চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২

Faruque Khan Executive Editor

চট্টগ্রামে উদযাপিত হচ্ছে ঈদুল আজহা: ভেদাভেদ ভুলে একে অপরকে জানিয়েছেন ঈদের শুভেচ্ছা

প্রকাশ: ২০১৮-০৮-২২ ১৬:৫৪:০০ || আপডেট: ২০১৮-০৮-২২ ১৬:৫৪:০০

বীর কন্ঠ ডেস্ক :

ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য এবং ত্যাগের মহিমায় বুধবার (২২ আগস্ট) বন্দরনগরী চট্টগ্রামে উদযাপিত হচ্ছে মুসলমান সম্প্রদায়ের অন্যতম বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আজহা। পশু কোরবানির মধ্য দিয়ে মনের পশুত্বকে কোরবানি দেয়ার আহ্বানে ঈদ উৎসবে মেতে উঠেছেন চট্টগ্রামের বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ।

যথারীতি নামাজ আদায়ের মধ্য দিয়েই সকালে শুরু হয় ঈদুল আজহার আনুষ্ঠানিকতা। নগরীর জমিয়তুল ফালাহ জাতীয় মসজিদ ময়দানে ঈদুল আজহার প্রথম ও প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। নামাজের পর খুতবায় দেশ এবং দেশের মানুষের কল্যাণ কামনায় মহান আল্লাহতালার কাছে আকুতি জানানো হয়েছে। ত্যাগের মহিমায় আত্মশুদ্ধি এবং মনের কালিমাকে কোরবানি দেওয়ার কথাও বলা হয়েছে খুতবায়।

চট্টগ্রাম নগরীতে এবার সিটি করপোরেশন ও জেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে ১৬৮ টি ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। কেন্দ্রীয় ঈদ জামাত কমিটির উদ্যোগে নগরীর ৯৩টি স্থানে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সকাল পৌনে ৮টায় জমিয়তুল ফালাহ জাতীয় মসজিদ ময়দানে ঈদুল আজহার প্রধান জামাতে ইমামতি করেছেন খতিব সৈয়দ আবু তালেব মোহাম্মদ আলাউদ্দিন আল কাদেরী। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন এই ঈদ জামাতের আয়োজন করেছে। একই ময়দানে সকাল পৌনে ৯টায় ঈদের দ্বিতীয় জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সকাল ৮টায় এম এ আজিজ স্টেডিয়াম সংলগ্ন জিমনেশিয়াম মাঠে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। জমিয়তুল ফালাহ মসজিদ ময়দানে আয়োজিত ঈদের প্রধান জামাতে চট্টগ্রামের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, ব্যবসায়ী-শিল্পপতি সহ নগরীর বিভিন্ন স্থান থেকে আসা হাজার হাজার মুসল্লির সমাগম ঘটে।

সেখানে নামাজ আদায় করেছেন সাবেক মন্ত্রী আবদুল্লাহ আল নোমান, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, চট্টগ্রামের সাবেক মেয়র মীর মো.নাছির উদ্দিন, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমেদ, নগর বিএনপির সভাপতি ডা.শাহাদাৎ হোসেন ও সিনিয়র সহ সভাপতি আবু সুফিয়ান, জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সোলায়মান আলম শেঠ, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ভারপ্রাপ্ত মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনীসহ চট্টগ্রামের বিশিষ্টজনেরা।

নামাজ শেষে রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী ও সাধারণ মুসল্লিরা পরস্পরের সঙ্গে আলিঙ্গনের মধ্য দিয়ে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। নামাজ আদায়ের পরপরই নগরীর বিভিন্ন অলিগলি, রাস্তায়, মাঠে, বাসাবাড়ির সামনে কোরবানি শুরু হয়েছে।

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন জানিয়েছেন, বর্জ্য অপসারণের জন্য প্রায় পাঁচ হাজার কর্মী বিভিন্ন ওয়ার্ডে চলে গেছেন। ২৪৮টি গাড়িও বের হয়ে গেছে। অপসারণের জন্য বর্জ্য গাড়িতে তোলার কাজও শুরু হয়েছে। এবার নগরীতে সাড়ে ৭ হাজার টন কোরবানির বর্জ্য হবে বলে ধারণা সিটি করপোরেশনের।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *