চট্টগ্রাম, , রোববার, ২৬ জুন ২০২২

শংকর চৌধুরী খাগড়াছড়ি জেলা প্রতিনিধি

খাগড়াছড়িতে ৭ খুন : তদন্তে ‘মানবাধিকার কমিশন

প্রকাশ: ২০১৮-০৮-২৭ ১৮:৪৪:৪৫ || আপডেট: ২০১৮-০৮-২৭ ১৮:৪৪:৪৫

 

খাগড়াছড়ির স্বনির্ভর বাজারে সন্ত্রাসীদের গুলিতে ইউপিডিএফ সমর্থীত তিন কর্মীসহ সাত হত্যাকান্ড ঘটনার তদন্তে নেমেছে জাতীয় মানবধিকার কমিশন। সোমবার (২৭ আগস্ট) দুপুর ১২টায় মানবাধিকার কমিশনের তথ্য ও অনুসন্ধান কমিটি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। 

তদন্ত টিম এসময় স্বনির্ভর বাজারে ব্যবসায়ী, প্রত্যক্ষদর্শী, ইউপিডিএফ সমর্থীত পাহাড়ি ছাত্র  পরিষদ ও স্থানীয়দের সাথে কথা বলেন। তদন্ত কমিটি স্বনির্ভর বাজার, পুলিশ বক্স ও সিএনজি স্টেশনসহ ঘটনাস্থল ঘুরে দেখেন। জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের তথ্য ও অনুসন্ধান কমিটির আহ্বয়ক নুরুন নাহার ওসমানী’র নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলে মানবাধিকার কমিশনের সদস্য বাঞ্চিতা চাকমা ও রবিউল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

এসময় বাংলাদেশ মানবধিকার কমিশনের তথ্য ও অনুসন্ধান কমিটির আহ্বয়ক নুরুন নাহার ওসমানী ‘জেলা সদরের শহর এলাকায় নিরপত্তাবেস্টনীর মধ্যে এমন হত্যাকান্ডের ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আমরা ঘটনাস্থল পরির্দশন করে তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করার পাশাপাশি স্থানীয়দের সাথে কথা বলেছি। এই নিয়ে শীঘ্রই মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যানের কাছে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়া হবে।

তদন্তকালে খাগড়াছড়ি সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ সাহাদাত হোসেন টিটো তদন্ত টিমকে জানান, ‘হামলাকারীরা পুলিশ বক্সেও হামলা চালিছে। তিনি পুলিশ বক্সে ছোড়া বুলেট চি‎হ্ন দেখান তদন্ত টিমকে। এসময় খুনের ঘটনার তদন্তে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসন গঠিত তদন্ত কমিটির প্রধান ও খাগড়াছড়ির অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আবু ইউসুফ, খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সৈয়দ মোঃ শামসুল তাবরীজ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে ইউপিডিএফ সমর্থীত তিন সংগঠন গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ ও হিল উইমেন্স ফেডারেশন খাগড়াছড়ি জেলা ইউনিটের পক্ষ থেকে খাগড়াছড়ির স্বনির্ভর ও পেরাছড়ায় সংগঠনের ৩ নেতাসহ ৭ ব্যক্তি নিহত হওয়ার ঘটনা তদন্তের জন্য গঠিত জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের তদন্ত কমিটির কাছে একটি যৌথ স্মারকলিপি পেশ করে। স্মারকলিপিতে পার্বত্য চট্টগ্রামে গণতান্ত্রিক পরিবেশ নিশ্চিত, হত্যাকান্ডের সাথে জড়িতদের কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ এবং আহতদের চিকিৎসার খরচসহ নিহত ও আহতদের পরিবারগুলোর জন্য আর্থিক ক্ষতিপূরণ দাবি করা হয়। এসময় গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রতন স্মৃতি চাকমা, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক অমল বিকাশ ত্রিপুরা ও হিল উইমেন্স ফেডারেশন খাগড়াছড়ি জেলা শাখার নেত্রী এন্টি চাকমা উপস্থিত ছিলেন। 

প্রসঙ্গত, শনিবার (১৮ আগস্ট) সকাল সাড়ে ৮ টারদিকে খাগড়াছড়ির স্বনির্ভর বাজারে ব্রাশফায়ারে ছয় জন নিহত হয়। একই দিন দুপুরের দিকে ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিলে আরো একজন নিহত হয়। এ ঘটনার জন্য প্রতিপক্ষ পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস-এমএনলারমা) ও ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) কে দায়ী করেছে প্রসীত বিকাশ খীসার নেতৃত্বাধীন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট-ইউপিডিএফ।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *