চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯

ফারুক খান তুহিন

নিবেদিতপ্রাণ এনামুল হক সাতকানিয়া উপজেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত  

প্রকাশ: ২০১৯-০৩-২৪ ০৮:০৭:৩৪ || আপডেট: ২০১৯-০৩-২৪ ০৮:০৭:৩৪

বীর কন্ঠ, সাতকানিয়া : নিজ কর্মের স্বীকৃতি পেলেন মাধ্যমিক শিক্ষায় নিবেদিতপ্রাণ ব্যক্তিত্ব মো: এনামুল হক । চলতি বছর তিনি চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বা‌চিত হ‌য়ে‌ছেন । জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ চলাকালে তাকে এ সম্মাননার জন্য মনোনীত করে কর্তৃপক্ষ।

মো: এনামুল হক সাতকানিয়ার অন্যতম বিদ্যাপীঠ শেরে বাংলা উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক। তার ২০ বছরের শিক্ষকতা জীবনে তিনি কৌশলী হয়ে যেমন পাঠ দান করেন, তেমনি ছাত্রদের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক তৈরী করেন। ফলে শিক্ষার্থীদের হৃদয়ে আইডল শিক্ষক হিসেবে এনামুল হক’র নাম উচ্চারিত হয়।

এনামুল হক ১৯৭৬ সালে বাজালিয়া ইউনিয়নের কমিরা পাড়ার এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা মতাজুল হক এবং মা রফিকুন্নেছা চৌধুরী। 

তিনি ১৯৯২ সালে অনুষ্ঠিত মাধ্যমিক পরীক্ষায় ফার্স্টক্লাস পান। তারই ধারবাহিকতায় উচ্চ মাধ্যমিকেও ফার্স্টক্লাসের অধিকারী হন তিনি। পরে বিএসসি (অনার্স) এবং বিএড ডিগ্রি অর্জন করেন।

১৯৯৭ সালে ছদাহা কেঁওচিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক হিসেবে ক্যরিয়ার শুরু করেন এনামুল। ২০০১ সালে নিজ এলাকা বাজালিয়াস্থ শেরে বাংলা উচ্চ বিদ্যালয়ে যোগদান করেন। অধ্যবদি তিনি সুনামের সাথে ওই প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আছেন। ব্যক্তি জীবনে তিনি তিন কন্যা সন্তানের জনক।

এনামুল হক যেমন শিক্ষার্থীদের জন্য আইডল শিক্ষক, ঠিক তেমনি শিক্ষকদের জন্য একজন ভাল সহকর্মী। তিনি শিক্ষার্থীদেরকে সহপাঠক্রমিক কাজেও অংশ নিতে বাধ্য করেন।

উপজেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত হওয়ার ইতিকথা জানতে চাইলে, নিবেদিত  প্রাণ মো: এনামুল হক বলেন, “এটা শুধুমাত্র আমার ব্যক্তিগত অর্জন নই। আমার ছাত্র-ছাত্রী ও সহকর্মীরাও এই অর্জনের অংশিদার। আমি শুধুমাত্র পরীক্ষায় পাশের জন্য শিক্ষার্থীদের উদ্বুদ্ধ করিনা, তাদেরকে সুনাগরিক তথা মানুষের মত মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার চেষ্টা করি। আমার গর্ব হয় তখন, যখন আমার ছাত্র-ছাত্রীরা ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, সরকারি আমলা হয়ে দেশের সেবায় আত্মনিয়োগ করে।  আমার স্বপ্ন আমার বিদ্যালয়টি একদিন জেলায় প্রথম স্থান অধিকার করবে।”  

এদিকে ছাত্র-ছাত্রীদের প্রিয় শিক্ষক এনামুল হক উপজেলায় শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত হওয়ায় বিভিন্ন মহল শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে শুভেচ্ছা জানিয়ে ঝড় তোলেছে প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *