৫ জন মধ্যবয়সী যুবক সেখানে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায়।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী, প্রত্যক্ষদর্শীসূত্রে জানা যায়, শনিবার দুপুর দেড়টার দিকে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার পর খবর ছড়ায় একজন শিক্ষার্থীকে আওয়ামী লীগ অফিসে আটকে মারধর করা হচ্ছে। এ খবর পেয়ে শিক্ষার্থীরা জিগাতলা আই হাসপাতালের সামনে জড়ো হতে থাকে এবং আওয়ামী লীগের অফিসের দিকে অগ্রসর হতে থাকে। এ খবর আওয়ামী লীগের কর্মীদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে তারাও রাস্তায় বের হয়ে এসে শিক্ষার্থীদের ধাওয়া দেন। ধাওয়া খেয়ে জিগাতলার দুই পাশের রাস্তায় ছড়িয়ে-ছিটিয়ে পড়ে শিক্ষার্থীরা। তারা আবারও জড়ো হয়ে আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে এবং কর্মীদের ধাওয়া দেয়। দুই পক্ষের কয়েক দফা ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনার প্রায় ২০ মিনিট পর ধানমন্ডি থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। পুলিশ গিয়েই পরিস্থিতি শান্ত করার জন্য কয়েকটি টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। এর কিছুক্ষণ পরই পরিস্থিতি শান্ত হয়ে যায়। কিন্তু এ ঘটনায় কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের দাবি, দুপুর ২টার দিকে বিজিবি গেটের সামনে শত শত শিক্ষার্থীর একটি অংশের ওপর হঠাৎ করে হেলমেট পরা লাঠি হাতে ২৫-৩০ জনের এক দল ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা লাঠি নিয়ে হামলা চালায়। এ সময় তাদের সঙ্গে যোগ দেন পুলিশ সদস্যরা। এই ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। ওই এলাকা দিয়ে যাওয়া পথচারীদেরকেও পেটানো হয়েছে। মোবাইলে হামলার ছবি যারা তুলছিল তাদের মোবাইল ফোন কেড়ে নিয়ে ভেঙে ফেলে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা।

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত (শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টা) পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এ সময় পুলিশের সঙ্গে লাঠি হাতে একদল যুবককেও দেখা গেছে। ঘটনা বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের সদর দফতরের কাছে হওয়ায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালাচ্ছেন বিজিবি সদস্যরাও।

এবিষয়ে রমনা জোনের উপ-কমিশনার (ডিসি) মারুফ সরকার বলেন, ‘আমরা বিষয়টি জানতে পেরেছি। তবে বেশি কিছু বলতে পারব না। আপনারা ঘটনাস্থলে গিয়ে খোঁজ নেন।’

উল্লেখ্য, ২৯ জুলাই রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সামনে বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহতের প্রতিবাদে সেদিন থেকেই শিক্ষার্থীরা রাজধানীর বিভিন্ন রাস্তায় অবস্থান কর্মসূচি পালন করে আসছে।-

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *